মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা - মাশরুম খাওয়ার নিয়ম

মাশরুম একটি ছত্রাক জাতীয় উদ্ভিদ এবং এটা বর্তমানে বেশ জনপ্রিয় তাই আজকে আপনাদের জানাবো মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা ও মাশরুম খাওয়ার নিয়ম। আপনি যদি মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা জানতে চান তাহলে পুরো পোস্টটি শেষ পযর্ন্ত পড়ুন তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা ও মাশরুম খাওয়ার নিয়ম।
মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা

মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা মাশরুম খাওয়ার নিয়ম মাশরুম কিভাবে রান্না করতে হয় মাশরুম এর দাম মাশরুম পাউডার খাওয়ার নিয়ম মাশরুম এর অপকারিতা গুলো সম্পর্কে জানতে পুরো পোস্ট পড়ুন।

মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা

মানব দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে মাশরুম বেশ উপকারী একটি খাবার আর এই মাশরুম একটি হালাল খাবার অনেকের এই মাশরুম বেশ পছন্দের কিন্তু অনেকের অজানা মাশরুমের উপকারিতা কতো রয়েছে তাই এখন আপনাদের জানাবো মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা সম্পর্কে তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে

মাশরুমের ভেতর সেলেনিয়াম ও পলিফেলন নামের এন্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে ও সালফার রয়েছে যা মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। 

ক্যান্সারের ঝুকি কমায়

মাশরুমে রয়েছে টারপিনেড, বেটা ডি, আর্গোথিওনিন যা বেস্ট ক্যান্সার ও প্রোস্টেট ক্যান্সারের ঝুকি কমায়। তাই ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে মাশরুম খাওয়া প্রয়োজন। 

আমাশয় নিরাময় করে

আমাশয় নিরাময় করতে মাশরুম বেশ উপকারী কারণ মাশরুমের মধ্যে রয়েছে ইলুডিন এম ও এস। তাই আপনার যদি আমাশয়ের সমস্যা থাকে তাহলে মাশরুম খেতে পারেন তাহলে ইনশাআল্লাহ আমাশয় নিরাময় হবে।

হাড় ও দাঁত গঠনে

মাশরুমে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ডি, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস যা হাড় ও দাঁত গঠনে বেশ উপকারী। মাশরুম হাড় ও দাঁত মজবুত করে সেজন্য মাশরুম খেতে পারেন।

কোলেস্টোরেল কমায়

মাশরুমে কোলেস্টেরল কমানোর উপাদান রয়েছে তাই কারো যদি কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশি থাকে এবং নিয়মিত মাশরুম খায় তাহলে খুব তাড়াতাড়ি কোলেস্টরেল কমানো যায়। এবং মাশরুম খেলে কোলেস্টরেল তৈরি হতে পারে না।

আরো পড়ুন: আমলকি খাওয়ার ২১ টি উপকারিতা - আমলকি খাওয়ার অপকারিতা 

উচ্চ রক্তচাপ কমাতে

মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতার ভেতর আরেকটি কার্যকরি উপকারিতা হলো এটা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। মাশরুমে রয়েছে পটাশিয়াম যা শরীরের ভেতর থাকা খারাপ সোডিয়াম এর পরিমাণ কমায় এতে করে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। 

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে

মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতার ভেতর সেরা একটি উপকারিতা হলো এটা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে মাশরুমে রক্তে শর্করার মাত্রা এবং ইনসুলিনের মাত্রা ঠিক রাখে তাই মাশরুম ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের বেশ উপকারী। তাই আপনার যদি থাকে তাহলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে খাবার তালিকায় মাশরুম রাখার চেষ্টা করবেন।  

চর্মরোগ প্রতিরোধ করে

মাশরুম চর্মরোগ প্রতিরোধ করতে বেশ উপকারী। তাই আপনার যদি চর্ম রোগের সমস্যা থেকে থাকে তাহলে মাশরুম খাবেন দেখবেন চর্মরোগ খুব তারাতাড়ি নিরাময় হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।  

যৌবন ধরে রাখে

অনেকের কম বয়সে শরীরে বয়সের ছাপ পড়ে যায় এতে করে দেখতে বয়স্ক লাগে। কিন্তু এই সমস্যা দূর করতে মাশরুম বেশ উপকারী কারণ মাশরুমের মধ্যে গলুটাথিয়ন ও এরগোথিওনিন নামক দুইটি উপাদান রয়েছে সেজন্য মাশরুম খেলে যৌবন ধরে রাখা যায় এতে করে বয়ম কম লাগে।

হৃদরোগ নিরাময় করে

মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতার ভেতর আরেকটি কার্যকরী উপকারিতা হল এটা হৃদরোগ নিরাময় করতে সাহায্য করে। কারণ মাশরুমে রয়েছে ইরিটাডেনিন,টাডেনিম,লোভাস্টটিন, ভিটামিন ডি, ভিটামিন সি তাই যাদের হৃদরোগের সম্ভাবনা রয়েছে বা হৃদরোগ রয়েছে তারা প্রতিদিনের খাবার তালিকাইয় মাশরুম রাখবেন এবং মাশরুম খাবেন।

ওজন কমায়

মাশরুমে থাকা আশ ও ফাইবার দীর্ঘ সময় পাকস্থলী ভরে রাখে এবং মাশরুম রক্তের চিনির পরিমাণ কমায় সেজন্য মাশরুম ওজন কমায়। একটি গবেষণায় দেখা গেছে লাল মাংস খাওয়ার পরিবর্তে সাদা মাশরুম খেলে এটা ওজন কমাতে বেশি কার্যকরী ।

ত্বক নরম ও কোমল রাখে

মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতার ভেতর আরেকটি উপকারিতা হলো এটা ত্বক নরম ও কোমল রাখে কারণ মাশরুমে ৮০ থেকে ৯০ ভাগ পানি এবং মাশরুমে রয়েছে রিবোফ্লাভিন ও নিয়াসিন তাই এটা ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। 

হাইপার টেনশন কমায়

মাশরুমে রয়েছে স্ফিংগলিপিড যা স্নায়ুতন্ত্র সুস্থ রাখে সেজন্য নিয়মিত খাবার তালিকায় মাশরুম রাখলে এবং নিয়মিত মাসরুম খেলে এটা হাইপার টেনশন কমায়।

চোখের দৃষ্টি শক্তি বৃদ্ধি করে

মাশরুমে বিভিন্ন রকম পুষ্টিগুণ রয়েছে এবং খনিজ লবণ রয়েছে সেজন্য নিয়মিত মাশরুম খেলে চোখের দৃষ্টি শক্তি বৃদ্ধি করে। তাই যাদের কম বয়সে চোখের দৃষ্টি শক্তি কম তারা প্রতিদিনের খাবার তালিকায় মাশরুম রাখতে পারেন।

রক্তস্বল্পতা দূর করে

মাশরুমে বিভিন্ন রকম পুষ্টিগুণ রয়েছে সেজন্য নিয়মিত মাশরুম খেলে এটা রক্তস্বল্পতা দূর করতে সাহায্য করে তাই যাদের রক্তস্বল্পতা বা যাদের শরীরে রক্ত কম তারা নিয়মিত খাবার তালিকায় মাশরুম রাখবেন এবং খাওয়ার চেষ্টা করবেন। 

স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করে

মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতার ভেতর আরেকটি উপকারিতা হলো এটা স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করে। একটি গবেষণায় দেখা গেছে যারা নিয়মিত মাশরুম খায় তাদের স্মৃতিশক্তি অনেক বেশি থাকে। বয়স যখন বাড়তে থাকে তখন বিভিন্ন কারণে স্মৃতিশক্তি কমতে থাকে তাই স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করতে খাবার তালিকায় মাশরুম রাখতে পারেন।  

শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করে

অনেক সময় আমাদের শরীরের শক্তি কমে যায় এতে করে কোনো কাজ করতে ভালো লাগে না একটু কাজ করতে হাপিয়ে যেতে হয় শরীরদুর্বল হয়ে পড়ে। কিন্তু যদি নিয়মিত মাশরুম খেতে পারেন তাহলে এর মধ্যে থাকা ভিটামিন বি সহ বিভিন্ন পুষ্টিগুণ আপনার শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করবে। 

গর্ভবতী মা ও শিশুর রোগ প্রতিরোধ করে

গর্ভবতী মায়ের শরীরের ইমিউন সিস্টেম ভালো রাখতে মাশরুমের মধ্যে রয়েছে আমিষ, ভিটামিন, মিনারেল, শর্করা, ভিটামিন সি সহ আরো পুষ্টি উপাদান সেজন্য গর্ভবস্থায় মাশরুম খেলে এটা গর্ভবতী মা ও শিশুর বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করে। এতে করে মা ও শিশু সুস্থ স্বাভাবিক থাকে। 

মাশরুম খাওয়ার নিয়ম

মাশরুম আমাদের শরীরের জন্য এবং স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী একটি খাবার এটা বিভিন্ন ভাবে খাওয়া যায় যেমন যেকোনো তরকারির সাথে নডুলস এর সাথে অথবা স্যুপ এর সাথে রান্না করে খাওয়া যায়। অথবা শুধুমাত্র মাশরুম আলাদা করে বিভিন্ন ভাবে রান্না করে খাওয়া যায়। মাশরুমকে আপনি ফ্রাই করে চপ করে স্যুপ করে খেতে পারেন। 

আরো পড়ুন: ছোলার ১২ টি উপকারিতা ও অপকারিতা - কাঁচা ছোলা খাওয়ার নিয়ম 

অথবা বিভিন্ন রকম তরকারির ভেতর দিয়ে রান্না করে খেতে পারেন। তরকারির ভেতর মাশরুম দিলে তরকারির স্বাদ আরো বেড়ে যায় তাই এই নিয়মে মাশরুম খেতে পারেন। আশা করছি মাশরুম খাওয়ার নিয়ম জানতে পারলেন এবার চলুন নিচে জেনে নেওয়া যাক মাশরুম কিভাবে রান্না করে সেই সম্পর্কে। 

মাশরুম কিভাবে রান্না করে

মাশরুম বিভিন্ন ভাবে বিভিন্ন কিছু দিয়ে রান্না করা যায় এখন আপনাদের মাশরুম রান্না করার একটি উপায় জানাবো তো জেনে নিন মাশরুম কিভাবে রান্না করে সেই রেসিপি সম্পর্কে। 

প্রথমে মাশরুম ভালোভাবে ধুয়ে মাঝারি মাপ করে কেটে নিবেন। তারপর কিছু আলু বড় বড় করে কেটে নিবেন মাশরুম আর আলু মিলে ৫০০ গ্রামের মতো নিবেন। তারপর রান্না করার জন্য কড়াই গরম করে তেল দিবেন দিয়ে তেলের মধ্যে আলুগুলো দিয়ে ভেজে নিবেন তারপর ভালোভাবে আলু ভাজা হলে তুলে নিবেন। তারপর তেলের মধ্যে মাশরুম দিবেন এবং তারমধ্যে হালকা লবণ ও হলুদ গুড়ো দিবেন দিয়ে মাশরুম গুলো ভেজে নিবেন ভাজা হয়ে গেলে তুলে নিবেন। 

তারপর কড়াইতে আবার তেল দিবেন দিয়ে তেলের মধ্যে দারচিনি, লবঙ্গ, এলাচ ও তেজপাতা দিয়ে তার ভেতর একটা পেঁয়াজ কুঁচি করে কেটে দিবেন। এবং শুকনো মরিচ দিয়ে ভালো করে ভেজে নিবেন। যখন একটু ভাজা হবে তখন তার ভেতর  এক চামচ আদা রসুন বাটা দিয়ে দিবেন কাঁচা মরিচ বাটা মরিচ গুড়া হলুদ গুড়া তারপরে টমেটো বাটা দিতে পারেন এবং সেইসাথে ধনে ও জিরা গুড়া আধা চামচ দিয়ে ভালোভাবে সবগুলো মিশিয়ে নিবেন। 

ভালোভাবে মসলা গুলো কষানো হয়ে গেলে তারমধ্যে ভাজা আলু ও মাশরুম দিয়ে দিবেন তারপর হালকা লবণ দিয়ে একটু মিশিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিবেন তারপর ৫ মিনিট পরে হালকা পানি দিবেন দিয়ে ১০ মিনিট ঢেকে রেখে দিবেন তারপর তরকারি হয়ে আসলে নামানোর আগে হালকা গরম মসলা গুড়ো দিয়ে মিশিয়ে নিবেন তাহলেই হয়ে গেলো মজাদার মাশরুম রান্না।  

মাশরুম এর দাম

বিভিন্ন জায়গায় মাশরুমের দাম বিভিন্ন রকম হতে পারে সেজন্য আপনার এলাকায় কেমন দাম হবে এটা একেবারে সিওর হয়ে বলা যাচ্ছে না তবে সব জায়গার গড় হিসাব করে যদি বলা হয় তাহলে একটা আইডিয়া দেওয়া যাবে মাশরুম দুই রকম ভাবে কিনতে পাওয়া যায় একটা হলো কাচা মাশরুম আর একটা হলো শুকনো বা গুড়ো মাশরুম। এক কেজি কাচা মাশরুমের দাম ২০০ থেকে ২৫০ টাকা। আর ১ কেজি শুকনো বা গুড়ো মাশরুমের দাম ১৩০০ থেকে ১৪০০ টাকা।  

আরো পড়ুন: আখের রসের ১২ টি উপকারিতা - আখের রসের অপকারিতা

এবং এক কেজি কাচা বাটন মাশরুমের দাম ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা। শুকনো বা গুড়ো ঋষি মাশরুমের দাম ৩০০০ থেকে ৪০০০ টাকা।  এবং ১ কেজি কাচা বা তাজা কান মাশরুমের দাম ২০০ থেকে ৩০০ টাকা।  এবং শুকনো কান  মাশরুমের দাম ১২০০ টাকা। বিভিন্ন রকম মাশরুমের বিভিন্ন রকম দাম তাই আপনি কোন মাশরুম কিনতে চাচ্ছেন সেটার দাম এখান থেকে জেনে নিন তবে মনে রাখবেন এলাকা ভেদে দাম কিছুটা কম বেশি হতে পারে। 

মাশরুম পাউডার খাওয়ার নিয়ম

মাশরুম পাউডার খাওয়ার নিয়ম হলো প্রথমে পছন্দের একটি জুস তৈরি করে নিবেন তারপর সেই জুসের মধ্যে ২ চামচ মাশরুম পাউডার দিবেন দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে খেয়ে নিবেন।  এভাবেই মাশরুম পাউডার খাবেন।  মাশরুম বা মাশরুম পাউডার স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী।  

মাশরুম এর অপকারিতা

মাশরুম আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী কিন্তু এই মাশরুম খাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে কারণ এক প্রকারের বুনো মাশরুম রয়েছে যেটা খেলে মৃত্যু হতে পারে। বুনো মাশরুম অনেক বিষাক্ত হয়ে থাকে। আবার যাদের মাশরুম খাওয়ার অভ্যাস নেই তারা খেলে বমি হতে পারে আর একবারে বেশি পরিমাণ খেলে পেটের সমস্যা হতে পারে পরিমাণ মতো আর খাবার উপযোগী মাশরুম খেলে কোনো ক্ষতি হবে না। মাশরুমের উপকারিতা বেশি তবে আসল মাশরুম চিনে দেখে বুঝে খেতে হবে তাহলে ইনশাআল্লাহ কোনো সমস্যা নেই। 

মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা - মাশরুম খাওয়ার নিয়ম: শেষ কথা

প্রিয় বন্ধুরা আজকের আর্টিকেল থেকে আপনারা জানতে পারলেন মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা মাশরুম খাওয়ার নিয়ম মাশরুম কিভাবে রান্না করতে হয় মাশরুম এর দাম মাশরুম পাউডার খাওয়ার নিয়ম মাশরুম এর অপকারিতা গুলো সম্পর্কে। 

আশা করছি মাশরুম সম্পর্কে এগুলো তথ্য জানতে পেরে আপনাদের কিছুটা হলেও উপকার হবে। তারপরেও যদি এই বিষয়ে আরো কিছু জানার থাকে তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। এবং এরকম আরো তথ্যমূলক আর্টিকেল পড়তে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন