অর্গাজম মানে কি - অর্গাজম এর লক্ষণ

অর্গাজম মানে কি এই প্রশ্নটা একজন প্রাপ্তবয়স্ক নারী এবং পুরুষের মধ্যে সচরাচর আসে। তাই আজকে আপনাদের জানাবো অর্গাজম মানে কি এবং অর্গাজম এর লক্ষণ গুলো। আপনি যদি আজকের আর্টিকেলের নিচের অংশগুলো পড়েন তাহলে অর্গাজম মানে কি এই বিষয় সহ এই সম্পর্কিত আরো বেশ কিছু বিষয় জানতে পারবেন।
অর্গাজম মানে কি

তাই অর্গাজম মানে কি অর্গাজম এর লক্ষণ অর্গাজম না হলে কি হয় মেয়েদের অর্গাজম না হওয়ার কারণ অর্গাজম না হলে করনীয় এই বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে নিচের অংশগুলো মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ুন। 

পোষ্ট সূচিপত্র: অর্গাজম মানে কি - অর্গাজম এর লক্ষণ

অর্গাজম মানে কি

অর্গাজম মানে কি এই বিষয়ে অনেক ছেলে মেয়ে জানতে চেয়ে থাকে। অর্গাজম মানে হলো মেয়েদের বীর্যপাত হওয়া। একজন ছেলে এবং মেয়ে যখন সহবাস করে তখন এক পর্যায়ে গিয়ে যখন পরিপূর্ণ তৃপ্তি পায় তখন মেয়েদের অর্গাজম হয়ে থাকে।

আরো পড়ুন: মিলনের সময় নারীর করণীয় - মিলনের পর করণীয়

সহবাস করার সময় যখন একজন পুরুষ পরিপূর্ণ ভাবে সহবাসের চাহিদা পূরণ করতে পারে তখন বীর্যপাত হয়ে যায় তেমনি একজন মহিলা যখন সহবাসে পরিপূর্ণ তৃপ্তি পায় তখনই বীর্যপাত হয়ে যায়। সেটাকেই বলা হয় অর্গাজম। 

মেয়েদের অর্গাজম বলতে কি বুঝায় - মেয়েদের অর্গাজম হওয়ার কারণ

মেয়েদের অর্গাজম বলতে কি বুঝায় এবং মেয়েদের অর্গাজম হওয়ার কারণ কি এই নিয়ে অনেকেই জানতে চেয়ে থাকেন। এগুলো যেহুতু সেনসিটিভ কথা সেজন্য কাউকে বলা যায় না। তাই ইন্টারনেট একমাত্র মাধ্যম এগুলো বিষয়ে জানার জন্য।  মেয়েদের অর্গাজম বলতে কি বুঝায়? মেয়েদের অর্গাজম বলতে বুঝায় সহবাসের সময় এক মুহুর্তে গিয়ে বীর্যপাত হওয়া। নারীদের এই বীর্যপাত হওয়াকেই অর্গাজম বলে।

মেয়েদের অর্গাজম হওয়ার বেশ কিছু কারণ রয়েছে যেমন একটি পুরুষ যখন একটি নারীর যৌনিপথে লিঙ্গ প্রবেশ করাই এবং সহবাসে লিপ্ত থাকে তখন সেই নারী চরম তৃপ্তি পেতে থাকে আর তখনই সেই মেয়ের অর্গাজম হয়ে যায়। এছাড়াও কোনো মেয়ে যদি তার যৌনিপথে কোনো লম্বা বস্তু প্রবেশ করাই তখনও চরম তৃপ্তি অনুভব করে আর সেই সময় অর্গাজম হয়ে যায়। এগুলোই মূলত মেয়েদের অর্গাজম হওয়ার কারণ। 

অর্গাজম এর লক্ষণ

অনেক সময় অর্গাজম হলে বুঝা যায় না। সেজন্য অনেকের ভিতর একটা প্রশ্ন থাকে অর্গাজম এর লক্ষণ গুলো জানার। কোনো মহিলার যদি অর্গাজম হয় তাহলে তাদের মধ্যে এই লক্ষণ গুলো দেখা দিয়ে থাকে যেমন: 

  • সারা শরীরে কাঁপুনি ধরবে
  • জোরে জোরে করতে বলবে
  • তৃপ্তিতে চোখ বন্ধ থাকবে। সম্পূর্ণ চোখ খুলতে পারবেনা।
  • সঙ্গীকে শক্ত করে জড়িয়ে ধরবে
  • নিশ্বাস অনেক জোরে জোরে ফেলতে থাকবে
  • মাথা খালি হয়ে যাবে।
  • হঠাৎ করে যৌনিরসের পরিমাণ বেড়ে যাবে এবং যৌনি ভিজে যাবে 
  • পুরুষ সঙ্গীর গলায় বা কানে কামড় দিতে পারে
  • হার্টবিট বেড়ে যাবে বুকে কান লাগালেই বুঝা যাবে
  • পুরুষ সঙ্গীর লিঙ্গে গরম অনুভূতি হবে।
  • হঠাৎ করে শরীর কেপে উঠবে এবং শরীর নেতিয়ে পড়বে।
  • পাশে অথবা বুকের ওপর নিথর হয়ে সুয়ে থাকবে
  • মনের ভিতর শান্তি অনুভব করবে সেজন্য মুখে হাসি থাকতে পারে।

সহবাসের সময় যদি এইগুলো লক্ষণ কোনো মহিলার মধ্যে দেখা যায় তাহলে বুঝতে হবে অর্গাজম হতে চলছে এবং অর্গাজম হয়েছে। একটা মেয়ের অর্গাজম হলেই পরিপূর্ণ তৃপ্তি পায়। এবং তাদের যে চাহিদা থাকে সেটা পূরণ হয়। 

অর্গাজম না হলে কি হয়

অর্গাজম না হলে কি হয় এটা নিয়ে অনেকেরই জানার আগ্রহ থাকে কারণ অনেক মেয়েদের ঠিকমতো অর্গাজম হয় না। যদি কোনো মেয়ের ঠিক মতো অর্গাজম না হয় তাহলে আস্তে আস্তে সহবাসের আগ্রহ কমে যাবে। 

আরো পড়ুন: যোনিতে চুলকানি হলে দূর করার ১১ টি ঘরোয়া উপায় - যোনিতে চুলকানি দূর করার ক্রিমের নাম

এবং সহবাস করার সময় অর্গাজম না হলে পরিপূর্ণ তৃপ্তি পাবে না। যদি অর্গাজম হয় তাহলে ভিতরে একটা মানসিক শান্তি কাজ করবে কিন্তু অর্গাজম না হওয়ার কারণে ভিতরে মানসিক শান্তি পাবে না এতে করে কোনো কাজে মন বসবে না। 

মেয়েদের অর্গাজম না হওয়ার কারণ - মেয়েদের অর্গাজম না হওয়ার কারণ কি

মেয়েদের অর্গাজম না হওয়ার বেশ কিছু কারণ রয়েছে। যেগুলো কারণে ঠিকমতো অর্গাজম হয়না।  আসুন জেনে নেওয়া যাক মেয়েদের অর্গাজম না হওয়ার কারণ কি?

  • যৌন রোগ
  • হরমোন জনিত সমস্যার কারণে 
  • যৌনি বেশি শুষ্কতা থাকার কারণে 
  • অস্ত্রো পাচারের কারণে 
  • অতিরিক্ত উদ্বেগ বা ভয়ের কারণে 
  • মাসনিক দুশ্চিন্তার কারণে 
  • সঙ্গীর সাথে সম্পর্ক নিয়ে সমস্যা থাকলে
  • যৌনতা সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা থাকার কারণে 
  • পুরুষ সঙ্গী পরিপূর্ণ তৃপ্তি দিতে না পারলে

এই সকল কারণে একটা মেয়ের অর্গাজম হয়না। এইগুলো কারণ যদি না থাকে তাহলে অর্গাজম হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। 

অর্গাজম না হলে করনীয়

অর্গাজম না হলে করণীয় কি এই বিষয়ে অনেকে জানতে চেয়ে থাকেন। অর্গাজম কেন হয়না তা তো জানতে পারলেন কিন্তু অর্গাজম না হলে করনীয় কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে তাহলেই অর্গাজম হবে। অর্গাজম না হলে করনীয় কি জেনে নিন। 

১। সঙ্গীকে সবসময় খুশি রাখার চেষ্টা করুন যাতে করে তার মেজাজ ফুরফুরে থাকে।

২। স্ত্রীর উত্তেজিত হয় এইরকম জায়গা গুলোতে আদর করুন যখন বেশি উত্তেজিত হয়ে যাবে তখন শুরু করুন।

৩। স্ত্রীকে আগেই বলে রাখুন আজ কোন সময় হবে। তাহলে সে আগে থেকে প্রস্তুত হয়ে থাকবে। আর আপনি সঙ্গীর জন্য ফুল অথবা অন্য কোনো গিফট দিন। এতে করে স্ত্রী খুশি থাকবে এবং নিজেকে উজার করে দিতে চাইবে।

আরো পড়ুন: অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ ও নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি  

৪।  সহবাসের সময় অনেক মেয়ের যৌনি শুষ্ক থাকে সেজন্য কিছু লুব্রিকেট ব্যবহার করুন। তাহলে যৌনি পিচ্ছিল হবে তখন অর্গাজম হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।

৫। যদি পুরুষ সঙ্গীর দ্রুত বীর্যপাত হয়ে যায় তাহলে দ্রুত বীর্যপাত হওয়া বন্ধ করতে চিকিৎসা গ্রহণ করুন। তাহলে পুরুষের বীর্য বেশি সময় আটকে থাকলে নারীর অর্গাজম হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

৬। সহবাসের সময় যখন সঙ্গীর যৌনি পথ যখন ভিজে যাবে তখন আপনার বীর্যপাত ধরে রাখুন। এবং স্ত্রীর অনুমতি নিয়ে আঙ্গুলে লুব্রিকেট নিন এবং যৌনিতে লাগিয়ে আস্তে আস্তে লিঙ্গ পরিচালনা করুন। প্রথমে আস্তে আস্তে করুন এবং গতি বাড়াতে থাকুন।

অর্গাজম মানে কি - অর্গাজম এর লক্ষণ: শেষ কথা 

আশা করছি আজকের পোস্ট থেকে আপনারা ভালোভাবে জানতে পারলেন অর্গাজম মানে কি  অর্গাজম এর লক্ষণ অর্গাজম না হলে করনীয় কি এই সকল বিষয়ে। এগুলো বিষয়ে জানতে পেরে আপনাদের কেমন লেগেছে তা কমেন্ট করে জানাতে পারেন। 

এবং এই বিষয়ে আরো কিছু জানার থাকলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। এবং এই রকম আরো বিষয়ে জানতে আমাদের  JONOPRIYO BLOG ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করুন ধন্যবাদ। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন