কসোভো কাজের ভিসা - কসোভো বেতন কত

বাংলাদেশ থেকে অনেকেই কসোভো কাজের ভিসায়। কিন্তু এই সম্পর্কে তেমন ধারনা থাকার কারণে বিভিন্ন রকম সমস্যায় পড়তে হয়। তাই আজকের এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনাদের জানাবো কসোভো কাজের ভিসা তথ্য এবং কসোভো বেতন কত এই সকল বিষয়ে।
কসোভো কাজের ভিসা

আপনি যদি জেনে থাকেন কসোভো কাজের ভিসা কসোভো বেতন কত কসোভো যেতে কত টাকা লাগে এই সকল বিষয়ে তাহলে এগুলো আপনার জন্য অনেক উপকারী হবে। তো চলুন নিচের অংশ গুলো থেকে বিস্তারিতভাবে জেনে নেওয়া যাক। 

পোস্ট সূচিপত্রঃ কসোভো কাজের ভিসা - কসোভো বেতন কত

কসোভো কাজের ভিসা

বাংলাদেশ থেকে অনেকেই ওয়ার্ক পারমিট ভিসার মাধ্যমে কসোভো যেতে চাচ্ছেন কিন্তু আপনি হয়তো জানেন না কসোভো কাজের ভিসায় কি কি কাজ করা যায় বা কি কি কাজ আপনি পেতে পারেন।এগুলো যদি আপনি আগে থেকে না জানেন তাহলে বিভিন্ন রকম সমস্যা হতে পারে। আর আগে থেকে জেনে থাকলে আপনি কোন কাজের উপর দক্ষ সেই অনুযায়ী কাজ পেতে সুবিধা হবে। কসোভো কাজের ভিসাতে গেলে আপনি যেগুলো কাজ পেতে পারেন বা যেগুলো কাজ দেওয়া হয়ে থাকে সেগুলো হলোঃ 

  • কনস্ট্রাকশন এর কাজ
  • ইলেকট্রিশিয়ান এর কাজ
  • রেস্টুরেন্ট বা হোটেলের কাজ
  • বিভিন্ন ফ্যাক্টরির কাজ
  • ক্লিনার এর কাজ
এগুলো কাদের জন্য আপনি কসোভো কাজের ভিসা পাবেন। তবে ভিসা তৈরি করার ক্ষেত্রে সরকারিভাবে করতে পারলে সেটা অনেক বেশি ভালো হয় কারণ এতে করে টাকার পরিমাণ কম লাগে এবং প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না আর দালালের মাধ্যমে করতে গেলে টাকা অনেক বেশি লাগে এবং প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাই আপনারা দালালের মাধ্যমে করতে যাবেন না। 

কসোভো বেতন কত

কসোভো একটি উন্নত দেশের জন্য এখানে কাজের বেতন কিছুটা বেশি হয়ে থাকে তবে কাজের বেতন সম্পূর্ণ আপনার কাজের উপর নির্ভর করবে আপনি যদি কোন কাজে বেশি দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে আপনার কাজের বেতন তুলনামূলক বেশি হবে আর যদি আপনি নতুন অবস্থায় তেমন কোন কাজের উপর দক্ষতা না থাকে তাহলে তুলনামূলক বেতন কম হবে।

সাধারণত কেউ যদি কসোভো কাজের ভিসাই যায় তাহলে প্রথম অবস্থায় তার বেতন হবে ৩০০ থেকে ৩৫০ ইউরো যা বাংলাদেশি টাকায় হতে পারে ৪০ থেকে ৪৫ হাজার টাকা পর্যন্ত। তবে কেউ যদি কোন কাজের উপর অনেক বেশি দক্ষ হয়ে থাকে তাহলে তার প্রতি মাসে বেতন ৫০ থেকে ৮০ হাজার টাকা পর্যন্ত হতে পারে। 

তাই আপনি যদি কসোভো কাজের ভিসাতে যেতে চান তাহলে অবশ্যই যে কাজের জন্য যাবেন সে কাজের উপর ভালো ভালো দক্ষতা অর্জন করবেন। তাহলে আপনি নতুন অবস্থায় গিয়ে কমপক্ষে ৫০ থেকে ৬০ টাকা পর্যন্ত বেতন পেতে পারেন। মোট কথা আপনার যত বেশি কাজের দক্ষতা থাকবে তত বেশি বেতন পাবেন। 

কসোভো থেকে ইতালি

অনেকে কসোভো থেকে ইতালি যেতে চান কিন্তু তার উপায় সম্পর্কে জানা নেই। আপনি যদি বৈধভাবে কসোভো থেকেই ইতালি যেতে চান তাহলে একটি উপায় রয়েছে সেটা হল প্রথমে আপনাকে কসোভোর যেকোনো একটি কোম্পানিতে ১২ থেকে ১৫ মাস কাজ করতে হবে। এবং কাজ করা অবস্থায় আপনাকে সেই কোম্পানি থেকে একটি আরআইসি কার্ড নিতে হবে।

তাহলে এবার আপনি ইতালি ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। এখানে দুইটি ভিসার জন্য আবেদন করা যাবে একটি হলো কাজের ভিসা এবং আরেকটি হলো টুরিস্ট ভিসা। তো আপনি যেহেতু কাজের ভিসা করবেন সেজন্য টুরিস্ট ভিসা আবেদন করবেন এতে করে আপনি সেই ভিসার মাধ্যমে সেখানে গিয়ে কাজ খুঁজে নিতে পারবেন তবে আপনার কোম্পানি যখন বন্ধ থাকবে সেই অবস্থায় এগুলো সব সম্পূর্ণ করতে হবে। 

আরো পড়ুন: ইউরোপ ভিসা এজেন্সি বাংলাদেশ - ইউরোপ ভিসা আবেদন

এছাড়া আর একটু উপায় যেতে পারেন আপনার যদি কোন পরিচিত ব্যক্তি ইতালিতে থাকে এবং আপনাকে যদি ইতালির কোন কোম্পানিতে কাজের অনুমোদনের জন্য অনুমোদনপত্র নিয়ে দিতে পারে তাহলে আপনি কসোভোর যে কোম্পানিতে কাজ করছেন সেই কোম্পানি থেকে এন ও সি পত্র সংগ্রহ করে খুব সহজেই কসোভো থেকে ইতালি যেতে পারবেন। 

কসোভো যেতে কত টাকা লাগে ২০২৪

বিভিন্ন ক্যাটাগরির কসোভো ভিসা পাওয়া যায়। ভিসা ধরন এবং ক্যাটাগরি অনুযায়ী টাকার ডিমান্ড ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে। তাই আপনি আগে কোন বিষয়ে যেতে যাচ্ছেন সেটা আগে আপনাকে নির্বাচন করতে হবে। 

তবে আমরা যেহেতু আজকের এই পোস্টে আপনাদের ওয়ার্ক পারমিট ভিসা সম্পর্কে জানাচ্ছি সেজন্য আপনি যদি কসোভো ওয়ার্ক পারমিট ভিসার মাধ্যমে যেতে চান তাহলে ৮ লক্ষ টাকা থেকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ভিসার দাম লাগবে। এছাড়া অন্যান্য খরচ দিয়ে আরেকটু বেশি লাগবে। তবে আপনারা সরকারিভাবে যাওয়ার চেষ্টা করবেন এতে করে টাকা কম লাগবে এবং প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না। 

কসোভো টাকার মান কত

কসোভো টাকার মান উঠানামা করে থাকে। কসোভো টাকাকে ইউরো বলা হয়ে থাকে। কসোভো ১ ইউরো = বর্তমানে বাংলাদেশি টাকায় ১১৮.৬২ টাকা। কসোভো ১০০ ইউরো = বর্তমানে বাংলাদেশী টাকায় ১১৮৬১.৬৩ টাকা। কসোভো ১০০০ ইউরো = বর্তমান বাংলাদেশি টাকায় ১১৮৬১৬.২৮ টাকা। এটা বিভিন্ন সময় উঠানামা করে থাকে সেজন্য আপনি যে সময় জানতে চাইবেন সে সময় কত রয়েছে সেটা ভালোভাবে জেনে নিবেন।

কসোভো আয়তন কত

স্বাধীন একটি দেশ হলো কসোভো যেটা ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে স্বাধীনতা রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে। কসোভো ইউরোপের বলকান একটি রাষ্ট্র যেটা পূর্বে ছিল সার্বিয়ার একটি প্রদেশ।আপনাদের প্রশ্ন হল কসোভো আয়তন কত? কসোভো এর মোট আয়তন হলো ১০,৯০৮ বর্গ কিলোমিটার। এছাড়াও এই দেশের জনসংখ্যা অনেক বেশি ২০০৭ সাল এর হিসেব অনুযায়ী প্রায় আনুমানিক জনসংখ্যা ২,১০০,০০০ এবং এই দেশে পানি নেই বললেই চলে। 

কসোভো ১ টাকা বাংলাদেশের কত টাকা

কসোভো টাকা হয় না কসোভো মুদ্রাকে বলা হয়ে থাকে ইউরো কসোভো ১ ইউরো = বর্তমান বাংলাদেশি টাকায় ১১৮.৬২ টাকা। অর্থাৎ আপনি যদি কসোভো গিয়ে কোন কাজ করে ১ ইউরো ইনকাম করেন তাহলে আপনি বাংলাদেশি টাকায় পাবেন ১১৮.৬২ টাকা। এই হিসেব অনুযায়ী আপনি যত বেশি কসোভো ইউরো ইনকাম করবেন আপনার বাংলাদেশি টাকা তত বেশি হবে। তাহলে আশা করছি এ বিষয়ে ক্লিয়ার একটি ধারণা পেলেন। 

আমাদের শেষ কথা

আশা করছি প্রিয় বন্ধুরা আজকের আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা বিস্তারিত ভাবে জানতে পেরেছেন কসোভো কাজের ভিসা কসোভো বেতন কত সহ এই সম্পর্কিত প্রায় সকল বিষয়ে। 

আরো পড়ুন: মালয়েশিয়া কোন কাজের বেতন বেশি - মালয়েশিয়া ফ্যাক্টরি ভিসা বেতন কত

তারপরও আপনাদের যদি এ বিষয়ে আরও কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন আমরা সেটার সঠিক উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। আর এই রকম আরো ভিসা তথ্য পেতে আমাদের JONOPRIYO BLOG ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করতে পারেন ধন্যবাদ। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন