আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান - আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক ২০২৪

আসসালামু আলাইকুম আপনি কি আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করতে চাচ্ছেন অথবা আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক করতে চাচ্ছেন তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য। বর্তমানে অনলাইনের মাধ্যমে আপনি আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করতে পারবেন। কিন্তু কিভাবে আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করবেন এ বিষয়ে যদি না জেনে থাকেন তাহলে চলুন নিচের অংশগুলো থেকে জেনে নেওয়া যাক।
আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক ২০২৪ আর এস খতিয়ান অনলাইন আবেদন করার নিয়ম সহ এই সম্পর্কিত আরো বিস্তারিত জানার জন্য পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ে ফেলুন। 

সূচিপত্র: আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান - আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক ২০২৪ 

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান

বর্তমানে অনলাইনের মাধ্যমে আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করা অনেক সহজ হয়ে গেছে সেজন্য আপনি ঘরে বসেই অনলাইনের মাধ্যমে আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করতে পারবেন। আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার জন্য প্রথমে আপনাকে ভিজিট করতে হবে www.eporcha.gov.bd এই ওয়েবসাইটে। তারপরে সেখানে কিছু তথ্য দিতে হবে যেমন বিভাগ, জেলা, উপজেলা, খতিয়ানের ধরন এবং সবশেষে মৌজা নির্বাচন করতে হবে চলুন এ বিষয়ে চিত্রের মাধ্যমে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক। 

আরো পড়ুন: অনলাইনে জমির নকশা দেখা - জমির নকশা ডাউনলোড বাংলাদেশ

প্রথমে আপনি আপনার মোবাইল ফোন অথবা কম্পিউটার থেকে গুগলে যাবেন যাওয়ার পরে সার্চবারে গিয়ে সার্চ করবেন www.eporcha.gov.bd তারপরে নিচে দেখানো চিত্রের মত এরকম আসবে। এবং সেখানে লেখা থাকবে সার্ভে খতিয়ান। সেই সার্ভে খতিয়ানের কিছু তথ্য নির্বাচন করতে হবে। 

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার জন্য পরবর্তীতে আপনার বিভাগ নির্বাচন করুন, জেলা নির্বাচন করুন, উপজেলা নির্বাচন করুন, তারপরে খতিয়ানের ধরণা আসবে সেখানে খতিয়ানের ধরন হিসেবে আরএস নির্বাচন করুন পরবর্তীতে আপনার মৌজা অর্থাৎ গ্রাম নির্বাচন করুন। তারপরে আপনি আপনার গ্রামের সকল খতিয়ান নাম ও নাম্বার দেখতে পেয়ে যাবেন তার মধ্যে আপনার খতিয়ান নাম্বার এবং নাম খুঁজে বের করুন। সহজে বোঝার জন্য নিচে চিত্রের মাধ্যমে দেখিয়ে দিলাম।  

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান

পরবর্তী ধাপে আপনার কাঙ্খিত নাম খুঁজে পাওয়ার পরে সেই নামের উপর ডাবল ক্লিক করুন তাহলে আর এস খতিয়ান নাম্বার এবং দাগ নাম্বার বিস্তারিত দেখতে পাবেন। যেমন নিচের অংশে আমরা যেভাবে চিত্রের মাধ্যমে দেখিয়ে দিয়েছি সেভাবে বিস্তারিত দেখতে পারবেন। 

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান
এভাবেই খুব সহজে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করতে পারবেন। তাই আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার জন্য উপরের অংশগুলো ভালোভাবে পড়ুন এবং লক্ষ্য করুন এবং আপনি আপনার কাঙ্ক্ষিত আর এস খতিয়ান নাম্বার খুঁজে বের করুন। খতিয়ান সম্পর্কে বিস্তারিত জানার জন্য বিস্তারিত লেখার উপর ক্লিক করুন। 

আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক - আর এস খতিয়ান অনলাইন

আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক করার জন্য উপরের অংশের যেগুলো ধাপ আপনাদেরকে দেখিয়েছি সেগুলো যদি আপনি ফলো করেন তাহলে আর এস খতিয়ান চেক করতে পারবেন অনলাইনের মাধ্যমে। আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক করার জন্য প্রথমে অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল অথবা কম্পিউটার থেকে গুগলে যাবেন এবং সার্চ বারে টাইপ করবেন আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান অথবা আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক তাহলে আপনার সামনে www.eporcha.gov.bd এই ওয়েবসাইট আসবে সেখানে প্রবেশ করবেন। করার পরে আপনার কিছু তথ্য সিলেক্ট করতে হবে যেমন,

  • বিভাগ নির্বাচন করুন
  • জেলা নির্বাচন করুন
  • উপজেলা নির্বাচন করুন
  • খতিয়ানের ধরন নির্বাচন করুন অর্থাৎ আমরা যেহেতু আর.এস খতিয়ান চেক করব তাই আর এস সিলেক্ট করে দিব।
  • পরবর্তীতে মৌজা অর্থাৎ গ্রাম সিলেক্ট করুন।
  • পরবর্তীতে আপনার যদি খতিয়ান নাম্বার জানা থাকে তাহলে সেটা বসিয়ে দিন অথবা সেখানে আপনার মৌজার সকল তথ্য রয়েছে সেখান থেকে আপনার কাঙ্খিত নাম খুঁজে বের করুন।
  • যদি খতিয়ান নাম্বার মনে থাকে তাহলে সেখানে খতিয়ান নাম্বার বসিয়ে খুজুন বাটনে ক্লিক করুন।
  • আর যদি খতিয়ান নাম্বার মনে না থাকে তাহলে আপনার কাঙ্খিত নাম খুঁজে বের করে সেই নামের উপর ডাবল ক্লিক করুন।
  • এভাবেই আপনি আপনার কাঙ্খিত আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক করে ফেলতে পারেন। 

আর এস খতিয়ান অনলাইন আবেদন - আর এস খতিয়ান অনলাইন কপি

আর এস খতিয়ান অনলাইনে আবেদন করার জন্য প্রথমে আপনাকে আপনার আর.এস খতিয়ানের নাম্বার এবং দাগ নাম্বার গুলো বের করে নিতে হবে সেজন্য আর এস খতিয়ান নাম্বার এবং দাগ নাম্বার বের করার জন্য উপরের অংশগুলো ভালোভাবে ফলো করুন তারপরে যখন আপনার দাগ নাম্বার এবং খতিয়ান নাম্বার বের হয়ে যাবে তখন সেই খতিয়ান নাম্বার দিয়ে সার্চ করুন। তারপরে আপনার কাঙ্খিত নাম আসবে সেই নামের উপর ডাবল ক্লিক করুন। নিচে চিত্রের মাধ্যমে দেখে নিন।

আর এস খতিয়ান অনলাইন আবেদন
পরবর্তীতে যখন আর এস খতিয়ান নাম্বার এবং আর এস দাগ নাম্বার আসবে সেখানে খতিয়ান আবেদন লেখা দেখতে পাবেন সেই লেখার উপর ক্লিক করবেন। সহজে বোঝার জন্য নিচের চিত্রটি দেখুন এবং সেই অনুযায়ী কাজ করুন।
আর এস খতিয়ান অনলাইন আবেদন

পরবর্তীতে আরেকটি পেজ আসবে সেখানে খতিয়ান আবেদন ফরম আসবে সেই ফর্মে আপনাকে কিছু তথ্য দিতে হবে যেমন, জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার, জন্মতারিখ, মোবাইল নাম্বার।

আর এস খতিয়ান অনলাইন আবেদন
পরবর্তী ধাপে আপনার ইংরেজি নাম ফাঁকা ঘরে টাইপ করে দিন। আপনার সঠিক ঠিকানা নিচের ফাঁকা ঘরে টাইপ করে দিন এবং পরবর্তীতে আরেকটি ঘর ফাঁকা থাকবে সেখানে আপনার জিমেইল টাইপ করে দিন। তারপরে আপনি অনলাইন কপির জন্য আবেদন করবেন না সার্টিফাইড কপির জন্য আবেদন করবেন সেটা সিলেক্ট করুন মনে করুন আমরা সার্টিফাইড কপি আবেদন করলাম আপনি চাইলে অনলাইন কপি ও আবেদন করতে পারেন। 

আরো পড়ুন: গ্রামীণ ব্যাংকের কার্যাবলী - গ্রামীণ ব্যাংকের ম্যানেজারের বেতন কত

তখন সেখানে ডাকযোগ লেখা থাকবে সেই লেখা থাকা ঘরে ক্লিক করুন। ক্লিক করার পরে আবার দেখতে পাবেন লেখা রয়েছে দেশের অভ্যন্তরে এবং দেশের বাইরে আপনি যেখান থেকে আবেদন করতে চাচ্ছেন সেটা সিলেক্ট করে দিন। অর্থাৎ আপনি দেশে থাকলে দেশের অভ্যন্তরে সিলেক্ট করুন আর যদি দেশের বাইরে থাকেন তাহলে দেশের বাইরে সিলেক্ট করুন। 

আর এস খতিয়ান অনলাইন আবেদন

সবকিছু ঠিকঠাক হয়ে গেলে এবার আপনাকে ফি প্রদান করতে হবে। সেজন্য আপনাকে খতিয়ান ফি দিতে হবে ১০০ টাকা এবং পোস্ট ফি দিতে হবে ৪০ টাকা সর্বমোট ১৪০ টাকা ফি প্রদান করতে হবে। আর এই ফি প্রদান করার অনেকগুলো মাধ্যম পাবেন যেমন বিকাশ, নগদ, রকেট, উপায় এবং Ekpay. তারপর এগুলোর মধ্যে যে কোন একটা সিলেক্ট করে নিচে একটি যোগফল করতে হবে যোগফল করার পরে পরবর্তী ধাপ ফি পরিশোধ লেখার উপর ক্লিক করতে হবে।  

আর এস খতিয়ান অনলাইন আবেদন
এভাবে সঠিকভাবে সকল তথ্য দিয়ে এবং সঠিকভাবে ফি প্রদান করার দশ দিন পরে আপনি আপনার খতিয়ান আপনার নিকটস্থ পোস্ট অফিস থেকে পেয়ে যাবেন। 

আর এস খতিয়ান ডাউনলোড 

উপরের অংশে বলে দেওয়া বা দেখানো নিয়ম অনুযায়ী প্রথমে আপনাকে আর এস খতিয়ান আবেদন করতে হবে আবেদন করা সম্পূর্ণ হয়ে গেলে এবং ফি পরিশোধ করা সম্পন্ন হয়ে গেলে অনলাইন থেকে আপনার আর এস খতিয়ান ডাউনলোড করে নিতে পারবেন এবং। 

আপনি যদি সেই আর এস খতিয়ান এর সার্টিফাইড কপি নিতে চান তাহলে উপজেলা ভূমি অফিস কার্যালয় থেকে সার্টিফিকেট কপিটি নিতে পারবেন। আপনার যদি আর এস খতিয়ান খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকে তাহলে সার্টিফাইড কপি সংগ্রহ করবেন আর যদি শুধুমাত্র দেখার জন্য নিতে চান তাহলে অনলাইন কপি ডাউনলোড করে নিবেন। 

আর এস রেকর্ড - আর এস রেকর্ড কত সালে হয়

প্রথমবার জমি জরিপ করার পরে যে ভুলগুলো হয়েছিল সেগুলো সংশোধন করে আবার পুনরায় ঠিকঠাক করাকে আরএস রেকর্ড বা আর এস জমি জরিপ বলে। আর এস এ জমি জরিপ করার পরে যারা এগুলো করেছে তারা অনেক তথ্য সঠিকভাবে দিতে পারেনি কিন্তু পরবর্তীতে সেই জমি জরিপ আবার করা হয় এবং সেটা একেবারে জমিনে গিয়ে আমিনরা মাপ যোক করে এবং সেগুলোর আবার সঠিক তথ্য বের করে আর তখন থেকে সেটা আর এস হিসেবে রেকর্ড হয়ে আছে। 

আরো পড়ুন: পাসপোর্ট রিনিউ করার নিয়ম ২০২৩ - পাসপোর্ট রিনিউ করতে কত টাকা লাগে

সেজন্য আর এস রেকর্ড তেমন একটা ভুল পাওয়া যায় না। তবে চূড়ান্তভাবে সারাদেশে আরএস রেকর্ড এখনো শেষ হয়নি তবে অনেক জেলাতেই চূড়ান্তভাবে আরএস রেকর্ড নামা চূড়ান্ত ভাবে প্রকাশ করা হয়েছে। আর এস রেকর্ড কত সালে হয় সি এস জমি জরিপ হওয়ার ৫০ বছর পরে আর এস জমি জরিপ শুরু হয়। 

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান - আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক ২০২৪: শেষ কথা 

বন্ধুরা আজকের পোস্ট থেকে আপনারা জানতে পারছেন আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার উপায়, আর এস খতিয়ান অনলাইন চেক করার উপায় সহ আর এস খতিয়ান আবেদন করার উপায় আর এস খতিয়ান ডাউনলোড করার উপায়। আশা করছি আজকের পোস্টটি আপনাদের কিছুটা হলেও উপকারে আসছে।  

তারপরেও যদি এই বিষয়ে আর কোনো কিছু জানার থাকে তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানিয়ে দিতে পারেন। তাহলে আমরা সেটার সঠিক সমাধান দেওয়ার চেষ্টা করবো। আর এই রকম আরো বিষয়ে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ফলো করতে পারেন। এতক্ষণ আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন