কাতিলা গাম এর ১০ টি উপকারিতা - কাতিলা গাম খাওয়ার নিয়ম

কাতিলা গাম এর উপকারিতা কি তা আজকের এই পোস্ট এর মাধ্যমে জানতে পারবেন। কাতিল গাম এর অনেক উপকারিতা রয়েছে কিন্তু সেগুলো সম্পর্কে অনেকেই অজানা এমনকি অনেকে হয়তো কাতিলা গাম এর নাম কখনো শুনেই নি।
কাতিলা গাম এর ১০ টি উপকারিতা

তো চলুন আপনারা যারা কাতিলা গাম এর উপকারিতা কাতিলা গাম এর অপকারিতা কাতিলা গাম খাওয়ার নিয়ম সহ এই সম্পর্কিত আরো বেশ কিছু বিষয় জানতে চান তারা নিজের অংশগুলো থেকে ধারাবাহিকভাবে জেনে নিন। 

সূচিপত্রঃ কাতিলা গাম এর ১০ টি উপকারিতা - কাতিলা গাম খাওয়ার নিয়ম

কাতিলা গাম এর উপকারিতা - কাতিলা গাম খেলে কি হয়

কাতিলা গাম এর উপকারিতা অনেকগুলো রয়েছে তার মধ্যে কিছু উপকারিতা সম্পর্কে আপনাদের জানানো হলো আশা করছি আপনারা যারা কাতিলা গাম এর উপকারিতা সম্পর্কে জানেন না এগুলো জানতে পেরে উপকৃত হবেন। কাতিলা গাম এর ১০ টি উপকারিতা হলো। 

  • কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করে
  • যৌন শক্তি বৃদ্ধি করে
  • শরীর ঠান্ডা রাখে
  • ক্লান্তি দূর করে
  • ত্বকের জন্য উপকারী
  • হজম শক্তি বাড়ায়
  • চুলের জন্য উপকারী
  • শরীরে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দেয়
  • শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করে
  • হাত পায়ের জ্বালাপোড়া দূর করে

কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করে

অনেকের কোষ্ঠকাঠিন্যের মত সমস্যা রয়েছে আর এই কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করতে কাতিলা গাম অনেক উপকারি। এর মধ্যে রয়েছে রেচন এবং এনজাইম যা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা নিরাময় করতে কাজ করে থাকে। সেজন্য যাদের কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা রয়েছে তারা কাতিলা গাম খেতে পারেন। 

যৌন শক্তি বৃদ্ধি করে

যাদের যৌন শক্তি কম রয়েছে তাদের জন্য কাতিলা গাম অনেক উপকারী। যদি নিয়মিত কাতিলা গাম খেতে পারেন তাহলে এটা যৌন শক্তি তাড়াতাড়ি বৃদ্ধি করবে এরকম যদি বীর্য পাতলা হয়ে থাকে তাহলে সেটা ঘন করবে। তাই যৌন শক্তি বৃদ্ধি করতে পারতেন বীর্য ঘন করতে কাতিলা গাম খেতে পারেন। 

আরো পড়ুন: তালমাখনা খাওয়ার ১০ টি উপকারিতা - তালমাখনা খাওয়ার অপকারিতা

শরীর ঠান্ডা রাখে

গরমের সময় বাইরে কাজ করার পরে শরীর অত্যন্ত গরম হয়ে যায় এবং এতে করে শরীর অনেক দুর্বল হয়ে পড়ে তাই আপনি যদি কাতিলা গাম এবং তার সাথে তাল মিছরি লেবুর রস এবং মধু একসাথে মিশিয়ে খেতে পারেন তাহলে শরীর ঠান্ডা থাকবে। 

ক্লান্তি দূর করে

অনেক সময় অতিরিক্ত পরিশ্রমের কাজ করার ফলে শরীর অতিরিক্ত ক্লান্ত হয়ে পড়ে। সেজন্য যদি শরীরে ক্লান্তি দূর করতে চান তাহলে সেই সময় কাতিলা গাম খেতে পারেন তাহলে এটা দ্রুত আপনার শরীরের ক্লান্তি ভাব দূর করে দেবে। 

ত্বকের জন্য উপকারী

কাতিলা গাম এর ১০ টি উপকারিতার ভেতর আরেকটি কার্যকরী উপকারিতা হলো এটা ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে যেমন ত্বকের কালচে দাগ, ব্রণ বা ব্রণের দাগ এছাড়াও ত্বকের আরো বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে অনেক উপকারী এই কাতিলা গাম। এরমধ্যে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি নামক উপাদান রয়েছে। 

হজম শক্তি বাড়ায়

কাতিলা গাম এর এরমধ্যে উপস্থিত এনজাইম রয়েছে যা হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে বেশ কার্যকরী। কারো যদি হজম শক্তি কম থাকে এবং খাবার খাওয়ার পরে খাবার ভালোভাবে হজম না হয় এবং মলত্যাগের সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে তারা এই কাতিলা গাম খেয়ে দেখতে পারেন ভালো উপকারিতা পাবেন। 

চুলের জন্য উপকারী

অনেকের চুলের বিভিন্ন রকম সমস্যা রয়েছে যেমন চুল ঝরে যাওয়ার সমস্যা রয়েছে আর এই সমস্যাগুলো সমাধান করতে কাতিলা গাম অনেক উপকারী। এর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম এবং প্রোটিন যা চুলের স্বাস্থ্য ভালো রাখে এতে করে চুল পড়া প্রতিরোধ হয়। 

শরীরে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দেয়

শরীরে বিষাক্ত পদার্থ জমা হয়ে গেলে বিভিন্ন রকম রোগ হয়ে থাকে। কাতিলা গাম শরীরের বিষাক্ত পদার্থ বের করে দিতে কাজ করে এবং মেটাবলিজম ঠিক রাখতে সাহায্য করে তাই এই উপকারিতা পেতে কাতিলা গাম খেতে পারেন। 

শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করে

অতিরিক্ত পরিশ্রমের কাজ করার ফলে শরীরে শক্তি কমে যায় এতে করে শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। সেজন্য আপনি যদি চান শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করতে তাহলে কাতিলা গাম খেতে পারেন। এটা দ্রুত শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করতে কাজ করে থাকে। 

হাত পায়ের জ্বালাপোড়া দূর করে

অনেকের হাত-পা জ্বালাপোড়া করার সমস্যা রয়েছে। কিন্তু আপনার যদি হাত-পা জ্বালাপোড়া করার সমস্যা থাকে তাহলে সেটা ভালো করার জন্য কাতিলা গাম অনেক উপকারী হবে। আপনি যদি নিয়মিত পরিমান মত কাতিলা গাম খেতে পারেন তাহলে এটা হাত পায়ের জ্বালাপোড়া দূর করবে ইনশাআল্লাহ। 

কাতিলা গামের পুষ্টিগুন 

কাতিলা গাম এত উপকারী হওয়ার কারণ হল এর মধ্যে রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। আর এই পুষ্টিগুণ গুলো যখন আমাদের শরীরে প্রবেশ করে তখন সেগুলো অনেক উপকারী হিসাবে কাজ করে। কাতিলা গামের পুষ্টিগুন গুলো হলোঃ 

  • ক্যালোরি
  • ফাইবার
  • কার্বোহাইড্রেট
  • সোডিয়াম
  • হাইড্রেটস 
  • প্রোটিন

এই সকল পুষ্টি উপাদান কাতিলা গামের মধ্যে থাকার কারণে কাতিলা গাম আমাদের শরীরের জন্য এত উপকারী। 

কাতিলা গাম কখন খেতে হয় - কাতিলা গাম খাওয়ার নিয়ম 

কাতিলা গাম এর ১০ টি উপকারিতা যদি পরিপূর্ণভাবে পেতে চান তাহলে কাতিলা গাম খাওয়ার নিয়ম জানতে হবে। সঠিক নিয়মে খেতে পারলে ভালো উপকারিতা পাবেন। জেনে রাখুন কাতিলা গাম কখন খেতে হয় ও কিভাবে খেতে হয়।

১ চামচ কাতিলা গাম এক গ্লাস পানি মধ্যে ভিজিয়ে রাখবেন কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখার পরে এটা জেলির মত আকার ধারণ করবে। তখন তার সাথে লেবুর রস, তাল মিছরি , মধু একসাথে ভালোভাবে মিশ্রণ করে পান করবেন। তবে যাদের ডায়াবেটিসের সমস্যা হয়েছে তারা বেশি মিষ্টি দিয়ে খাবেন না। 

আরো পড়ুন: তোকমা দানার ১০ টি উপকারিতা - তোকমা খাওয়ার অপকারিতা 

কখন খেতে হয় এটা অনেকে প্রশ্ন করে থাকেন যদি গ্রীষ্মকাল হয় তাহলে সকালে এবং বিকেলে দুই বেলা খেতে পারেন। আর শীতকাল হলে দিনে একবার সকালে খেতে পারেন। এই নিয়মে যদি নিয়মিত খেতে পারেন তাহলে সবচেয়ে ভালো উপকারিতা পাবেন। 

কাতিলা গাম এর অপকারিতা

যে জিনিসের উপকারিতা রয়েছে সে জিনিসের অপকারিতা ও রয়েছে তেমনি কাতিলা গাম এর উপকারিতা থাকলেও রয়েছে বেশ কিছু অপকারিতা। তবে নিয়ম মেনে খেলে কোন ক্ষতি হবে না। কিন্তু সঠিক নিয়মে না খেলে অর্থাৎ নিয়ম মেনে না খেলে এই সকল অপকারিতা হতে পারে। 

  • কাতিলা গাম কিছুটা আঠা জাতীয় সেজন্য এটা বেশিক্ষণ পানিতে ভিজিয়ে না রেখে খেলে পেটের ভিতরে গিয়ে সমস্যা করতে পারে। এমনকি অন্ত্র ব্লক করে দিতে পারে।
  • কোনো ঔষধের সাথে সেবন করলে এটা পেটের ভিতর গিয়ে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।
  • কাতিলা গাম হজম শক্তি বৃদ্ধি করে কিন্তু সঠিক নিয়মে না খেলে এবং বেশি পরিমাণ খেলে হজমে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।
  • মুখে সেবন করা ঔষধের সাথে কাতিলা গাম খেলে ঔষধ এরা গুনাগুন ক্ষমতা কমিয়ে দেয়।
  • কাতিলা গাম কখনো কম সময় পানিতে ভিজিয়ে রেখে খাবেন না তাহলে এটা পেটের ভিতর গিয়ে বিভিন্ন সমস্যা সৃষ্টি করবে।

গর্ভাবস্থায় এবং শিশু দুধ খাওয়া অবস্থায় কাতিলা গাম খেলে এর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পাওয়া যায় নি। তবে বেশি পরিমাণ এবং কম সময় পানিতে ভিজিয়ে রেখে খাবেন না।

কাতিলা গাম কোথায় পাওয়া যায়

কাতিলা গাম বিভিন্ন জায়গায় পেতে পারেন যেমন আপনার নিকটস্থ বাজারের যেখানে গাছ গাছালি ঔষধ বিক্রি করা হয় সেগুলো দোকানে খোঁজ করলে পেয়ে যাবেন। অথবা অনলাইনের মাধ্যমে দারাজ থেকে অর্ডার করলে ঘরে বসেই পেয়ে যাবেন। 

আরো পড়ুন: প্রতিদিন কতটুকু কিসমিস খাওয়া উচিত - কিসমিস এর ১৬ টি উপকারিতা

তাই আপনি প্রথমে আপনার নিকটস্থ বাজারে খুঁজে দেখবেন যদি না পান তাহলে দারাজ থেকে অর্ডার করতে পারেন। তবে অর্ডার করার আগে সেখানে অনেক রিভিউ দেখতে পাবেন সেগুলো দেখে নিবেন। আশা করছি জানতে পারলেন কাতিলা গাম কোথায় পাওয়া যায়।  

কাতিলা গাম দাম

কাতিলা গাম এর দাম নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয় কারণ বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন দামে বিক্রি হয়ে যাবে। অনেক জায়গায় কিছুটা কম দামে পাওয়া যায় আবার অনেক জায়গায় বেশি দাম হয়ে থাকে। তারপরেও সব জায়গায় হিসাব করে একটি গড় দাম জানা যায়। সেই হিসেবে প্রতি কেজি কাতিলা গামের দাম 900 টাকা থেকে ১০০০ টাকা হয়ে থাকে। 

এবং ৫০০ গ্রাম কাতিলা গামের দাম ৪০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। তবে আপনার এলাকায় কেমন দাম সেটা ভালো করে জেনে নিবেন। এখানে যে দাম বলা হল এ থেকে যদি বেশি দাম কেউ চায় তাহলে সেখান থেকে নিবেন না। দারাজ থেকে নিতে পারেন তাহলে অনেক কম টাকায় নিতে পারবেন। 

কাতিলা গাছের ছবি

কাতিলা গাম এর ১০ টি উপকারিতা এবং কাতিলা গাম খাওয়ার নিয়ম তো জানতে পেরে গেলেন কিন্তু আমাদের মধ্যে অনেকে রয়েছে যারা কাতিলা গাছের ছবি দেখতে চেয়ে থাকেন যে কাতিলা গাছের ছবি দেখতে কেমন হয়। তাই দেখে নিন কাতিলা গাছের ছবি। 

কাতিলা গাছের ছবি

photo: facebook.com

কাতিলা গাম এর উপকারিতা - কাতিলা গাম খাওয়ার নিয়ম: শেষ কথা 

প্রিয় বন্ধুরা আশা করছি আজকের আর্টিকেল থেকে আপনারা ভালোভাবে জানতে পেরেছেন কাতিলা গাম এর ১০ টি উপকারিতা কাতিলা গাম খাওয়ার নিয়ম কাতিলা গাছের ছবি কাতিলা গামের পুষ্টিগুন কাতিলা গাম এর অপকারিতা কাতিলা গাম কোথায় পাওয়া যায় এবং কাতিলা গাম দাম কত। 

আশা করছি এগুলো বিষয় জানতে পেরে আপনারা অনেকটা উপকৃত হবেন। তারপরও যদি আপনাদের এই বিষয়ে আরো কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট লিখে কমেন্ট করুন। এছাড়াও এরকম আরও বিভিন্ন বিষয় জানতে আমাদের JONOPRIYO BLOG ওয়েবসাইট ঘুরে দেখতে পারেন। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন