কোমর ব্যথা সারানোর সহজ উপায় - কোমরের ব্যথা কমানোর ট্যাবলেট

প্রিয় বন্ধুরা আজকে আমরা জানবো কোমরের ব্যথা কেন হয় কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় এছাড়াও কোমর ব্যথার ঔষধ মলম সম্পর্কে জানবো। কম বেশি সবারই কোমর ব্যথা হয়ে থাকে তাই কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় গুলো জেনে রাখা ভালো। তাহলে চলুন কোমর ব্যথা সম্পর্কে সকল বিষয় জেনে নেওয়া যাক।
কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ ১৫ টি উপায়

আমাদের কিছু ভুলভাবে চলাফেরার কারণে অনেক সময় কোমর ব্যথা হয়ে থাকে। আপনার যদি কোমর ব্যথা থাকে তাহলে নিচের অংশ গুলো থেকে কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় এবং কোমরের ব্যথা কমানোর ট্যাবলেট এর নাম জেনে নিন।

সূচিপত্রঃ কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় - কোমরের ব্যথা কমানোর ট্যাবলেট  

কোমরের ব্যথা কেন হয় - অল্প বয়সে কোমর ব্যথার কারণ

অল্প বয়সী ছেলে মেয়েদের অনেক সময় কোমর ব্যথা হয়ে থাকে। কিন্তু অল্প বয়সে কোমর ব্যথার কারণ কি? আপনি কি জানেন হয়তো জানেন না। আমাদের বিভিন্ন রকম ভুল কাজের জন্য এবং নিয়ম না মেনে চলাফেরা করার জন্য কোমরের ব্যথা হয়ে থাকে। অল্প বয়সে কোমর ব্যথার কারণ গুলো হলোঃ

  • দীর্ঘ সময় ধরে একই ভঙ্গিতে চেয়ারে বসে কাজ করার জন্য কোমরে ব্যথা হয়ে থাকে
  • অনেক সময় ধরে শুয়ে থেকে বই পড়লে বা মোবাইল টিপলে কোমরে ব্যথা হয়ে থাকে।
  • এছাড়াও কাত হয়ে অনেক সময় ধরে শুয়ে থাকার কারণে কোমরে ব্যথা হয়ে থাকে
  • যদি বসার চেয়ার ঠিকঠাক না হয় তাহলে অতিরিক্ত সামনের দিকে বসার কারণে অথবা পিছনে ঝুঁকে বসার কারণে কোমরে ব্যথা হয়ে থাকে
  • অনেক সময় ধরে ড্রাইভিং করার কারণে এবং ড্রাইভিং সিটে বসে সামনের দিকে অনেক সময় ঝুঁকে থাকার কারণে কোমরের ব্যথা হয়ে থাকে
  • ভারী জিনিস বহন করার অভিজ্ঞতা না থাকার কারণে ভুল ভাবে নিয়মিত বহন করলে কোমরে ব্যথা হতে পারে
  • অনেক সময় ধরে নিচের দিকে ঝুঁকে কোন কাজ করার কারণে কোমর ব্যথা হয়ে থাকে।
  • মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে কোমর ব্যথা হয়। তবে সবার ক্ষেত্রে এমনটা হয় না।
  • সুষম খাবার না খাওয়ার ফলে পুষ্টির অভাব দেখা দেয় এতে করে কোমর ব্যথা করে
  • মেয়েরা গর্ভবতী হলে সেই সময়টাতে কোমরের ব্যথা বেশি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়া আরও বিভিন্ন রকম শারীরিক সমস্যার কারণে কোমর ব্যথা হয়ে থাকে। 

কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় - মহিলাদের কোমর ব্যথার কারণ ও প্রতিকার 

কোমর ব্যথার কারণ তো আমরা জানলাম কিন্তু এই কোমর ব্যথা কিভাবে ভালো করতে পারেন সেটা অবশ্যই জানা প্রয়োজন। তাই এখন আমরা জানবো কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায়। এই উপায় গুলো যদি আপনি ভালোভাবে জানতে পারেন তাহলে কিছুটা হলেও কোমর ব্যথা থেকে স্বস্তি পেতে পারেন। তাহলে জেনে নেয়া যাক কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় গুলো।

১। আপনার যদি অনেক সময় ধরে কম্পিউটারের সামনে চেয়ারে বসে কাজ করতে হয় তাহলে ভালোভাবে বসে কাজ করতে হবে যেমন অতিরিক্ত পেছনের দিকে ঝুঁকে বসা যাবে না আবার অতিরিক্ত সামনের দিকে ঝুঁকে বসা যাবে না। যদি চেয়ারে বসে কাজ করতে চান তাহলে একেবারে সোজা হয়ে বসে থাকতে হবে এবং একবারে অধিক সময় ধরে বসে না থেকে কাজের ফাঁকে ফাঁকে উঠে কিছুটা হাটাহাটি করবেন। তাহলে কোমর ব্যাথা ভালো হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।

২। কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় এর ভেতর আরেকটি উপায় হল কোমরে হালকা পরিমাণ করে গরম সেক দিতে হবে। এভাবে যদি প্রতিদিন দুইবার করে হালকা হালকা গরম সেক দিতে পারেন তাহলে কোমর ব্যথা অনেকটা কমে যাবে। 

৩। কোমর ব্যাথা সারানোর জন্য আদা খেতে পারেন কারণ আদার মধ্যে রয়েছে পটাশিয়াম যা কোমর ব্যথার সমস্যা ভালো করতে অনেক উপকারী। যদি নিয়মিত হালকা পরিমাণ করে আদা খেতে পারেন তাহলে খুব সহজেই কোমর ব্যথার সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

আরো পড়ুন: বাতের ব্যথা কমানোর উপায় - বাতের ঔষধের নাম 

৪। কোমর ব্যাথা ভালো করার জন্য নারকেল তেল এবং কর্পূর একসাথে মিশিয়ে হালকা পরিমাণ গরম করে নিবেন এবং একটু ঠান্ডা হলে সেগুলো কোমরের ব্যথার জায়গায় ভালোভাবে মালিশ করবেন তাহলে কোমর ব্যথা ভালো হয়ে যাবে।

৫। সরিষার তেলের সাথে দুই তিন কুয়া রসুন থেঁতলে দিয়ে হালকা পরিমান গরম করে নিবেন। তারপর যখন একটু ঠান্ডা হবে তখন সেগুলো কোমরের ব্যথা জায়গায় ভালোভাবে মালিশ করবেন। এভাবে কয়েকদিন রসুন এবং সরিষার তেল দিয়ে মালিশ করলে কোমর ব্যথা কমে যাবে।

৬। নীলগিরি তেল কোমর ব্যাথা ভালো করতে অনেক কার্যকরী। তাই প্রথমে হালকা পরিমাণ একটু পানি গরম করে নিন এবং তার মধ্যে নীলগিরি তেল ভালোভাবে মিশিয়ে নিন এবং ব্যথার স্থানে ভালোভাবে মালিশ করুন এভাবে কয়েকদিন ব্যবহার করলে কোমর ব্যথা ভালো হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।

৭। অধিক সময় বসে থাকার জন্য কোমর ব্যথা করে তাই কিছুটা সময় বের করে ব্যায়াম করার চেষ্টা করুন অথবা খেলাধুলা করার চেষ্টা করুন তাহলে কোমর ব্যথা ভালো হয়ে যাবে এবং শরীর ও মন দুটোই ভালো থাকবে। 

৮। অনেক সময় ক্যালসিয়ামের অভাবে কোমর ব্যাথা হয়ে থাকে তাই খাবার তালিকায় বেশি বেশি ক্যালসিয়াম যুক্ত খাবার রাখুন। যেমন সবুজ শাকসবজি বিভিন্ন ধরনের বাদাম ডিম দুধ পনির ঘি এছাড়াও আরো যত ক্যালসিয়াম জাতীয় খাবার রয়েছে সবগুলো খাবার খাওয়ার চেষ্টা করবেন।

৯। কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় এর ভেতর আরেকটি উপায় হল এক গ্লাস গরম দুধের মধ্যে হালকা পরিমাণ হলুদ গুঁড়া ভালোভাবে মেশাবেন তারপর সেগুলো পান করবেন। এভাবে যদি কয়েকদিন দুধ এবং হলুদ গুঁড়া একসাথে মিশিয়ে পান করতে পারেন তাহলে কোমর ব্যথা অনেকটা দূর হয়ে যাবে। 

১০। কোমর ব্যথা কমানোর জন্য ভিটামিন সি অনেক ভালো কার্যকরী তাই লেবুর শরবত খেতে পারেন কারণ লেবুর শরবতের মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি। সেজন্য এটা যদি আপনি কয়েকদিন খেতে পারেন তাহলে ভিটামিন সি এর ঘাটতি পূরণ হবে এবং কোমর ব্যথা অনেকটা কমে যাবে।

১১। কোমর ব্যাথা কমানোর জন্য আরেকটি উপায় অবলম্বন করতে পারেন সেটি হল একটি পাতা নিবেন তারপর সেটার মধ্যে যদি ঘি থাকে তাহলে ঘি লাগিয়ে নিবেন তারপরে হালকা পরিমাণ গরম করে নিবেন নিয়ে কোমর ব্যথার জায়গায় ভালোভাবে সেক দিবেন। এই উপায়টা কয়েকদিন অবলম্বন করলে কোমর ব্যথা অনেকটা কমে যাবে। 

১২। বিছানায় শোয়ার পরে যদি কোমর ব্যথা হয়ে থাকে তাহলে পিঠের তলে একটি বালিশ দিতে পারেন। তবে বালিশটা যেন বেশি উঁচু না হয়। এভাবে যদি পিঠের তলে বালিশ দিয়ে শুয়ে থাকেন তাহলে কোমর ব্যথা থেকে অনেকটা স্বস্তি পাবেন।

১৩। অতিরিক্ত পরিশ্রম করার ফলে কোমর ব্যথা হতে থাকে তাই। শুধুমাত্র অতিরিক্ত পরিশ্রম না করে মাঝে মাঝে বিশ্রাম নেয়ার চেষ্টা করুন। যদি মাঝে মাঝে বিশ্রাম নেন তাহলে এই কোমর ব্যথা থেকে কিছুটা হলেও মুক্ত থাকতে পারবেন।

১৪। আমরা অনেকেই জানি অ্যালোভেরার মধ্যে অনেক ঔষধি গুনাগুন রয়েছে। তাই আপনার যদি কোমর ব্যথা হয়ে থাকে তাহলে নিয়ম করে অ্যালোভেরার শরবত তৈরি করে পান করুন তাহলে দেখবেন কোমর ব্যথা অনেকটা ভালো হয়ে গেছে।

১৫। কোমর ব্যাথা থেকে মুক্তি পেতে চাইলে প্রতিদিন শরীর চর্চা করার চেষ্টা করুন। এবং উপরের উপায় গুলো ভালোভাবে মেনে চলার চেষ্টা করুন তারপরও যদি কোমর ব্যথা না কমে তাহলে একজন ভালো চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করে চিকিৎসা গ্রহণ করুন অথবা ঔষধ সেবন করুন। 

কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় ব্যায়াম

কোমরের ব্যথা কমানোর জন্য কিছু ব্যায়াম রয়েছে সেগুলো যদি আপনি করতে পারেন তাহলে কোমর ব্যথা থেকে অনেকটা মুক্তি পেতে পারেন। যারা প্রশ্ন করে থাকেন কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় ব্যায়াম সম্পর্কে তারা জেনে নিন কোমর ব্যাথা কমানোর কয়েকটি ব্যায়াম সম্পর্কে।

  • প্রথম ব্যায়াম করার জন্য প্রথমে সিংহের মত দুই হাঁটু এবং দুই হাত দিয়ে দাঁড়াবেন। তারপরে আপনার পাছাটি আস্তে আস্তে পায়ের গোড়ালের দিকে নিয়ে যাবেন কিছুক্ষণ রাখবেন আবার আস্তে আস্তে উঠে চলে আসবেন এভাবে কয়েকবার করতে থাকবেন।
  • দ্বিতীয় ব্যায়ামের জন্য বিছানায় চিত হয়ে শুয়ে নিবেন তারপরে দুই পা বিছানা থেকে একটু উপরে তুলবেন এবং দুই পা ডানদিকে একবার বাম দিকে একবার করে নিয়ে যাবেন এবং পাঁচ সেকেন্ড করে রাখবেন। তবে দুই পা যেন বিছানায় না থাকে যখন ডানে বামে নিয়ে যাবেন তখন দুই পা বিছানা থেকে উপরে উঠিয়ে থাকবেন।
  • তৃতীয় নাম্বার ব্যায়াম করার জন্য বিছানায় কোন বালিশ ছাড়া উপুড় হয়ে নিবেন তারপরে দুই হাতের কুনুই ভর দিয়ে মাথা কিছুটা উপরের দিকে তুলবেন আর কোমর যেন বিছানায় থাকে। এভাবে আট থেকে দশ সেকেন্ড থাকবেন। একটু পর পর আবার এভাবে করতে থাকবেন।
  • কোমর ব্যথা কমাতে আরেকটি ব্যায়াম করতে পারেন সেজন্য চিত হয়ে শুয়ে নিবেন তারপর দুই পা বিছানায় রেখে হাটু গুলো জড়াবেন। তারপর কোমর বিছানায় রাখবেন এবং পিঠ বিছানায় রাখবেন আর এর মাঝখানে পেট উচু করবেন যাতে করে কোমর এবং পিঠের মাঝ বরাবর ফাকা হয়। এভাবে কয়েকবার ব্যায়াম টা করবেন।

আরো পড়ুন: দাঁতের মাড়িতে ব্যথা হলে করণীয় - দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায়

এইগুলো ব্যায়াম যদি ভালোভাবে করতে পারেন তাহলে কোমর ব্যথা থেকে মুক্তি পাবেন। ব্যায়াম গুলো যদি বুঝতে না পারেন তাহলে সরাসরি দেখে দেখে করতে পারেন। 

কোমরের ব্যথা কমানোর ট্যাবলেট

কোমরের ব্যথা কমানোর ট্যাবলেট এর নাম এবার আপনাদের জানানোর চেষ্টা করবো। কোমর ব্যথা কমানোর জন্য অনেক গুলো ট্যাবলেট রয়েছে সেগুলোর মধ্যে যেসব ট্যাবলেট বেশি উপকারী সেগুলো হলোঃ

  • Napro 500 mg Tablet
  • Duoflam N Tablet
  • Pan 40 Tablet
  • Naspro 500 mg Tablet
  • Sonap 500 mg Tablet
  • Zerodol th 4 tablet
  • Napryn 500 mg Tablet 
  • Naprox 500 mg tablet 
  • Napado Tablet
  • Gabapax Nt 100 tablet
  • Ecless 500 mg Tablet 
  • Xenapro 500 mg tablet 
  • Hi Cobal Tablet
  • Nuprafen 500 mg tablet 
  • Napro A 500 mg Tablet 

এগুলোই হলো কোমরের ব্যথা কমানোর ট্যাবলেট। ব্যথা কমাতে এসব ট্যাবলেট ভালো কার্যকরী কিন্তু অতিরিক্ত ব্যথার ট্যাবলেট সেবন করলে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে তাই চিকিৎসক এর পরামর্শ অনুযায়ী সঠিক নিয়মে এই ট্যাবলেট গুলো খাবেন। 

কোমর ব্যাথা সারানোর ঔষধ

কোমর ব্যথা সারানোর অনেক গুলো ঔষধ রয়েছে তার মধ্যে কয়েকটি কার্যকরি ঔষধের নাম গুলো নিচে দেওয়া হলোঃ

  • Seclo 40
  • Naprosyn
  • ন্যাপক্সেন
  • আইবুপ্রোফেন

এগুলো কোমর ব্যথা সারানোর ঔষধ তবে আপনার ব্যথার ধরণ অনুযায়ী ঔষধ ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে তাই চিকিৎসক এর পরামর্শ ছাড়া কোনো ঔষধ সেবন করবেননা।

কোমর ব্যথা কমানোর ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট

অনেক সময় ক্যালসিয়ামের অভাবের কারণে কোমর ব্যথা হয়ে থাকে তাই যদি আপনি মনে করেন যে ক্যালসিয়ামের অভাবের কারণে কোমর ব্যথা হচ্ছে তাহলে কোমর ব্যথা কমানোর ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেতে পারেন। 

আরো পড়ুন: মাথা ব্যথা হলে করণীয় - মাথা ব্যথা কোন রোগের লক্ষণ 

কোমর ব্যথা কমানোর দুটি ভালো মানের ক্যালসিয়ামটা বের হয়েছে সেগুলো হলোঃ Cavic C Plus এবং Coralcal D ক্যালসিয়াম বৃদ্ধি করার জন্য এই দুটি ট্যাবলেট অনেক ভালো কার্যকরী তারপরেও চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া যে কোন ট্যাবলেট বা ঔষধ সেবন করা থেকে বিরত থাকবেন। 

কোমরের ব্যথা কমানোর মলম

কোমরের ব্যথা কমানোর মলম ব্যবহার করে একেবারে কোমর ব্যাথা ভালো করতে পারবেন না হয়তো কিছু সময়ের জন্য একটু আরাম লাগবে। বাজারে কোমরের ব্যথা কমানোর অনেক মলম পাওয়া যায় তার মধ্যে সব থেকে ভালো এবং কার্যকর একটি মলম হলো Moov (মুভ) এই মলমটি যেকোনো ব্যাথা স্থানে লাগালে সাথে সাথে ব্যথা থেকে অনেকটা স্বস্তি পাওয়া যায়। তাই আপনি যদি কোমরে ব্যথা থাকে তাহলে এই মলমটি ব্যবহার করতে পারেন।  

কোমরের ব্যথা কমানোর হোমিওপ্যাথি ওষুধ

অনেকে ইন্টারনেটে সার্চ করে থাকেন কোমরের ব্যথা কমানোর হোমিওপ্যাথি ওষুধ এর নাম। আসলে অতিরিক্ত ব্যথার ঔষধ সেবন করা কখনো ঠিক নয় তারপরেও যদি কমানোর ব্যথা কমানোর ঔষধ সেবন করতে চান তাহলে নিচে দেওয়া এই কয়েকটি ঔষধ সেবন করতে পারেন। কিন্তু সেবন করার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। কোমরের ব্যথা কমানোর হোমিওপ্যাথি ওষুধ গুলোর নাম হলোঃ

  • Ruta Grave
  • Rhus Tox
  • Causticum
  • Arnica Mont
  • Natrum Mur
  • Bryonia Alb

আমাদের শেষ কথা 

প্রিয় বন্ধুরা আশা করছি আজকের আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা কোমর ব্যাথা সারানোর সহজ উপায় কোমরের ব্যথা কমানোর ট্যাবলেট এর নাম সহ এ সম্পর্কিত আরো বিভিন্ন রকম বিষয়ে ভালোভাবে জানতে পেরেছেন। 

আজকের এই পোস্টে যেগুলো ঔষধের নাম বলা হয়েছে সেগুলো ঔষধ সেবন করার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের থেকে পরামর্শ গ্রহণ করবেন। এখানে আমরা শুধু আপনাদের জানানোর জন্য ঔষধের নাম দিয়ে থাকি তাই কখনো এগুলো ঔষধ নিজ থেকে কিনে খাবেন না। 

আর আমাদের আর্টিকেলটি আপনাদের কেমন লেগেছে তা কমেন্টের মাধ্যমে জানিয়ে দিতে পারেন অথবা এ বিষয়ে যদি আরো কিছু জানার থাকে তাহলে সেটা কমেন্ট বক্সে জানিয়ে দিতে পারেন। তো সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন আজকের মত এখানেই শেষ করছি ধন্যবাদ। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন