অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ ও নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি

আপনি কি অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ ও নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি এই সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য। অনেক সময় অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যায় তাই জেনে রাখা প্রয়োজন অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ সম্পর্কে। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ।
অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ ও নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি

অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ নিয়মিত মাসিক না হলে কি সমস্যা হয় নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি এ সকল বিষয়ে বিস্তারিত জানার জন্য পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

সূচিপত্র: অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ ও নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি

অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ 

মাসিক এটা প্রতিটা মেয়ের কাছে স্বাভাবিক একটি বিষয় এবং এটা প্রতিটা মেয়ের প্রতি মাসের শেষে অথবা মাসের শুরুতে মাসিক হয়ে থাকে। একটা মেয়ে যখন বয়সন্ধিকালে পা রাখে তখন থেকে এই মাসিক হওয়া শুরু হয়। আর প্রতিমাসে এই মাসিকের স্থায়িত্ব ৩, ৫, ৭ দিন হয়ে থাকে। যদি এমনটি হয় তাহলে এটা নিয়ে চিন্তার কোন কারণ নেই কিন্তু অনেক সময় অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যায়। এই মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়ার পেছনে কিছু কারণ রয়েছে আর এই অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ গুলো হলো: 

  • ডিম্বাশয়ের ত্রুটি বা অপরিপক্কতা
  • হরমোন জনিত সমস্যা
  • হঠাৎ ওজন বৃদ্ধি বা কমে যাওয়া
  • অতিরিক্ত মানসিক চাপ
  • অতিরিক্ত ব্যায়াম করা
  • স্থূলতা
  • শরীরে চর্বি জমে যাওয়া
  • থাইরয়েড সমস্যা

ডিম্বাশয়ের ত্রুটি বা অপরিপক্কতা -  প্রজেস্টেরন এবং ইস্ট্রোজেন হরমোনের এর মধ্যে তারতম্য দেখা দিলে এই কারণে কম বয়সি অনেক মেয়েদের ডিম্বাশয় অপরিপক্ক থাকে বা ডিম্বাশয় ত্রুটিদেখা দেয় আর এই কারণে অনেক সময় অবিবাহিত কম বয়সী মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যায়। 

আরো পড়ুন: চিরতরে খুশকি দূর হওয়ার ১২ টি উপায় - খুশকি দূর করার শ্যাম্পু

হরমোন জনিত সমস্যা -  শরীরে যদি হরমোন ঠিকঠাক থাকে তখন কোন রকম সমস্যা হয় না কিন্তু যদি হরমোনের তারতম্য দেখা দেয় তখন সেই কারণে অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যায়। তাই অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়ার আরেকটি লক্ষণীয় কারণ হলো হরমোন জনিত সমস্যা। 

হঠাৎ ওজন বৃদ্ধি বা কমে যাওয়া - কম বয়সি অনেক মেয়েদের হঠাৎ করে ওজন অনেকটা বৃদ্ধি পায় আবার কমে যায় আর এই হঠাৎ করে ওজন বৃদ্ধি বা এবং কমে যাওয়ার কারনে অনেক মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যায়। তাই আপনার শরীরের ওজনের দিকে সব সময় খেয়াল রাখবেন। 

অতিরিক্ত মানসিক চাপ -  একটি গবেষণায় দেখা গেছে অতিরিক্ত মানসিক চাপ হঠাৎ মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়ার অন্যতম একটি কারণ। আপনি যদি কোন বিষয় নিয়ে অতিরিক্ত মানসিক চাপের মধ্যে থাকেন তাহলে সেই কারণে মাসিক বন্ধ হয়ে যেতে পারে। 

অতিরিক্ত ব্যায়াম করা - শরীর সুস্থ রাখার জন্য অবশ্যই ব্যায়াম করা প্রয়োজন কিন্তু অতিরিক্ত ব্যায়াম করার কারণে অনেক মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তাই আপনার যদি ব্যায়াম করার অভ্যাস থাকে তাহলে অতিরিক্ত ব্যায়াম করবেন না। 

স্থূলতা -  অবিবাহিত মেয়েদের হঠাৎ মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়ার একটি অন্যতম কারণ হলো স্থূলতা একটি অবিবাহিত মেয়ের মধ্যে যখন স্থূলতা বৃদ্ধি পাবে তখন সেই কারণে হঠাৎ করে মাসিক বন্ধ হয়ে যেতে পারে। 

শরীরে চর্বি জমে যাওয়া - অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ এর ভেতর আরেকটি অন্যতম কারণ হলো শরীরে চর্বি জমে যাওয়া। অনেক অবিবাহিত মেয়ে রয়েছে যারা বেশি বেশি চর্বি জাতীয় খাবার খায় সেই কারণে শরীরে চর্বি জমে যায় আর শরীরের চর্বি জমে গেলে হঠাৎ করে মাসিক বন্ধ হয়ে যায়। 

থাইরয়েড সমস্যা - একটা মেয়ের পুরো শরীরের হরমোন কন্ট্রোল করে থাইরয়েড আর যখন থাইরয়েড এর সমস্যা দেখা দেয় তখন এই কারণে বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে। তাই থাইরয়েডের সমস্যার কারণে অনেক সময় হঠাৎ করে অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যায়।  

নিয়মিত মাসিক না হলে কি সমস্যা হয়

কোন মহিলার যদি নিয়মিত মাসিক না হয় তাহলে বিভিন্ন রকম সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। অনেকে জানতে চেয়ে থাকেন নিয়মিত মাসিক না হলে কি সমস্যা হয়। নিয়মিত মাসিক না হলে যেগুলো সমস্যা হয় সেগুলো হলো:  নিয়মিত মাসিক না হলে বিপাকের সমস্যা বৃদ্ধি পায় আর সেই কারণে কার্ডিওভাসকুলার রোগের সমস্যা বাড়তে থাকে।  

আরো পড়ুন: শুক্রাণু তৈরি হতে কতদিন সময় লাগে - ইসলামে শুক্রাণু বৃদ্ধি উপায় 

নিয়মিত মাসিক না হওয়ার কারণে সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা অনেকটা কমে যায়। নিয়মিত মাসিক না হলে মানসিক চাপ অতিরিক্ত বেড়ে যায়,  এছাড়াও নিয়মিত মাসিক না হওয়ার কারণে আরো বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা দেয় তাই আপনার যদি মাসিক অনিয়মিত হয়ে থাকে তাহলে আপনি একজন গাইনি ডাক্তারের সাথে কথা বলে দেখতে পারেন এবং চিকিৎসা গ্রহণ করতে পারেন তাহলে এই অনিয়মিত মাসিকের সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে এবং নিয়মিত মাসিক হবে।  

নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি

প্রিয় বন্ধুরা উপরের অংশে আপনারা জানতে পেরেছেন অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ সম্পর্কে কিন্তু নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি এ বিষয়ে অনেকে জানতে চান। একজন মহিলা গর্ভধারণ করার জন্য নিয়মিত মাসিক হওয়াটা জরুরী।তাই আপনার যদি নিয়মিত মাসিক না হয় তাহলে নিচের অংশে বলে দেওয়া কাজগুলো করতে পারেন তাহলে ইনশাআল্লাহ নিয়মিত মাসিক হবে।আর এগুলো আপনি ঘরে বসেই করতে পারবেন।

বেশি বেশি পানি পান - আপনার যদি নিয়মিত মাসিক না হয় তাহলে বেশি বেশি পানি পান করবেন কারণ অনেকের অভ্যাস রয়েছে পানি কম খাওয়ার সেই কারণে অনেক সময় মাসিক নিয়মিত হতে চায় না তাই নিয়মিত মাসিক না হলে বেশি বেশি পানি পান করবেন ইনশাআল্লাহ নিয়মিত মাসিক হবে। 

ওজন কমানো -  আপনার যদি অতিরিক্ত ওজন থাকে তাহলে এটা নিয়মিত মাসিক হওয়ার ব্যাঘাত ঘটাতে পারে তাই আপনার যদি ওজন অনেক বেশি হয়ে থাকে তাহলে ওজন কমানোর চেষ্টা করবেন তাহলে দেখবেন নিয়মিত মাসিক হবে।

কাঁচা হলুদ - নিয়মিত মাসিক হওয়ার জন্য কাঁচা হলুদ অনেক উপকারী কারণ কাঁচা হলুদ শরীরের হরমোন ব্যালেন্স ঠিক রাখতে সাহায্য করে। যদি আপনার নিয়মিত মাসিক না হয় তাহলে এক কাপ দুধের মধ্যে হালকা পরিমান কাঁচা হলুদ দিয়ে এবং সেই সাথে মধু দিয়ে কয়েকদিন খাবেন তাহলে দেখবেন নিয়মিত মাসিক হতে শুরু করবে।

আদা -- নিয়মিত মাসিক হওয়ার জন্য আদা অনেক উপকারী আপনার যদি নিয়মিত মাসিক না হয় তাহলে নিয়মিত মাসিক হওয়ার জন্য প্রথমে একটু আদা কুচি কুচি করে কেটে নেবেন এবং সেগুলো পানির মধ্যে দিয়ে সেই পানি গরম করে নিবেন গরম করে নেওয়ার পরে যখন কুসুম কুসুম গরম থাকবে তখনখাবার খাওয়ার পর পরই সেগুলো আদা দিয়ে গরম করা পানি এবং তার মধ্যে হালকা পরিমাণ মধু দিয়ে খাবেন তাহলে দেখবেন নিয়মিত মাসিক হতে শুরু করবে। 

আরো পড়ুন: মেয়েদের দ্রুত ওজন কমানোর ১২ উপায় - মেয়েদের ওজন কমানোর ডায়েট চার্ট

অ্যালোভেরা - ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরা অনেক উপকারী আবার এই অ্যালোভেরা অনিয়মিত মাসিকের সমস্যা দূর করতে অনেক কার্যকরী। আপনার যদি নিয়মিত মাসিক না হয় তাহলে প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে অ্যালোভেরা মধ্যে থাকা সাদা অংশগুলো খাবেন তাহলে দেখবেন খুব তাড়াতাড়ি ভালো ফলাফল পাচ্ছেন। 

কাঁচা পেঁপে - নিয়মিত মাসিক হওয়ার জন্য অথবা আরও বিভিন্ন রকম সমস্যার জন্য কাঁচা পেঁপে অনেক উপকারী। আপনার  যদি নিয়মিত মাসিক না হয় তাহলে কয়েকদিন কাঁচা পেতে অথবা কাঁচা পেপের রস খাবেন তাহলে দেখবেন নিয়মিত মাসিক হতে শুরু করছে। কিন্তু মাসিক চলাকালীন সময়ে কাঁচা পেঁপে খাবেন না। 

জিরা - ঘুমাতে যাওয়ার আগে দুই চামচ পরিমাণ জিরা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন এবং সকালবেলা সেই জিরা ভেজানো পানি কয়েক দিন নিয়ম মেনে খান তাহলে দেখবেন অনিয়মিত মাসিকের সমস্যা দূর হয়ে গেছে এবং নিয়মিত মাসিক হতে শুরু করেছে। 

ফলমূল এবং ফলের জুস - যদি নিয়মিত মাসিক না হয় তাহলে সেই সময় বেশি বেশি পুষ্টিকর ফলমূল খাওয়ার চেষ্টা করুন অথবা পারলে ফলের জুস খাওয়ার চেষ্টা করুন এগুলো যদি আপনি খেতে পারেন তাহলে নিয়মিত মাসিক হবে ইনশাআল্লাহ।

আয়রন বৃদ্ধি -  শরীরে যখন আয়রনের ঘাটতি দেখা দেয় তখন সেই কারণে নিয়মিত মাসিক হওয়া বন্ধ হয়ে যায়। তাই শরীরে আয়রন বৃদ্ধি করতে চাইলে  আইরন সমৃদ্ধ খাবার বেশি বেশি খাওয়ার প্রয়োজন। আইরন সমৃদ্ধ খাবারগুলো হলো মুরগির মাংস, গরুর মাংস, ডিম, চিংড়ি মাছ, লাল শাক, কচু শাক,  পালং শাক, মিষ্টি আলু,  ফুলকপি, খেজুর, টমেটো ইত্যাদি।  

মাসিক হওয়ার দোয়া বাংলায়

বর্তমানে অনেক মেয়েদের নিয়মিত মাসিক হচ্ছে না তো সেজন্য তারা অনেক চিন্তিত হয়ে পড়ছে তাই আপনার যদি নিয়মিত মাসিক না হয় তাহলে  উপরের অংশে বলে দেওয়া নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কাজগুলো করার চেষ্টা করবেন তাহলে ইনশাআল্লাহ নিয়মিত মাসিক হবে।  আর যদি মাসিক হওয়ার দোয়া বাংলায় জানতে চান তাহলে নিচের অংশ পড়ুন।

নিয়মিত মাসিক হওয়ার জন্য তিনটি দোয়া পড়তে পারেন এবং এই দোয়াগুলো পাঠ করার আগে আপনাকে পবিত্র হয়ে নিতে হবে নিয়মিত মাসিক হওয়ার জন্য যে দোয়া গুলো পাঠ করবেন সেগুলো হলো:  

১। বাংলা উচ্চারণ: ওয়ামা মুহাম্মাদুন ইল্লা রাছুলুন কাদ খালাত মিন কাবলিহির রুছুলু আফাইম্মা তা আও কুতিলানকালাবতুম আলাআকা বিকুম।

২। বাংলা উচ্চারণ: সুম্মুম বুকমুন উমইয়ুন ফাহুম লা ইয়ারজি উন।

৩। বাংলা উচ্চারণ: লা হা ইল্লাআনতা ছুবহা নাকা ইন্নী কুনতু মিনাজ্জালিমীন।

যাদের নিয়মিত মাসির হয়না তারা এই তিনটি দোয়া পাঠ করতে পারেন এবং এই দোয়া গুলো পাঠ করে পানিতে ফুক দিয়ে সেই পানি পান করতে পারেন তাহলে আল্লাহর রহমতে ইনশাআল্লাহ মাসিক নিয়মিত হবে।

টক খেলে কি মাসিক তাড়াতাড়ি হয়

অনেক মেয়েদের মাসিক বন্ধ হয়ে যায় তাই তারা অনেক চিন্তার মধ্যে পড়ে যায় আসলে একটা মেয়ের জন্য মাসিক নিয়মিত হওয়াটা খুবই জরুরি। অনেকে জানতে চান টক খেলে কি মাসিক তাড়াতাড়ি হয় তাদের বলতে চাই হ্যা টক খেলে মাসিক কিছুটা তারাতাড়ি হয় তবে টক কোনো খাবার এর সাথে অতিরিক্ত লবণ দেওয়া যাবে না। লবণ ছাড়া টক খেলে এটা মাসিক তাড়াতাড়ি এবং ক্লিয়ার হতে কিছুটা সাহায্য করে। 

মাসিক সম্পর্কিত প্রায়শই জিজ্ঞাসিত কিছু প্রশ্ন ও উত্তর | FAQs

প্রশ্ন: পিরিয়ডের আগে টক খেতে চাই কেন?

উত্তর: পিরিয়ডের আগে অনেক মেয়েদের টক খেতে ইচ্ছে করে পিরিয়ডের আগে টক খেতে ইচ্ছে করার কারণ হলো ইস্ট্রোজেন ও প্রোজেস্টেরণ এর পরিবর্তন। 

প্রশ্ন: মাসিকের সময় তেঁতুল খেলে কি হয়?

উত্তর: তেঁতুলের মধ্যে রয়েছে আয়রন সেজন্য মাসিকের সময় পরিমাণ মতো তেতুল খেলে আয়রণ বৃদ্ধি পায়।

প্রশ্ন: মেয়েদের পিরিয়ড কখন হয়?

উত্তর: মেয়েদের বয়স যখন ১২ থেকে ১৫ বছর হয় তখন থেকে মাসিক হওয়া শুরু হয় তবে অনেক মেয়েদের শারীরিক গঠন এর কারণে বয়স এর তারতম্য হতে পারে। এক কথায় অনেক মেয়েদের কম বয়সে হয় আবার অনেক মেয়েদের একটু বেশি বয়স হলে মাসিক হয়।

প্রশ্ন: মাসিক হওয়ার কতদিন পর সহবাস করা যায়? 

উত্তর: মাসিক শেষ হওয়ার পরেই সহবাস করা যায় অর্থ্যাৎ যেদিন মাসিক শেষ হয়ে যাবে তার পরের দিন থেকেই সহবাস করতে পারবেন আর মাসিক শেষ হওয়ার ১০ দিন সহবাস করলে সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে তারপরেও সেই সময় সহবাস করলে কন*ডম ব্যবহার করবেন। 

প্রশ্ন: মেয়েদের পিরিয়ড কত দিন থাকে?

উত্তর: বিভিন্ন মেয়েদের পিরিয়ড এর স্থায়িত্ব কাল বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে যেমন ৩ থেকে ৭ দিন পযন্ত পিরিয়ড থাকে। কিন্তু এর থেকে বেশি সময় যদি কারো থাকে তাহলে এটা অনেক চিন্তার বিষয়। তাই আপনার যদি এমনটি হয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন।

প্রশ্ন: পিরিয়ডের লক্ষণ কি?

উত্তর: পিরিয়ডের লক্ষণ গুলো হলো: মাথা ব্যাথা, পেশি ব্যথা, ব্রণ, বদহজম, কান্তি,  পেটের সমস্যা, স্তনের সমস্যা ইত্যাদি। 

অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ ও নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি: শেষ কথা

বন্ধুরা আজকের পোস্টে আপনারা জানতে পারলেন অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ ও নিয়মিত মাসিক না হলে করনীয় কি এই সম্পর্কে।  আশা করছি আজকের পোস্টটি আপনাদের উপকারে আসবে। তারপরেও এই বিষয়ে আরো কিছু জানতে চাইলে আমাদের কমেন্ট করতে পারেন। আর এরকম আরো তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ফলো করুন। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন