যোনিতে চুলকানি হলে দূর করার ১১ টি ঘরোয়া উপায় - যোনিতে চুলকানি দূর করার ক্রিমের নাম

আমাদের দেশে অনেক মেয়ে রয়েছে যাদের যোনিতে চুলকানি হয়ে থাকে এবং সেটা তারা লজ্জার কারণে কাউকে বলতে পারেনা। তাই যারা যোনিতে চুলকানি হলে কাউকে বলতে পারেন না তাদের জন্য আজকের আর্টিকেলটি। আজকে আমরা জানবো যোনিতে চুলকানি হলে দূর করার ১১ টি ঘরোয়া উপায়। এগুলো উপায় অবলম্বন করে ঘরে বসেই যোনিতে হওয়া চুলকানি ভালো করতে পারবেন।
যোনিতে চুলকানি হলে দূর করার ১১ টি ঘরোয়া উপায়

যোনিতে চুলকানি হয় কেন, যোনিতে চুলকানি হলে দূর করার ১১ টি ঘরোয়া উপায়, যোনিতে চুলকানি দূর করার ক্রিমের নাম, যোনিতে চুলকানি হলে ঔষধ এর নাম জানতে পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ে ফেলুন।

সূচিপত্রঃ যোনিতে চুলকানি হলে ঘরোয়া উপায় - যোনিতে চুলকানি দূর করার ক্রিমের নাম

যোনিতে চুলকানি হয় কেন

বিভিন্ন কারণে যোনিতে চুলকানি হয়ে থাকে। আর যোনিতে চুলকানি হলে এটা অনেক অস্বস্তিকর লাগে। বিভিন্ন রকম সংক্রমণের কারণে যোনিতে চুলকানি হতে পারে। অনেকেই জানতে চেয়ে থাকেন যোনিতে চুলকানি হয় কেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক যোনিতে চুলকানি হওয়ার কারণ গুলো কি কি? যোনিতে চুলকানি হওয়ার বেশ কিছু কারণ রয়েছে সেগুলো হলো।

  • হরমোনের পরিবর্তন
  • অতিরিক্ত মানসিক চাপ
  • যৌন সংক্রমণ 
  • ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস
  • মেনোপজ 
  • যোনি খামির বা ইস্ট সংক্রমণ
  • ডার্মাটাইটিস বা রাসায়নিক উত্তেজক
  • শুষ্ক ত্বক বা ত্বকের অবস্থা
  • সে*ক্সুয়ালি ইনফেকশন

যোনিতে চুলকানি হলে ঘরোয়া উপায়  

যোনিতে চুলকানি হয় কেন তা ইতোমধ্যে আপনারা জানতে পারলেন। এবার আলোচনা করব যোনিতে চুলকানি হলে দূর করার ১১ টি ঘরোয়া উপায়। যেগুলো উপায় অবলম্বন করে যোনিতে চুলকানি ভালো করতে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক যোনিতে চুলকানি হলে দূর করার ১১ টি ঘরোয়া উপায় গুলো।

১। টক দই - ছোট আকারের একটি পট্টি তৈরি করে নিবেন এবং সেটা দইয়ের মধ্যে কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রাখবেন ডুবিয়ে রাখার পরে সেটা তুলে নিয়ে সেই পট্টিটা যোনিতে লাগাবেন। ১৫ থেকে ২০ মিনিট রাখার পরে তুলে ফেলবেন এবং পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিবেন। এটা যোনি চুলকানি ভালো করার জন্য অনেক কার্যকরী একটি উপায়।

২। আপেল সিডার ভিনেগার - একটি ছোট পাত্রের মধ্যে হালকা পরিমাণ পানি নিয়ে সেগুলো কুসুম গরম করে নিবেন এবং তারপরে সেই পানির মধ্যে ২ চামচ পরিমাণ আপেল সিডার ভিনেগার ভালোভাবে মিশিয়ে নিবেন। অতঃপর সেই পানিগুলো দিয়ে ভালোভাবে যোনি পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলবেন তাহলে যোনি চুলকানি দূর হয়ে যাবে।

৩। অ্যালোভেরা - যাদের বাড়ির আশেপাশে বা বাড়িতে এলোভেরা গাছ রয়েছে তারা প্রথমে এলোভেরা গাছের থেকে এলোভেরা কেটে আনবেন তারপরে সেখান থেকে অ্যালোভেরার সাদা অংশ গুলো বের করে নিবেন নেওয়ার পরে সেগুলো হালকা পরিমাণ করে যোনিতে লাগাবেন। তাহলে দেখবেন যোনি চুলকানি অনেকটা কমে গেছে। 

৪। বরফ বা ঠান্ডা পানি - যোনি চুলকানি দূর করার জন্য বরফ অথবা বরফ গলানো ঠান্ডা পানির সেক নিতে পারেন। এটা তৎক্ষণাৎ যোনি চুলকানি দূর করার জন্য অনেক বেশি কার্যকরী হয়ে থাকে। 

৫। চা গাছের তেল ব্যবহার - টি ট্রি অয়েল ব্যবহার করার ফলে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়া ও অ্যান্টিফাঙ্গাল প্রশমিত হয়ে চুলকানি দূর করে। তাই যোনি চুলকানি দূর করতে টি ট্রি অয়েল অর্থ্যাৎ চা গাছের তেল ব্যবহার করতে পারেন। তবে বেশি পরিমাণ ব্যবহার করবেন না তাহলে যোনিতে জ্বালা করতে পারে।

৬। নিরাপদ যৌন স্বাস্থ্য - অনেক সময় অনিরাপদ যৌন মিলনের কারণে যোনিতে ইনফেকশন তৈরি হয়ে যোনি চুলকানি হয়ে থাকে তাই সবসময় নিরাপদ যৌন মিলন করতে হবে। 

আরো পড়ুনঃ মিলনের সময় নারীর করণীয় - মিলনের পর করণীয় 

৭। মধু ও টক দই - দই বার্নিং ও ইচিং দূর করতে বেশ কার্যকরি। আর মধু ও দই একসাথে মিশিয়ে যোনিতে ব্যবহার করলে এটা যোনি চুলকানি দূর করতে ভালো কাজ করবে। কারণ দই ও মধুর মধ্যে ইনফ্লেমাটরি রয়েছে। দিনে এই উপাদান একবার ব্যবহার করলে যোনি চুলকানি দূর হবে। দিনে দুইবার ব্যবহার করলে আরো তাড়াতাড়ি যোনি চুলকানি থেকে মুক্তি মিলবে। 

৮। বেকিং সোডার ব্যবহার - গোসলের পানিতে হালকা পরিমাণ বেকিং সোডা মিশিয়ে সেই পানির মধ্যে যোনি ১০ -১৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। তাহলে এটা যোনি চুলকানি প্রশমিত করবে।

৯। হাইড্রেটেড থাকা - অনেক সময় শরীরে শুষ্কতা দেখা দেয় আর শরীর শুষ্কতার কারণে যোনি চুলকানি হয়ে থাকে। তাই বেশি বেশি পানি পান করুন শুষ্কতা কমে গেলে যোনি চুলকানি কমে যাবে।

১০। লবণ জলের ব্যবহার - গোসলের পানির মধ্যে হালকা পরিমাণ লবণ মেশাবেন সেই লবণ পানির মধ্যে ২০ মিনিট যোনি ভিজিয়ে রাখবেন। এতে করে যোনিতে আক্রমণ করা ব্যাকটেরিয়া মারা যাবে এবং যোনি চুলকানি ভালো হয়ে যাবে। 

১১। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা - যোনিতে চুলকানি হলে দূর করার ১১ টি ঘরোয়া উপায় এর মধ্যে সর্বশেষ উপায়টি হলো স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলাফেরা করা যেমন অতিরিক্ত টাইট পোশাক না পরা। সূতির ঢিলেঢালা পোশাক পরা, বিভিন্ন রকম সুগন্ধি যুক্ত পণ্য যোনিতে ব্যবহার না করা।  সবসময় যোনি পরিষ্কার রাখা। আশা করা যায় এগুলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে যোনি চুলকানি হবেনা বা থাকবেনা। এগুলো উপায় ব্যবহার করার পরে যদি কাজ না হয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন। 

যোনিতে চুলকানি দূর করার ক্রিমের নাম - জরায়ু চুলকানি দূর করার ক্রিম

অনেক মেয়ে রয়েছে যাদের যোনিতে চুলকানি হলে কাউকে বলতে পারেনা। এবং ডাক্তারের কাছে গিয়ে বলতে লজ্জাবোধ করে। তাই তাদের জন্য এখন আমরা যোনিতে চুলকানি দূর করার ক্রিমের নাম বলবো। যোনি চুলকানি দূর করার বেশ কিছু ক্রিম রয়েছে সেগুলো হলো।

1. Hydrocortisone Cream : এই ক্রিমটি ডার্মাটাইটিস, চুলকানি, এলার্জি ভালো করার জন্য বেশ কার্যকরি। তবে এই ক্রিম ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ব্যবহার করা উচিত নয়। এই ক্রিম ব্যবহার করার আগে ভালো করে হাত ধুয়ে এবং চুলকানির স্থান ধুয়ে পরিষ্কার করে চুলকানির স্থানে ব্যবহার করবেন।  ভালো ফলাফল পেতে দিনে ৩ থেকে ৪ বার ব্যবহার করবেন।

2. Clobestasol Cream : এই ক্রিম চুলকানি, জ্বালাপোড়া, ফোলাভাব নিরাময় করতে বেশ করতে কার্যকরি। এটা ক্রিম হিসেবে ডাক্তারের দোকানে পেয়ে যাবেন। তবে  এই ক্রিম ব্যবহারের আগে অবশ্যই চিকিৎসক এর পরামর্শ নিবেন। ভালো ফলাফল পেতে দিনে ২ থেকে ৩ বার চুলকানির জায়গায় লাগাবেন।

আরো পড়ুনঃ ই ক্যাপ 400 এর দাম কত - ই ক্যাপ 400 এর ১১ টি উপকারিতা

3. Pevisone Cream : ছত্রাকের আক্রমণের কারণে যোনি চুলকানি হয়ে থাকে। আর এই ক্রিম ছত্রাক ধ্বংস করে বেশ কার্যকরী। তাই এলার্জি জনির কারণে চুলকানি ত্বকের ফোলা ভাব সহ বিভিন্ন কারণে হওয়া চুলকানি ভালো করে। চুলকানি ভালো করতে পেভিসন ক্রিমটি দিনে দুইবার ব্যবহার করবেন। অথবা চিকিৎসক এর পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবহার করবেন।

4. Metronidazole Vaginal Gel : যোনি চুলকানি দূর করার জন্য Metronidazole Vaginal Gel বেশ কার্যকরি। এটা শুধুমাত্র যোনিতে ব্যবহারের জন্য তাই ত্বকের অন্য কোথাও ব্যবহার করবেননা। এই জেল ব্যবহার করার আগে ভালো করে হাত পরিষ্কার করে নিয়ে হালকা পরিমাণ জেল আঙ্গুলে নিয়ে যোনিতে লাগাতে হবে। অথবা চিকিৎসক এর পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবহার করবেন। 

যোনিতে চুলকানি হলে ঔষধ 

যোনিতে চুলকানি নারীদের সবচেয়ে বেশি কষ্ট দিয়ে থাকে। কারণ এটা একটি সেনসিটিভ জায়গা। তবে যোনিতে চুলকানি হলে ঔষধ রয়েছে সেই ঔষধ গুলো সেবন করলে যোনি চুলকানি ভালো হতে পারে। যোনিতে চুলকানি হলে যেসব ঔষধ সেবন করবেন সেগুলোর নাম হলোঃ

  • loratadine
  • Fexofenadine
  • Ketoconazole
  • Fluconazole
  • Miconazole
  • Tioconazole
  • Clotrimazole

এই ঔষধ গুলো ছত্রাকের আক্রমণ এবং এন্টিফাংগাল প্রতিরোধ করে যোনি চুলকানি ভালো করে। তাই ভালো ফলাফল পেতে এই ঔষধ গুলো ৩ থেকে ৫ দিন খাবেন। অথবা চিকিৎসক এর পরামর্শ অনুযায়ী সেবন করবেন।

ক্লোট্রিমাজোল ক্রিম এর দাম কত

ক্লোট্রিমাজোল ক্রিম ঘা, চুলকানি, ছাত্রাকের আক্রমণ, যোনিতে চুলকানি নিরাময় করার জন্য ব্যবহার করা হয়। ক্লোট্রিমাজোল ক্রিম এর দাম হলো ছোটটা ৩৫ টাকা এবং বড়টার দাম ৬০ টাকা। তবে বিভিন্ন জায়গায় কিছুটা কম বেশি হতে পারে।

যোনিতে চুলকানি হলে ঘরোয়া উপায় - যোনিতে চুলকানি দূর করার ক্রিমের নাম: শেষ কথা 

প্রিয় বন্ধুরা আশা করছি আপনারা আজকের আর্টিকেল থেকে যোনিতে চুলকানি হলে দূর করার ১১ টি ঘরোয়া উপায় এবং যোনিতে চুলকানি দূর করার ক্রিমের নাম সহ এই সম্পর্কিত অনেক কিছু বিষয়ে জানতে পেরেছেন। আশা করছি আপনারা যদি এই ঘরোয়া উপায় গুলো অবলম্বন করতে পারেন তাহলে আপনাদের যোনিতে চুলকানি ভালো হয়ে যাবে।

আরো পড়ুনঃ তাড়াতাড়ি মাসিক হওয়ার ঘরোয়া উপায় - একদিনে মাসিক হওয়ার ঘরোয়া উপায় 

আশা করছি আমাদের আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা কিছুটা হলে উপকৃত হয়েছেন। তাই আমাদের আর্টিকেলটি আপনাদের কেমন লাগলো তা কমেন্টের মাধ্যমে আমাদের জানাতে পারেন এবং এই বিষয়ে যদি আরো কিছু জানার থাকে তাহলে সেটা আমাদের কমেন্ট করে জানিয়ে দিতে পারেন।এরকম আরো বিভিন্ন রকম বিষয়ে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ফলো করতে পারেন। ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন