টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতা - টমেটো খাওয়ার অপকারিতা

প্রিয় বন্ধুরা টমেটো খাওয়ার উপকারিতা এবং টমেটো খাওয়ার অপকারিতা সম্পর্কে কি জানতে চান তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য। টমেটো আমরা বিভিন্ন ভাবে খেয়ে থাকি যেমন সালাত হিসেবে তরকারি রান্না করে এবং খালি মুখে চিবিয়ে খেয়ে থাকি। কিন্তু এই টমেটো খাওয়ার উপকারিতা কতগুলো রয়েছে তা হয়তো আপনি জানেন না তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতা সম্পর্কে।
টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতা

টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতা টমেটো খাওয়ার নিয়ম টমেটো খাওয়ার অপকারিতা এই সকল বিষয় সহ এই সম্পর্কিত আরো কিছু বিষয়ে আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে তাই আপনি যদি এই সকল বিষয়ে জানতে চান তাহলে পুরো আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

পেজ সূচিপত্রঃ টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতা - টমেটো খাওয়ার অপকারিতা 

টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতা

টমেটো একটি শীতকালীন সবজি কিন্তু এখন সারা বছরই টমেটো পাওয়া যায়। বিভিন্ন তরকারিতে দিয়ে টমেটো রান্না করে খাওয়া যায় এবং সালাদ হিসেবেও খাওয়া যায়। এই টমেটোতে রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ যেমন ভিটামিন এ ভিটামিন বি ১ ভিটামিন কে পটাশিয়াম ম্যাগনেসিয়াম আয়রন সহ আরো অনেক পুষ্টিগুণ। সেজন্য আপনি যদি নিয়মিত টমেটো খান তাহলে টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতা রয়েছে সেগুলো পাবেন। টমেটো খেলে যেগুলো উপকারিতা পাবেন সেগুলো হলো।

  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে
  • রক্তশূন্যতা দূর করে
  • হাড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখে
  • ত্বক সুন্দর রাখে
  • কোলেস্টরেল নিয়ন্ত্রণ করে
  • হার্ট ভালো রাখে
  • কোষ্ঠকাঠিন্যের সমাধান
  • মেদ ঝরাতে সাহায্য করে
  • রক্তে শর্করার পরিমাণ কমায়
  • জ্বর নিরাময়ে
  • সর্দি কাশি নিরাময়ে
  • মাড়ির রক্তপাত নিয়ন্ত্রণে

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে: টমেটোর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি সেজন্য আপনি যদি নিয়মিত টমেটো খেতে পারেন তাহলে এতে করে শরীরের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে সেই সাথে শরীরে শক্তি বৃদ্ধি পাবে। তাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে চাইলে নিয়মিত টমেটো খেতে পারেন। 

রক্তশূন্যতা দূর করে: আমাদের অনেকেরই রক্তশূন্যতা দেখা দিয়ে থাকে আর এই রক্তশূন্যতা দূর করতে টমেটো অনেক উপকারী একটি সবজি জাতীয় খাবার। টমেটো আমাদের হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে এবং রক্তশূন্যতা দূর করে রক্ত পরিষ্কার করে।

আরো পড়ুনঃ গাজর খাওয়ার ১০ টি উপকারিতা - গাজরের অপকারিতা

হাড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখে: টমেটোর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম যা হাড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে অনেক প্রয়োজনীয়। তাই হাড় মজবুত রাখতে এবং হাড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে নিয়মিত টমেটো খাওয়ার অভ্যাস তৈরি করতে পারেন।। 

ত্বক সুন্দর রাখে: ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার জন্য টমেটো অনেক উপকারী এবং কার্যকরী। নিয়মিত টমেটো খেলে ত্বক উজ্জ্বল হয় এবং ত্বক অনেক গ্লো করে। সেজন্য ত্বক সুন্দর রাখতে নিয়মিত টমেটো খেতে পারেন। এছাড়াও চাইলে একটি টমেটো কেটে মুখে ঘষতে পারেন তাহলে মুখ পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল হবে। 

কোলেস্টরেল নিয়ন্ত্রণ করে: টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতার ভেতর আরেকটি সেরা উপকারিতা হলো রক্তে কোলেস্টরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। টমেটোর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ ভিটামিন বি এবং পটাশিয়াম যা কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করে এবং উচ্চরক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।  

হার্ট ভালো রাখে: অনেকেই হার্টের সমস্যায় ভুগে থাকেন। আর এই হার্টের সমস্যা সমাধান করে হার্ট ভালো রাখতে টমেটো অনেক উপকারী কারণ টমেটোর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম যা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে এবং হার্ট ভালো রাখে। তাই প্রতিদিনের খাবারে টমেটো রাখার কথা বলা হয়ে থাকে।

কোষ্ঠকাঠিন্যের সমাধান: নিয়মিত টমেটো খেলে রক্তশূন্যতা দূর হয় এবং টমেটো হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে অনেক সাহায্য করে আর এতে করে কোষ্ঠকাঠিন্যের মত সমস্যা দূর হয়ে যায়। তাই কারো যদি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে থাকে তাহলে নিয়মিত টমেটো খাওয়ার অভ্যাস তৈরি করুন। ইনশাআল্লাহ কোষ্ঠকাঠিন্য ভালো হয়ে যাবে। 

মেদ ঝরাতে সাহায্য করে: অনেকের দেখা গেছে অল্প বয়সে মেদ ভুড়ি বেশি হয়ে গেছে এতে করে দেখতে অনেকটা খারাপ লাগে। তাই অনেকে মেদ ঝরাতে ডায়েট করে থাকেন সেজন্য আপনি যদি মেদ ঝরাতে ডায়েট করে থাকেন তাহলে ডায়েটের খাবার হিসেবে টমেটো রাখতে পারেন।  

রক্তে শর্করার পরিমাণ কমায়: একটি গবেষণায় দেখা গেছে টমেটোর মধ্যে সামান্য পরিমাণ ক্রোমিয়াম থাকে যেটা রক্তে শর্করার পরিমাণ কমাতে অনেক সাহায্য করে। রক্তের শর্কর করার পরিমাণ কমলে যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে তাদের জন্য এটা অনেক উপকারী। তাই রক্তের শর্করার পরিমাণ কমাতে এবং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে নিয়মিত টমেটো খাবেন। 

জ্বর নিরাময়ে: টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতার ভেতর আরেকটি উপকারিতা হলো জ্বর কমাতে সাহায্য করে। আমাদের অনেকেরই হঠাৎ হঠাৎ জ্বর হয়ে থাকে যখন জ্বর হবে তখন টমেটো খাবেন তাহলে দেখবেন জ্বর অনেকটা নিরাময় হয়ে গেছে। তবে খুব বেশি জ্বর হলে ডাক্তারের কাছে যাওয়া প্রয়োজন। 

গুগল নিউজে আমাদের ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপরে ফলো করুন

সর্দি কাশি নিরাময়ে: সর্দি কাশি নিরাময় করার জন্য টমেটো অনেক উপকারী। যদি সর্দি কাশি হয়ে থাকে তাহলে টমেটোর সুপ তৈরি করতে পারেন তৈরি করে সেগুলো খেতে পারেন তাহলে ইনশাআল্লাহ সর্দি-কাশি সমস্যা নিরাময় হয়ে যাবে। 

মাড়ির রক্তপাত নিয়ন্ত্রণে: টমেটোর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি যা মাড়ির রক্তপাত নিয়ন্ত্রণ করতে অর্থাৎ বন্ধ করতে সাহায্য করে। অনেকের বিভিন্ন কারণে মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়ে তাই যাদের এই সমস্যা রয়েছে তারা বেশি বেশি টমেটো খাওয়ার চেষ্টা করবেন। এই ছিল টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতা এগুলো ছাড়াও টমেটোর আরো অনেক উপকারিতা রয়েছে। 

টমেটো খাওয়ার নিয়ম 

টমেটো খাওয়ার অনেক পুষ্টিগুণ এবং উপকারিতা রয়েছে। আর টমেটো একটি শীতকালীন সবজি তাই শীতের সময় এটি বেশি পরিমাণ পাওয়া যায় এবং বছরের অন্যান্য সময় অল্প পরিমাণ পাওয়া যায়।অনেক মানুষ রয়েছে যারা খালি মুখে টমেটো চিবিয়ে খেতে পছন্দ করে এতে করে বেশি পুষ্টি পাওয়া যায়। কিন্তু টমেটো খাওয়ার নিয়ম রয়েছে। 

বর্তমানে অনেকেই টমেটোর সস বাজার থেকে কিনে খেয়ে থাকে এগুলোর মধ্যে অনেক থাকে যেগুলোতে ভেজাল দেওয়া । এবং বাজারে যেগুলো টমেটো কিনতে পাওয়া যায় এগুলো প্রায় টমেটোর মধ্যে কীটনাশক দেওয়া থাকে। তাই আপনি যদি আপনার নিজ হাতে টমেটোর গাছ লাগাতে পারেন এবং কোন প্রকার কীটনাশক ছাড়াই টমেটো ফলাতে পারেন তাহলে সে টমেটো খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য অনেক বেশি উপকারী হবে। 

আরো পড়ুনঃ শসা খাওয়ার ১৫টি উপকারিতা - শসা খাওয়ার অপকারিতা

টমেটো যেভাবে খাবেন তার নিয়ম হলো প্রথমে একটি টমেটো নিবেন এবং সেটি ভালোভাবে পানি দিয়ে ধুয়ে নিবেন তারপরে টমেটো টি কাটবেন কাটার পরে টমেটোর মধ্যে হালকা পরিমাণ লবণ মেশাতে পারেন এবং তারপরে খেতে পারেন। আর আপনি টমেটো যেভাবে খাবেন সেভাবেই পুষ্টিগুণ এবং উপকারিতা পাবেন তাই আপনি যদি চান সালাদ হিসেবে খেতে পারেন তরকারি রান্না করে খেতে পারেন আপেলের মত চিবিয়ে খেতে পারেন যেভাবেই খাবেন উপকারিতা পাবেন। 

টমেটোর পুষ্টিগুন

টমেটোর মধ্যে বিভিন্ন রকম পুষ্টিগুণ রয়েছে যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী। তবে যখন টমেটো পেকে লাল হয়ে যায় তখন সেটার পুষ্টিগুণ আরো বেশি বৃদ্ধি পায়। ১০০ গ্রাম পাকা টমেটোর মধ্যে যে সকল পুষ্টিগুণ রয়েছে এবং যে পরিমাণ পুষ্টিগুণ রয়েছে সেটা জেনে রাখুন।

১০০ গ্রাম টমেটোর পুষ্টিগুণ 

  • ভিটামিন সি ২৭ মিলিগ্রাম
  • ক্যারোটিন ৩৫০ মাইক্রো গ্রাম
  • রিবোফ্লাভিন ০.০৬ মিলিগ্রাম 
  • থায়ামিন ০.১৩ মিলিগ্রাম 
  • ক্যালসিয়াম ৪৮ মিলিগ্রাম 
  • লৌহ ০.৪০ মিলিগ্রাম 
  • ফসফরাস ২০ মিলিগ্রাম 
  • ভিটামিন এ
  • শর্করা
  • আমিষ
  • অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট

টমেটো মুখে মাখার উপকারিতা

আমাদের ত্বকের জন্য টমেটো অনেক উপকারী। আপনি যদি নিয়মিত আপনার ত্বকে বা মুখে লাগাতে পারেন তাহলে এতে করে বিভিন্ন ধরনের উপকারিতা পাবেন। টমেটো মুখে মাখার উপকারিতা গুলো হলো ত্বক উজ্জ্বল করে, ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করে, ত্বকের আদ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে, ব্রণের সমস্যা দূর করে, ত্বকে মৃত কোষ থাকলে সেগুলো দূর করতে সাহায্য করে, ত্বকে বয়সের ছাপ কমায়, ত্বক গ্লো করে, ত্বকের জ্বালাপোড়া কমাতে টমেটো বেশ উপকারী, সূর্যের আলোতে পোড়া ত্বকের কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে এছাড়াও আরো অনেক উপকারিতা রয়েছে টমেটো মুখে মাখার। তাই এই সকল উপকারিতা পেতে চাইলে টমেটো মুখে ব্যবহার করতে পারেন। এটা বাজারে কিনতে পাওয়া ক্রিম এবং ফেসওয়াস এর থেকে অনেক বেশি কার্যকরী এবং নিরাপদ তাই নির্দ্বিধায় ত্বকের উপকারিতা পেতে টমেটো ব্যবহার করতে পারবেন। 

টমেটো খেলে কি ওজন বাড়ে

বিভিন্ন রকম খাবার রয়েছে যেগুলো খাওয়ার কারণে আমাদের ওজন অনেক বেড়ে যায় সেজন্য অনেকে জানতে চেয়ে থাকেন টমেটো খেলে কি ওজন বাড়ে এই বিষয়ে আসলে টমেটো খেলে ওজন বাড়ে না টমেটো ওজন কমাতে সাহায্য করে। তাই আপনার যদি ওজন বেশি থাকে তাহলে ওজন কমানোর জন্য টমেটো খেতে পারেন।  

রাতে অনেকে বেশি পরিমাণ ভাত খেয়ে থাকে যা ওজন বাড়ার জন্য অনেকটা দায়ী তাই রাতের বেলা ভাত বেশি না খেয়ে দুই থেকে একটা টমেটো খান তাহলে টমেটো পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে এবং অতিরিক্ত ওজন কমাতে সাহায্য করবে। আশা করছি একটা ধারণা পেয়ে গেলেন টমেটো খেলে কি ওজন বাড়ে কিনা। 

সকালে খালি পেটে টমেটো খাওয়ার উপকারিতা 

টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতার কথা ইতোমধ্যে বলা হয়েছে। কিন্তু অনেকে জানতে চাই সকালে খালি পেটে টমেটো খাওয়ার উপকারিতা সকালে খালি পেটে টমেটো খাওয়ার কিছু উপকারিতা রয়েছে যেমন যাদের উচ্চ রক্তচাপের মত সমস্যা রয়েছে তাদের উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে সকালে খালি পেটে টমেটো খেলে। 

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে সকালে খালি পেটে টমেটো খেলে। সকালে খালি পেটে টমেটো খেলে রক্তস্বল্পতা সমস্যার জন্য অনেক উপকারী। এছাড়াও সকালে খালি পেটে টমেটো খাওয়ার অনেক উপকারিতা রয়েছে যেমন গ্যাসের সমস্যা কমাতে সাহায্য করে বদহজমে সমস্যা কমাতে সাহায্য করে। তাই এই সকল উপকারিতা পেতে সকালে খালি পেটে টমেটো খেতে পারেন। 

টমেটো খাওয়ার অপকারিতা 

টমেটো খাওয়ার এত সকালে উপকারিতা থাকার পরেও রয়েছে কিছু টমেটো খাওয়ার অপকারিতা। কথায় আছে না যে জিনিসের উপকারিতা রয়েছে সে জিনিসের অপকারিতাও রয়েছে। তাই শুধু উপকারিতা জানলে হবে না অপকারিতা সম্পর্কেও জানতে হবে। তবে টমেটো খাওয়ার বেশি অপকারিতা নেই কয়েকটি অপকারিতা রয়েছে সেগুলো হলোঃ

১। অতিরিক্ত টমেটো খাওয়ার কারণে অনেকের এলার্জি হতে পারে তাই যাদের ঐরকম সমস্যা রয়েছে তারা টমেটো খাবেন না।

২। যাদের পেটের পিড়ার সমস্যা রয়েছে তারা টমেটো খাওয়া থেকে বিরত থাকবেন। কারণ টমেটো খাওয়ার ফলে পেটের পিড়া বেশি হয়ে যেতে পারে।

আরো পড়ুনঃ কাজুবাদাম এর ১১ টি উপকারিতা - কাজু বাদাম খাওয়ার নিয়ম

৩। অতিরিক্ত টমেটো খাওয়ার ফলে এর কিছু সাইড ইফেক্ট রয়েছে যার ফলে আপনার কিডনিতে পাথর হতে পারে তাই কখনোই অতিরিক্ত বেশি পরিমাণ টমেটো খাবেন না।

৪। টমেটোর মধ্যে রয়েছে সাইট্রিক এসিড যেটা পাকস্থলীতে গিয়ে অম্লের প্রবাহ সৃষ্টি করতে সাহায্য করে আর এতে করে গ্যাসের সমস্যা বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই অতিরিক্ত বেশি পরিমাণ টমেটো কখনোই খাবেন না। 

৫। টমেটো খাওয়ার অপকারিতার ভেতর আরেকটি অপকারিতা হলো অতিরিক্ত টমেটো খাওয়ার ফলে গেটে বাঁত হওয়ার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৬।টমেটোর মধ্যে এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া রয়েছে যেটাকে বলা হয়ে থাকে সালমোনেলা যার ফলে অতিরিক্ত পরিমাণ টমেটো খাওয়ার কারণে ডায়রিয়ার মত সমস্যা হতে পারে। তাই কখনোই অতিরিক্ত পরিমাণ টমেটো খাবেন না পরিমাণ মতো এবং নিয়ম মেনে টমেটো খাবেন তাহলে টমেটো খাওয়ার অপকারিতা আপনার কোন ক্ষতি করতে পারবেনা। আশা করছি টমেটো খাওয়ার অপকারিতা সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে পারলেন। 

টমেটো খাওয়ার ১২ টি উপকারিতা - টমেটো খাওয়ার অপকারিতা: শেষ কথা

টমেটো খাওয়ার উপকারিতা টমেটো খাওয়ার নিয়ম টমেটোর পুষ্টিগুণ টমেটো মুখে মাখার উপকারিতা টমেটো খেলে কি ওজন বাড়ে সকালে খালি পেটে টমেটো খাওয়ার উপকারিতা টমেটো খাওয়ার অপকারিতা কি কি এই সকল বিষয়ে আজকের আর্টিকেল আলোচনা করা হয়েছে আশা করছি আশা করছি এই সকল বিষয়ে ভালোভাবে জানতে পেরেছেন। 

তারপরেও যদি এই বিষয়ে আরো কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। এবং এরকম আরো তথ্যমূলক আর্টিকেল পড়তে আমাদের JONOPRIYO BLOG ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করতে পারেন। এতক্ষন আমাদের সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন