৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ - জান্নাতের দরজার নাম

আসসালামু আলাইকুম আপনি কি ৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ এবং জান্নাতের দরজার নাম জানতে চান তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য। আজকের আর্টিকেলে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হবে ৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ এবং এই সম্পর্কিত আরো কিছু বিষয়ে। তাহলে চলুন বিস্তারিতভাবে জেনে নেওয়া যাক ৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ এবং জান্নাত সম্পর্কে আরো কিছু তথ্য।
৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ

৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ জান্নাতের দরজার নাম জান্নাতের সবচেয়ে বড় দরজার নাম কি জান্নাতের হুরদের নাম এই সকল বিষয়ে আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে তাই আপনি যদি সকল বিষয়ে ভালোভাবে জানতে চান তাহলে মনোযোগ সহকারে পুরো আর্টিকেলটি পড়ে ফেলুন।

পেজ সূচিপত্রঃ ৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ - জান্নাতের দরজার নাম 

৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ - ৮ টি জান্নাতের নাম কি কি 

আপনারা হয়তো জানেন যে জান্নাত ৮ টি কিন্তু ৮ টি জান্নাতের নাম কি কি তা হয়তো জানেন না। সেজন্য এখন আপনাদের এই অংশে ৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ জানাবো। আপনি যদি দুনিয়াতে ভালো কাজ করে যান তাহলে মৃত্যুর পরে আপনার ঠিকানা হবে জান্নাত। আর এই ৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ জেনে রাখুন।

১. জান্নাতুল ফিরদাউস অর্থ জান্নাতের সর্বোচ্চ বাগান

২. দারুল মাকাম অর্থ বাড়ি

৩. দারুস সালাম অর্থ শান্তির নীড়

৪. দারুল কারার অর্থ আখেরাতের আলয়

আরো পড়ুনঃ যাকাত কাকে বলে - বর্তমানে কত টাকা থাকলে যাকাত ফরজ হয়

৫. জান্নাতুল মাওয়া অর্থ বসবাসের জান্নাত

৬. দারুল খুলদ অর্থ চিরস্থায়ী বাগান

৭. জান্নাতুল আদন অর্থ অনন্ত সুখের বাগান

৮. জান্নাতুল নাঈম অর্থ নেয়ামতপূর্ণ কানন বা বাগান

৮ টি জান্নাতের নাম আরবি - ৮ টি বেহেশতের নাম

৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ বাংলা জানতে পেরেছেন এবার আপনাদের জানাবো ৮ টি জান্নাতের নাম আরবি দিয়ে। যারা ৮ টি জান্নাতের নাম আরবি খুঁজে থাকেন তারা এই অংশ থেকে জেনে নিতে পারেন। তাহলে জেনে রাখুন ৮ টি জান্নাতের নাম আরবিতে।

  1. جاناتول فردوس - জান্নাতুল ফিরদাউস
  2. دار المقام -  দারুল মাকাম 
  3. تحيات - দারুস সালাম
  4. دار الكرار - দারুল কারার
  5. جناتول ماوا - জান্নাতুল মাওয়া
  6. دار الخلد - দারুল খুলদ
  7. جنة العدان - জান্নাতুল আদন
  8. جنة النعيم - জান্নাতুল নাঈম

জান্নাতের দরজার নাম

৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ জানতে পারলেন এবার আমরা জানবো জান্নাতের দরজার নাম গুলো। জান্নাতের যেমন বিভিন্ন রকম নাম রয়েছে তেমনি জান্নাতের দরজার নাম বিভিন্ন রকম রয়েছে। জান্নাত যেহেতু ৮ টি সেজন্য জান্নাতের দরজার নামও ৮ টি। জান্নাতের ৮ টি দরজার নাম গুলো হলো।

১। বাবুস সালাহ অর্থ নামাজিদের দরজা। যারা নিয়মিত একানিষ্ঠতার সঙ্গে নামাজ আদায় করে তাদের জন্য এই দরজা। 

২। বাবুস রাইয়ান অর্থ রোজাদারদের দরজা যারা রোজার সময় সকল রোজা পালন করে এবং আল্লাহর সকল আদেশ নিষেধ মেনে চলে তাদের জন্য এই দরজা। 

৩। বাবুল ইমান অর্থ ইমানের দরজা। যারা দুনিয়াতে ঈমান নিয়ে মৃত্যুবরণ করবে তাদের জন্য এই দরজা।

৪। বাবুল জিহাদ অর্থ আল্লাহর পথে জিহাদকারীদের রাস্তা। যারা আল্লাহর পথে জিহাদ করবে তাদের জন্য এই দরজা তৈরি করা হয়েছে। 

আরো পড়ুনঃ আরবি মাসের নাম - আরবি ১২ মাসের নাম ও আমল

৫। বাবুস সাদাকাহ অর্থ দান সদকা কারীদের দরজা। যারা দুনিয়াতে বেঁচে থাকা অবস্থায় গরীব অসহায় মানুষদের দান ছদকা করবে তাদের জন্য এই দরজা। 

৬। বাবুল হজ অর্থ হজকারীদের দরজা। যাদের হজ করার মত সমর্থ্য রয়েছে তারা যদি হজ করে তাহলে জান্নাতে তাদের জন্য এই দরজা খোলা থাকবে। 

৭। বাবুত তওবা অর্থ তওবাকারীদের দরজা। দুনিয়াতে যারা কোন পাপ কাজ করার পরে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইবে এবং তওবা করবে তাদের জন্য জান্নাতের এই দরজা। 

৮। বাবুর রাযিয়িন অর্থ সন্তুষ্টকারীর দরজা। যারা আল্লাহর দেওয়া নিয়ামত পেয়ে সন্তুষ্ট থাকবে এবং কোন কিছুর প্রতি অতিরিক্ত লোভ থাকবে না তাদের জন্য এই দরজা।  আশা করছি জান্নাতের জান্নাতের দরজার নাম গুলো ভালোভাবে জানতে পারলেন। 

জান্নাতের সবচেয়ে বড় দরজার নাম কি 

আপনারা জানতে পেরেছেন ৮ টি জান্নাতের নাম এবং জান্নাতের দরজার নাম ৮ টি জান্নাতের মধ্যে সবচেয়ে বড় জান্নাত হলো জান্নাতুল ফিরদাউস এবং ৮ টি জান্নাতের দরজার মধ্যে সবচেয়ে বড় দরজা হলো বাবুস রাইয়ান। যারা দুনিয়াতে থাকা অবস্থায় রোজা পালন করবে তাদের জন্য এই দরজা দিয়ে ঢোকার ব্যবস্থা থাকবে। অন্য কেউ এই দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না। 

সর্বশ্রেষ্ঠ জান্নাতের নাম কি 

জান্নাত হলো আটটি এই আটটি জান্নাতের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ জান্নাতের নাম হলো জান্নাতুল ফিরদাউস।যারা দুনিয়াতে থাকা অবস্থায় আল্লাহর সকল ইবাদত পালন করবে এবং নবী রাসূলের দেখানো পথে চলবে আদেশ-নিষেধ মেনে চলবে মৃত্যুর পরে তাদেরকে এই জান্নাতে স্থান দেওয়া হবে। আল্লাহ যেন আমাদের সবাইকে জান্নাতুল ফেরদাউসে যাওয়ার তৌফিক দান করেন। 

জান্নাতের বাগানের নাম

জান্নাতের বাগানের নাম কি তা আপনারা অনেকেই জানেন না। দুনিয়াতে একটা জান্নাতি বাগান রয়েছে। রিয়াজুল জান্নাত কে জান্নাতের বাগান বলা হয়। আমাদের রাসুলুল্লাহ (সাঃ) এর সময় হুজরা মোবারক নামে একটা মিম্বার ছিলো আর সেই জায়গাটাকেই জান্নাতের বাগান বলা হয়েছে। 

জান্নাতের পাখির নাম

জান্নাতের পাখির নাম রয়েছে কিন্তু এটা অনেকেরই অজানা জান্নাতের দুটি পাখির নাম এসেছে পবিত্র কোরআনে এই দুটি জান্নাতের পাখির মধ্যে একটি হলো কাক এবং আরেকটি হলো হুদহুদ পাখি। অনেকের কাক নিয়ে সন্দেহ থাকতে পারে সেজন্য এই নিয়ে কোরআনে একটি আয়াত রয়েছে। 

আরো পড়ুনঃ ছাগল দিয়ে আকিকার নিয়ম - আকিকার নিয়ম ও দোয়া

আল্লাহ একটি কাককে প্রেরণ করলেন। সেই কাক মাটি খনন করছিল যাতে তাকে শিক্ষা দেয়। আপন ভাইয়ের মৃতদেহ কিভাবে আবৃত করবে। অতঃপর সে বললো আফসোস আমি কি এই কাকের সমতুল্য হতে পারলাম না যে আপন ভাইয়ের মৃতদেহ আবৃত করি। তারপর সে অনুতাপ হলো। ( সূরা আল মায়িদাহ আয়াত ৩১)

জান্নাতের হুরদের নাম

৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ এবং জান্নাতের দরজার নাম জানতে পেরেছেন কিন্তু অনেকেই জান্নাতের হুরদের নাম জানার জন্য ইন্টারনেটে সার্চ খুজে থাকেন আসলে জান্নাতের হুরদের নাম কোরআনে বা কোনো ইসলামি বইয়ে উল্লেখ করা হয়নি সেজন্য জান্নাতি হুরের নাম দুনিয়ার কেউ জানে না। 

জান্নাতি হুরদের নাম জান্নাতে প্রবেশ করার পরেই কেবলমাত্র জানা যাবে। সেজন্য বলা যায় দুনিয়াতে থাকতে কেউ জান্নাতি হুরদের নাম জানতেও পারবে না বলতেও পারবে না। আশা করছি জান্নাতের হুরদের নাম সম্পর্কে ভালোভাবে ধারনা পেলেন।

বেহেশতের ফুলের নাম

জান্নাতের দরজার নাম যেমন রয়েছে তেমনি জান্নাতের বা বেহেশতের ফুলের নাম কয়েকটা আছে। এবার আপনাদের কয়েকটি বেহেশতের ফুলের নাম জানাবো। বেহেশতের ফুলের নাম গুলো হলো আফনান, এশাল, রেহান, জুনাইরা, মেনাল, আরিজ, মিনাহিল, মেলিয়া, আইহান ইত্যাদি। 

জান্নাতের ফলের নাম

মুমিন বান্দাদের জন্য পরকালে রয়েছে শান্তির জায়গা জান্নাত আর যারা জান্নাতে যাবে তাদের জন্য সুমিষ্ট অনেক ফল থাকবে জান্নাতের ফল গুলো হলো খেজুর, ডুমুর, ডালিম বা বেদানা, কলা, আপেল, কমলা, আঙ্গুরফল, জলপাই ইত্যাদি আরো অনেক ফলমূল থাকবে জান্নাতের খাবার হিসেবে। 

জান্নাতের খাবারের নাম

জান্নাত একটি চির সুখের জায়গা কেউ যদি দুনিয়াতে আল্লাহর সকল এবাদত পালন করে এবং তার অনুগত্য স্বীকার করে মৃত্যুবরণ করতে পারে আল্লাহ তাদের জান্নাত দিবেন। জান্নাতের খাবারের নাম গুলো হলো মাছের ভুনা কলিজা, পাখির ভুনা মাংস, গরুর মাংস সহ আরো বিভিন্ন খাবার দেওয়া হবে জান্নাতিদের এক কথায় জান্নাতের খাবারের কোনো অভাব নাই।

জান্নাতের গাছের নাম

অনেকে জান্নাতের গাছের নাম জানতে চান এখন আপনাদের জানাবো জান্নাতের গাছের নাম জান্নাতের গাছের নাম হলো তুবা।

জান্নাতি মাছের নাম কি

অনেকে জান্নাতি মাছের নাম জানেন না সেজন্য ইন্টারনেটে সার্চ করে থাকেন জান্নাতি মাছের নাম কি? জান্নাতি মাছের নাম হলো তেলাপিয়া মাছ আর এই জান্নাতি তেলাপিয়া মাছ আমাদের বাংলাদেশে পাওয়া যায়।

জান্নাতের নদীর নাম

যারা জান্নাতের নদীর নাম জানতে চান তারা এই অংশ থেকে জেনে নিতে পারেন জান্নাতের নদী হচ্ছে ৪ টি জান্নাতের প্রথম নদী হলো পানির দ্বিতীয় নদী হলো মধুর তৃতীয় নদী হলো দুধের চতুর্থ নদী হলো শরাবের।

জান্নাতের ঝর্ণার নাম

জান্নাতের ঝর্ণার নাম অনেকে জানেন না জান্নাতের ৩ টি ঝর্ণা রয়েছে। জান্নাতের ৩ টি ঝর্ণার নামগুলো হলো কাফুর ঝর্ণা, তাসনীম ঝর্ণা, সালসাবিল ঝর্ণা। আল্লাহর অশেষ নেয়ামত যা সারাজীবন বলেও শেষ করা যাবে না। আল্লাহ আমাদের সবাইকে পরকালে জান্নাত বাসী করুন আমিন।

৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ - জান্নাতের দরজার নাম: শেষ কথা 

৮ টি জান্নাতের নাম অর্থসহ ৮ টি জান্নাতের নাম কি কি ৮ টি জান্নাতের নাম আরবি ৮ টি বেহেশতের নাম জান্নাতের সবচেয়ে বড় দরজার নাম কি সর্বশ্রেষ্ঠ জান্নাতের নাম কি জান্নাতের বাগানের নাম জান্নাতের পাখির নাম জান্নাতের হুরদের নাম বেহেশতের ফুলের নাম কি এই সকল বিষয়ে আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করা হয়েছে আশা করছি আপনারা এই সকল বিষয়ে ভালোভাবে জানতে পেরেছেন। 

তারপরও যদি আপনাদের এ বিষয়ে আরো কিছু জানার থাকে তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। এবং এরকম আরো তথ্যমূলক আর্টিকেল পেতে আমাদের JONOPRIYO BLOG ওয়েবসাইট নিয়মিত ফলো করুন। এতক্ষণ আমাদের সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন