নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা

আপনি কি নিমপাতার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। আজকে আপনাদের জানাবো নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে। আপনি যদি নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জেনে রাখেন তাহলে এতে করে অনেক উপকৃত হবে এবং বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করতে পারবেন। তাহলে চলুন এই বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।
নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা

নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা নিম পাতা খাওয়ার নিয়ম নিম পাতার ক্ষতিকর দিক কি কি রয়েছে এ সকল বিষয়ে বিস্তারিত জানার জন্য পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ে ফেলুন।

পেজ সূচিপত্রঃ নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা 

নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা: ভূমিকা 

নিম গাছ ও পাতা আমাদের সকলের বাড়ির আশেপাশে হয়ে থাকে এই নিম পাতার বহু গুণ রয়েছে এবং প্রাচীনকাল থেকে আমরা এই নিম পাতা বিভিন্ন রোগবালাই এর ঔষধ হিসেবে ব্যবহার করে আসছি। আর যে কোন ডাক্তারি ঔষধের থেকে নিম পাতার মতো এসব ভেষজি ঔষধ বেশি কার্যকরী এবং নিরাপদ হয়ে থাকে।

আবার শুধুমাত্র নিম পাতার যে উপকারিতা রয়েছে এমনটি নয় নিমের ফলের নিম পাতার গাছের ছালের ও অনেক উপকারিতা রয়েছে। আবার একটি গবেষণায় দেখা গেছে বাড়ির আশেপাশে যদি নিমের গাছ থাকে তাহলে সেখানে রোগ বালাই কম হয়। তাহলে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন নিম পাতার কত উপকারিতা রয়েছে। 

আরো পড়ুন: আখের রসের ১২ টি উপকারিতা - আখের রসের উপকারিতা

যাই হোক নিচের অংশে আপনাদের জানাবো নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে। তাই আপনি যদি নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে এবং নিম পাতার ব্যবহার সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জানতে চান তাহলে নিচের অংশগুলো মনোযোগ সহকারে পড়ুন আশা করছি উপকারে আসবে। 

নিম পাতার উপকারিতা 

নিম পাতার অনেক উপকারিতা রয়েছে তার মধ্যে আজকে আপনাদের এই অংশে নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা সম্পর্কে কিছুটা তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করব। নিম পাতার এসব ঔষধি গুণের কথা যদি জানতে পারেন তাহলে অবাক হবেন। তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা সম্পর্কে।

  1. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে
  2. ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে 
  3. এলার্জি ভালো করে
  4. চর্মরোগ প্রতিরোধ করে
  5. ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে 
  6. উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে
  7. চুলের সমস্যা দূর করে
  8. রক্ত পরিষ্কার করে
  9. ক্যান্সার প্রতিরোধ করে
  10. হজম শক্তি বৃদ্ধি করে
  11. পোকামাকড় তাড়াতে
  12. দৃষ্টি শক্তি বৃদ্ধিতে
  13. হার্ট ভালো রাখে
  14. ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া দূর করে
  15. লিভার সুস্থ রাখে
  16. কুষ্ঠ রোগ ভালো করে
  17. কৃমি দূর করে
  18. ব্যথা উপশম করে

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে - রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করার জন্য নিমপাতা অনেক উপকারী নিমপাতা ব্যবহার করার মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পারেন। নিয়মিত নিম পাতার ব্যবহারে শরীরের রোগ বালাই কম হবে।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে - ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে নিম পাতা অনেক উপকারী কারণ নিম পাতা রক্তের সুগারের পরিমাণ কমাতে অনেক ভালো কার্যকরী। তাই যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে তাদের জন্য নিম পাতার ব্যবহার অত্যন্ত উপকারী হবে। 

এলার্জি ভালো করে - অনেকের এলার্জির সমস্যা রয়েছে আর এই এলার্জির সমস্যা দূর করার জন্য নিম পাতা অনেক কার্যকরী। যাদের অ্যালার্জি সমস্যা রয়েছে এলার্জি সমস্যা দেখা দিলে নিমপাতা ব্যবহার করবেন এলার্জি ভাল হয়ে যাবে। 

চর্মরোগ প্রতিরোধ করে - চর্ম রোগ ভালো করতে নিমপাতা কতটা উপকারী তা হয়তো আপনারা অনেকেই জানেন। নিম পাতার মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন রকম পুষ্টি উপাদান যা চর্মরোগ ভালো করতে বেশ কার্যকরী। তাই যাদের চর্মরোগ রয়েছে তারা নিম পাতার মাধ্যমে চর্মরোগ ভালো করতে পারেন। 

ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে - ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে নিম পাতা ব্যবহার করতে পারেন নিম পাতা ব্যবহার করলে মুখের বিভিন্ন রকম সমস্যা দূর হয়ে যাবে যেমন ব্রণের সমস্যা, মুখের কালো দাগ সহ আরও বিভিন্ন রকম সমস্যা দূর করে মুখের ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করবে। 

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে - অনেকের উচ্চ রক্তচাপের মত সমস্যা রয়েছে আর এই উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে নিমপাতা বেশ উপকারী। নিয়মিত নিম পাতা ব্যবহার করার ফলে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। 

আরো পড়ুন: ছোলার ১২ টি উপকারিতা ও অপকারিতা - কাঁচা ছোলা খাওয়ার নিয়ম 

চুলের সমস্যা দূর করে - চুলের সমস্যা প্রতিরোধ করার জন্য নিমপাতা অনেক বেশি উপকারী চুলের যত্নে যেমন চুল পড়া প্রতিরোধ করতে এবং চুলের মধ্যে যদি উকুন হয় তাহলে সেই উকুন মারতে পারবেন নিম পাতা দিয়ে। প্রথমে নিমপাতা পিষে নিবেন তারপরে ভালোভাবে মাথার চুলের মধ্যে লাগাবেন দেখবেন উকুন মারা গেছে। নিমপাতা চুলের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে। 

রক্ত পরিষ্কার করে - নিম পাতার আরেকটি উপকারিতা হলো রক্ত পরিষ্কার করে। আপনি যদি নিম পাতার রস খেতে পারেন অথবা নিম পাতা ভেজে খেতে পারেন তাহলে এটা আপনার রক্ত পরিষ্কার করবে। এবং রক্তে যেগুলো সমস্যা রয়েছে সব সমস্যা দূর হয়ে যাবে তাই রক্ত পরিষ্কার রাখতে চাইলে পরিমাণ মতো নিম পাতা খাবেন। 

ক্যান্সার প্রতিরোধ করে - ক্যান্সার একটি ভয়াবহ রোগের নাম যার কারণে মানুষের হতে পারে মৃত্যু। আর এই ক্যান্সার প্রতিরোধ করার জন্য নিমপাতা বেশ কার্যকরী। যদি নিয়মিত নিম পাতা অথবা নিম পাতার রস খেতে পারেন তাহলে ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি থাকবে না এবং হয়ে থাকলেও সেটা অনেকটা কমানো যাবে। 

হজম শক্তি বৃদ্ধি করে - হজম শক্তি বৃদ্ধি করার জন্য নিম পাতা অনেক উপকারী। নিয়মিত নিম পাতার রস পরিমাণ মত খেতে পারলে এটা হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে ভালো কাজ করে। তাই হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে চাইলে নিমপাতা খেতে পারেন। 

পোকামাকড় তাড়াতে - বাড়ির আশেপাশে অনেক সময় বিভিন্ন রকম পোকামাকড়ের উপদ্রব বেড়ে যায় সেজন্য সেই সকল পোকামাকড় তাড়াতে বা উপদ্রব কমাতে নিম পাতা শুকিয়ে সেগুলো পোড়াতে পারেন অথবা নিম পাতার স্প্রে তৈরি করে ছিটালে পোকামাকড় এর উপদ্রব কমে যাবে। 

দৃষ্টি শক্তি বৃদ্ধিতে - নিয়মিত নিমপাতা ব্যবহারের ফলে নিম পাতার রস খাওয়ার ফলে দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি পেতে পারে। আবার নিম পাতা ব্যবহারের ফলে দাঁতের সমস্যা সমাধান করা যায় দাঁত মজবুত থাকে। তাই দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করতে এবং দাঁত মজবুত রাখতে নিম পাতা ব্যবহার করবেন। 

হার্ট ভালো রাখে - নিম পাতা হার্ট ভালো রাখার জন্য বেশ কার্যকরী। নিয়মিত যদি নিম পাতার রস তৈরি করে খেতে পারেন তাহলে এটা হার্টের জন্য অনেক উপকারী হবে। তাই হার্ট ভালো রাখতে নিম পাতার রস তৈরি করে খেতে পারেন। 

ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া দূর করে - আমাদের শরীরে যখন বিভিন্ন ভাইরাস এবং ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ করে তখন বিভিন্ন রকম রোগ বালাই হয়ে থাকে। তাই ভাইরাস এবং ব্যাকটেরিয়া দূর করে এই সকল রোগ বালাই থেকে মুক্ত থাকতে চাইলে নিমপাতা ব্যবহার করবেন। 

লিভার সুস্থ রাখে - একজন মানুষের সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য লিভার সুস্থ থাকা খুবই প্রয়োজন। আর এই লিভার সুস্থ রাখতে পারে নিম পাতার ব্যবহার। যদি কিছুদিন পর পরে নিম পাতার রস তৈরি করে খেতে পারেন অথবা নিম পাতা হালকা পরিমাণ তেল দিয়ে ভেজে খেতে পারেন তাহলে লিভার সুস্থ থাকবে। 

গুগল নিউজে আমাদের ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপরে ফলো করুন 

কুষ্ঠ রোগ ভালো করে - বর্তমানে কুষ্ঠ রোগের সংখ্যা এবং রোগীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। সে জন্যই কুষ্ঠ রোগ ভালো করার জন্য নিম পাতা অনেক বেশি কার্যকরী। নিম পাতার ব্যবহারের মাধ্যমে কুষ্ঠ রোগ ভালো করতে পারবেন। 

কৃমি দূর করে - অনেক সময় আমাদের পেটের মধ্যে কৃমি হয়ে থাকে তখন পেটের মধ্যে অনেক সমস্যা সৃষ্টি হয়। কৃমি দূর করার জন্য অনেকে ওষুধ খেয়ে থাকে বা অনেকে বিভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহার করেন। কিন্তু ওষুধ না খেয়ে আপনি যদি নিমপাতার রস তৈরি করে খেতে পারেন তাহলে দেখবেন কৃমি দূর হয়ে গেছে। 

ব্যথা উপশম করে - ব্যথা উপশম বা ভালো করার জন্য নিম পাতা অনেক বেশি কার্যকরী। আপনার শরীরের কোথাও যদি ব্যথা হয়ে থাকে তাহলে সেখানে নিমপাতা পিষে লাগিয়ে রাখবেন অথবা হালকা গরম তেলের মধ্যে নিমপাতা দিয়ে সেই তেল ব্যথার স্থানে লাগাবেন। অথবা নিমপাতা পানির মধ্যে দিয়ে হালকা পানি গরম করে গোসল করতে পারেন তাহলে শরীরের বিভিন্ন ব্যথা দূর হয়ে যাবে। 

নিম পাতার ব্যবহার - নিম পাতা খাওয়ার নিয়ম 

নিম পাতার এত উপকারিতা সম্পর্কে জানলেন কিন্তু এই নিম পাতার ব্যবহার ও নিম পাতা খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে অবশ্যই জানতে হবে কারণ। নিয়ম না জেনে নিম পাতা খাওয়া বা ব্যবহার করা দুটোই আপনার জন্য উপকারের চেয়ে ক্ষতিকর হতে পারে বেশি। চলুন নিমপাতা ব্যবহার বা খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

  • নিম পাতার রস: নিম পাতা খাওয়ার বা ব্যবহার করার নিয়ম হলো নিম পাতার রস তৈরি করে নিবেন প্রথমে তারপরে সেটা পরিষ্কার করে ছেঁকে নিবেন তারপরে সেই নিম পাতার রস পান করবেন।
  • নিমপাতা ভেজানো পানি: নিমপাতা ব্যবহারের জন্য প্রথমে একটি পাত্রের মধ্যে পানি নিবেন তারপরে সে পানির মধ্যে নিম পাতা ভিজিয়ে রাখবেন অর্থাৎ ডুবিয়ে রাখবেন তারপরে সেই নিম পাতার পানি বিভিন্ন জায়গায় ব্যবহার করতে পারেন তাহলে ভালো উপকারিতা পাবেন।
  • নিম পাতার পেস্ট: নিমপাতা ব্যবহারের আরেকটি নিয়ম হলো নিম পাতার পেস্ট তৈরি করে নিবেন তারপরে যেখানে সমস্যা রয়েছে সেখানে সে নিম পাতার পেস্ট লাগাবেন তাহলে দেখবেন অনেক ভালো উপকারিতা পাবেন খুব তাড়াতাড়ি
  • নিম পাতার তেল: চুলের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য নিম পাতার তেল তৈরি করতে পারেন এবং সেগুলো চুলে লাগাতে পারেন তাহলে দেখবেন এটা আপনার চুলের জন্য অনেক ভালো কাজ করবে।
  • নিম পাতার পাউডার: নিম পাতা ব্যবহারের আরেকটি নিয়ম হলো নিম পাতা শুকিয়ে সেগুলো পিষে গুড়ো করে বা পাউডার তৈরি করে নিবেন এবং সেগুলো বিভিন্ন সমস্যা সমাধান করার জন্য ব্যবহার করবেন। 

নিম পাতার অপকারিতা - নিম পাতার ক্ষতিকর দিক

আজকের আর্টিকেলের মূল আলোচ্য বিষয় ছিলো নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে। ইতিমধ্যে আমরা জানতে পেরেছি নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা। কিন্তু শুধু উপকারিতা জানলেই হবে না কারণ উপকারিতার পাশাপাশি নিম পাতার ক্ষতিকর দিক রয়েছে। জেনে রাখুন নিম পাতার অপকারিতা বা নিম পাতার ক্ষতিকর দিক গুলো সম্পর্কে।

  • নিয়মিত টানা এক মাসের বেশি নিমপাতা খাওয়ার ফলে পেটের মধ্যে বিভিন্ন রকম সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।
  • অতিরিক্ত নিম পাতা খাওয়ার ফলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা বৃদ্ধি পেতে পারে।
  • অতিরিক্ত নিম পাতা সেবনের ফলে অনেক সময় মেয়েদের বন্ধ্যাত্ব হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
  • গর্ভবতী মহিলাদের জন্য নিম পাতা অনেক ক্ষতিকর গর্ভাবস্থায় নিমপাতা খাওয়ার ফলে গর্ভপাত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
  • নিয়মিত এবং অতিরিক্ত পরিমাণ নিম পাতা খাওয়ার ফলে এলার্জির সমস্যা বৃদ্ধি পেতে পারে তাই কখনো অতিরিক্ত পরিমাণ নিমপাতা সেবন করবেন না।
  • ছোট বাচ্চাদের জন্য নিম পাতা বা নিমপাতা তেল ব্যবহারে সতর্ক হতে হবে কারণ ছোট বাচ্চাদের নিম পাতার তেল যদি খাওয়ানো হয় তাহলে তাদের বিভিন্ন রকম সমস্যা হতে পারে যেমন ডায়রিয়া, বমি, খিচুনি সহ বিভিন্ন সমস্যা। 
  • অতিরিক্ত নিম পাতা ব্যবহার উপকারের চেয়ে অপকারই বেশি তাই কখনোই অতিরিক্ত পরিমাণ নিমপাতা ব্যবহার করবেন না বা খাবেন না। 

এলার্জিতে নিম পাতার ব্যবহার

আপনার যদি এলার্জির সমস্যা থাকে তাহলে নিম পাতার মাধ্যমে সেটা ভালো করতে পারেন। এলার্জিতে নিমপাতা ব্যবহার করার জন্য প্রথমে পরিষ্কার পানি নিবেন এবং সেই পানির মধ্যে নিম পাতা দিয়ে চুলায় দিয়ে জ্বাল করবেন জ্বাল করার পরে সে পানি যখন হালকা কুসুম কুসুম গরম থাকবে অথবা ঠান্ডা করে নিবেন নেওয়ার পরে সেই পানি দিয়ে গোসল করবেন এভাবে যদি কয়েকদিন নিম পাতার পানি দিয়ে গোসল করতে পারেন তাহলে এলার্জি ভালো হয়ে যাবে। আশা করছি জানতে পারলেন এলার্জিতে নিম পাতার ব্যবহার সম্পর্কে। 

ব্রণের জন্য নিম পাতার ব্যবহার

উপরের অংশে নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে কিন্তু অনেকে জানতে চেয়ে থাকেন ব্রণের জন্য নিম পাতার ব্যবহার কোন নিয়ম সম্পর্কে। তাই এখন আপনাদের এই অংশে জানাবো ব্রণের জন্য নিম পাতার ব্যবহার সম্পর্কে।

আরো পড়ুন: গ্রিন টি এর ১০ টি উপকারিতা ও অপকারিতা - আসল গ্রিন টি চেনার উপায়

ব্রণ ভালো করার জন্য প্রথমে কয়েকটি নিমপাতা নিয়ে সেগুলো পিষে নিবেন তারপরে হালকা পরিমাণ কাঁচা দুধের মধ্যে নিম পাতা এবং হলুদ গুঁড়ো দিবেন দেওয়ার পরে পেস্ট তৈরি করে নিবেন নেওয়ার পরে মুখে লাগাবেন। এভাবে কয়েকদিন যদি ব্রণের উপর নিম পাতার পেস্ট তৈরি করে লাগাতে পারেন তাহলে ব্রণ ভালো হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ। 

চর্মরোগে নিম পাতার ব্যবহার

নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা জানার পরে এবার আসুন জেনে নেওয়া যাক চর্মরোগে নিম পাতার ব্যবহার সম্পর্কে আপনারা হয়তো ইতিমধ্যে জানতে পেরেছেন চর্মরোগ ভালো করার জন্য নিম পাতা অনেক উপকারী। কিন্তু চর্মরোগ ভালো করার জন্য নিম পাতার ব্যবহার জানতে হবে।

চর্মরোগ ভালো করার জন্য প্রথমে পানির মধ্যে নিমপাতা দিয়ে সে পানি গরম করে নিবেন এবং সেই পানি দিয়ে চর্ম রোগের স্থানগুলো ভালোভাবে ধুয়ে নিবেন ধুয়ে নেওয়ার পরে নিম পাতার পেস্ট তৈরি করবেন করার পরে সেই নিম পাতার পেস্ট চর্ম রোগের উপর লাগাবেন তাহলে ইনশাআল্লাহ চর্ম রোগ ভালো হয়ে যাবে। আর নিম পাতা পানিতে মিশিয়ে সেই পানি দিয়ে গোসল করতে পারেন তাহলে শরীরের বিভিন্ন রকম রোগ জীবাণু দূর হয়ে যাবে। 

খালি পেটে নিম পাতার রস খেলে কি হয়

খালি পেটে নিম পাতার রস খেতে পারেন তবে সেটা হতে হবে হালকা পরিমাণ এবং নিয়মিত খাওয়া যাবে না। খালি পেটে নিম পাতার রস খেলে যেসব উপকারিতা এবং অপকারিতা হবে তা জেনে নিন।

  • খালি পেটে যদি অনেকদিন পর পর হালকা পরিমাণ নিম পাতার রস খান তাহলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে তবে বেশি পরিমাণ খাওয়ার ফলে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
  • খালি পেটে নিম পাতার রস খাওয়ার ফলে শরীর থেকে টক্সিন বের হয়ে যায় যা আমাদের জন্য অনেক উপকারী। তবে একনাগাড়ে অতিরিক্ত পরিমাণ খাওয়া যাবে না।
  • হালকা পরিমাণ নিম পাতার রস খালি পেটে খেলে এটা গ্যাস্ট্রিকের সমস্যার সমাধান করতে সাহায্য করে।
  • খালি পেটে নিম পাতার রস খেলে এটা কৃমির সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।
  • হালকা পরিমাণ এবং কিছুদিন পর পর খালি পেটে নিম পাতার রস খেলে এটা রক্ত পরিষ্কার রাখে।
  • রক্তের মধ্যে থাকা বিভিন্ন রকম ক্ষতিকর উপাদান দূর করতে সাহায্য করে।
  • বিভিন্ন রকম রোগ জীবাণু এবং ব্যাকটেরিয়া দূর করে। 

নিম পাতার ছবি

বন্ধুরা আপনারা যারা নিম পাতার ছবি খুজে থাকেন তারা এই অংশ থেকে নিম পাতার ছবি দেখে নিতে পারেন। আপনাদের জন্য এই অংশে কিছু নিম পাতার ছবি দিয়ে দিলাম। দেখে নিন নিম পাতার ছবিগুলো। 
নিম পাতার ছবি
ছবি কালেক্ট: greendna.in

নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা: শেষ কথা  

প্রিয় বন্ধুরা আশা করছি আজকের আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা নিম পাতার ১৮ টি উপকারিতা ও অপকারিতা নিম পাতা খাওয়ার নিয়ম নিম পাতার ব্যবহার নিম পাতার ক্ষতিকর দিক সহ নিমপাতা সম্পর্কিত অনেক কিছু বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে জানতে পেরেছেন। আশা করছি আজকের আর্টিকেলটি পড়ে আপনার উপকৃত হয়েছেন। 

আজকের আর্টিকেলটি পড়ার পরে যদি এই বিষয়ে আরো কিছু জানার থাকে তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন এবং এরকম আরো তথ্যমূলক আর্টিকেল পড়তে আমাদের JONOPRIYO BLOG ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করতে পারেন।এতক্ষণ আমাদের সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন