ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা - ভাতের মাড়ের ক্ষতিকর দিক

ভাত আমাদের প্রতিদিনের খাবার। ভাত খেতে সবাই পছন্দ করি কিন্তু আপনি কি জানেন ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা রয়েছে। আপনি যদি নিয়মিত ভাতের মাড় খান তাহলে সকল উপকারিতা পাবেন।আজকের আর্টিকেল এর মাধ্যমে আমরা জানবো ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা এবং ভাতের মাড়ের ক্ষতিকর দিক গুলো সম্পর্কে।
ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা

এছাড়াও ভাতের মাড় আরও বিভিন্ন রকম উপকারে আসে তাই আপনি যদি ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা ভাতের মাড়ের ক্ষতিকর দিক সহ এই সম্পর্কিত সকল বিষয় জানতে চান তাহলে পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ে ফেলুন। 

পোস্ট সূচিপত্রঃ ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা - ভাতের মাড়ের ক্ষতিকর দিক 

ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা

ভাত রান্না করার সময় ভাতের মধ্যে থেকে কিছু পরিমাণ ফ্যান বের হয় যেটাকে আমরা বলে থাকি ভাতের মাড়। তবে বেশিরভাগ মানুষই ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা সম্পর্কে জানে না সেজন্য ভাত রান্না করার সময় ভাতের মাড় বের করে ফেলে দেয়।কিন্তু এই ভাতের মাড়ের মধ্যে রয়েছে অনেক গুনাগুন। চলুন জেনে নেওয়া যাক ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা গুলো। 

১. ভাতের মাড় শরীরের এনার্জি বৃদ্ধি করে

অতিরিক্ত পরিশ্রম করার ফলে অথবা কোন কাজ শুরু করার আগে যদি শরীরে এনার্জি বা শক্তি না পান তাহলে ভাতের মাড় খেতে পারেন এটা শরীরে তৎক্ষণাৎ এনার্জি বৃদ্ধি করে এবং শক্তি যুগিয়ে থাকে। তাই বলবো শরীরের এনার্জি বা শক্তি তৎক্ষণাৎ বৃদ্ধি করতে চাইলে ভাতের মাড় অনেক উপকারী হবে।

২. ভাতের মাড় ক্লান্তি ভাব দূর করে

ভাতের মাড় তরল এবং এর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট। তাই আপনি যদি ভাতের মাড় খান তাহলে আপনার পানির ঘাটতি পূরণ হবে এবং শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণ কার্বোহাইড্রেট প্রবেশ করবে এতে করে ক্লান্তি ভাব দূর হয়ে যাবে। সেজন্য যদি ক্লান্তি বোধ করেন তাহলে ভাতের মাড় খেতে পারেন ভালো উপকারিতা পাবেন। 

৩. ভাতের মাড় কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করে

যাদের কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা রয়েছে তাদের জন্য ভাতের মাড় অনেক উপকারী। কারণ এই ভাতের মাড় এর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার যা আমাদের শরীরের মেটাবলিজম শক্তি বৃদ্ধি করে এতে করে হজম শক্তি বৃদ্ধি পায় এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের মত সমস্যা নিরাময় হয়ে যায়। সেজন্য আপনার যদি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থাকে তাহলে ভাতের মাড় খাবেন। 

আরো পড়ুনঃ টক দই খাওয়ার ১০ টি উপকারিতা ও টক দই এর ক্ষতিকর দিক

৪. ভাতের মাড় উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে

ভাতের মাড় উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। যাদের উচ্চ রক্তচাপের মত যাদের মধ্যে সমস্যা রয়েছে তাদের সেরা একটি খাবার হল ভাত কারণ ভাতের মধ্যে সোডিয়াম এর পরিমাণ অনেক কম রয়েছে যা উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। সেই সাথে ভাতের মাড় খেলেও উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। 

৫. ভাতের মাড় ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে

যাদের ত্বকের উজ্জ্বলতা অনেক কম তাদের ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করার জন্য ভাতের মাড় অনেক উপকারী। ভাত থেকে যখন ভাতের মাড় বের হয় তখন সেগুলো রেখে দিয়ে ঠান্ডা করে নিবেন এবং ঠান্ডা হয়ে গেলে সেগুলো ত্বকের মধ্যে ভালো করে লাগাবেন এভাবে কিছুদিন ভাতের মাড় ত্বকের মধ্যে ব্যবহার করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে। 

৬. ভাতের মাড় ব্রণের সমস্যা নিরাময় করে

ভাতের মাড়ে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি নামক একটি উপাদান সেজন্য আপনার মুখে যদি ব্রণ থাকে তাহলে মুখের মধ্যে ব্রণের ওপর ভাতের মাড় মাখেন এবং কয়েকদিন নিয়ম করে দুইবেলা মাখলে মুখের ব্রণ ভালো হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ। 

৭. ভাতের মাড় চুলের সৌন্দর্য বাড়ায় 

চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে ভাতের মাড় বেশ উপকারী। যদি গোসলের আগে ৩০ মিনিট করে চুলে ভাতের মাড় ভালো করে লাগিয়ে রাখতে পারেন তাহলে এটা চুলের সৌন্দর্য অনেক বৃদ্ধি করবে। ভালো ফলাফল পেতে নিয়মিত ব্যবহার করবেন। 

৮. ভাতের মাড় ডায়রিয়া নিরাময় করে

ডায়রিয়া হলে কিছুটা নরম তরল খাবার খাওয়া অনেক উপকারী। তাই কারো যদি ডায়রিয়া হয় তাহলে ভাতের মাড় খেতে পারেন তাহলে খুব তাড়াতাড়ি ডায়রিয়া নিরাময় হবে ইনশাআল্লাহ। 

৯. ভাতের মাড় পাকস্থলীর জন্য উপকারী

পাকস্থলীর বিভিন্ন রকম সমস্যা দূর করে পাকস্থলী ঠিক রাখতে ভাতের মাড় বেশ উপকারী। অনেকের কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা রয়েছে খাবার ঠিকমতো হজম হয়না তাদের জন্য ভাতের মাড় বেশ উপকারী। তাই পাকস্থলী ভালো রাখতে নিয়মিত ভাতের মাড় খেতে পারেন।

১০. ভাতের মাড় বিভিন্ন মৌসুমি রোগ প্রতিরোধ করে

জলবায়ু বা আবহাওয়া পরিবর্তন এর কারণে অনেক সময় আমাদের বিভিন্ন রকম অসুখ যেমন জ্বর, সর্দি বা কাশি হয়ে থাকে। আর এই অসুখ গুলো প্রতিরোধ করতে ভাতের মাড় বেশ উপকারী। নিয়মিত ভাতের মাড় খেলে এসব রোগ হওয়ার সম্ভাবনা থাকেনা।

ভাতের মাড় খাওয়ার নিয়ম 

ভাতের মাড় খাওয়ার নিয়ম হলো ভাত রান্না করার সময় মাড় গুলো বের করে নিয়ে যখন হালকা হালকা গরম থাকবে তখন সেইগুলো ভাতের মাড়ের মধ্যে হালকা পরিমাণ লবণ মিশিয়ে চুমুক দিয়ে পান করবেন। 

আর আপনার বাসায় যদি ঘি থাকে তাহলে ভাতের মাড়ের সাথে মিশিয়ে খেতে পারেন তাহলে আরো ভালো উপকারিতা পাবেন। এই নিয়ম যদি নিয়মিত ভাতের মাড় খান তাহলে বিভিন্ন রকম উপকারিতা পাবেন।

ভাতের মাড়ের রূপচর্চা - ভাতের মাড় মুখে দিলে কি হয়

ভাতের মাড় দিয়ে আপনি আপনার রূপচর্চা করতে পারবেন। আপনার ত্বকের বা মুখের যদি উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়ে যায় বা কালচে কোন দাগ থাকে ব্রণ থাকে রুক্ষ সুক্ষ হয়ে যায় ত্বকের আদ্রতা হারিয়ে যায় এবং মুখের চামড়া যদি টানটান না থাকে তাহলে এ সকল সমস্যার সমাধান করতে ভাতের মাড় ব্যবহার করে রূপচর্চা করতে পারে। 

ভাতের মাড়ের রূপচর্চা করার জন্য প্রথমে ভাতের মধ্যে থেকে মাড় বের করে নিবেন এবং সেগুলো ছাকনা দিয়ে ভালো করে সেকে নিবেন। তারপর সেগুলো আপনার ত্বকের মধ্যে ভালো করে লাগাবেন ২০-৩০ মিনিট রাখার পরে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন। এভাবে নিয়মিত কয়েক দিন ভাতের মাড় ত্বকে লাগালে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।

আরো পড়ুনঃ মাশরুম এর ১৮ টি উপকারিতা - মাশরুম খাওয়ার নিয়ম 

এছাড়া ত্বকের যদি আদ্রতা হারিয়ে যায় তাহলে অ্যালোভেরা জেলের সাথে ভাতের মাড় ভালোভাবে মিশিয়ে ত্বকের মধ্যে লাগাবেন তাহলে ত্বকের আদ্রতা ফিরে আসবে। এছাড়া আপনার চোখের নিচে যদি কালো দাগ পড়ে তাহলে ভাতের মাড় একটু গাঢ় করে নিয়ে চোখের নিচের কালো দাগে লাগালে চোখের নিচের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে। দুধ এবং ভাতের মাড় একসাথে মিশিয়ে ত্বকে লাগালেও ভালো উপকারিতা পাবেন। 

ভাতের ফ্যান খেলে কি মোটা হয়

হ্যা নিয়মিত ভাতের ফ্যান খেলে শরীর স্বাস্থ্য কিছুটা মোটা হয়। নিয়মিত ভাতের ফ্যান খেলে শরীরে চর্বি বৃদ্ধি পাবে এতে করে এবং শরীরের কোলেস্টরেল বৃদ্ধি করে এতে করে স্বাস্থ্য মোটা হয়ে যায়। তাই আপনি যদি কিছুটা মোটা হতে চান তাহলে নিয়মিত ভাতের ফ্যান খাবেন। 

ভাতের মাড়ের ক্ষতিকর দিক

ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা ইতোমধ্যে আমরা জানতে পেরেছি এবার আমরা জানবো ভাতের মাড়ের ক্ষতিকর দিক। ভাতের মাড়ের তেমন একটা অপকারিতা নেই তবে অতিরিক্ত পরিমাণ এবং নিয়ম না মেনে খাওয়ার ফলে এইগুলো অপকারিতা দেখা দিতে পারে।

  • যারা মোটা তারা বেশি বেশি ভাতের মাড় খেলে তাদের ওজন আরো বেড়ে যাবে 
  • অতিরিক্ত ভাতের মাড় খাওয়ার ফলে শরীরের চর্বি বেড়ে যায় 
  • গরম অথবা অতিরিক্ত ভাতের মাড় খেলে ডায়রিয়া হতে পারে
  • যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে তারা ভাতের মাড় খেলে ডায়াবেটিস বেড়ে যেতে পারে
  • বেশি বেশি ভাতের মাড় খাওয়ার ফলে অন্য খাবার কম খাওয়া পড়ে এতে করে সেগুলো খাবার না খাওয়ার ফলে পুষ্টির ঘাটতি দেখা দিতে পারে।

ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা - ভাতের মাড়ের ক্ষতিকর দিক: শেষ কথা 

প্রিয় বন্ধুরা আজকের আর্টিকেলটি পড়ে আশা করছি আপনারা ভাতের মাড়ের ১০ টি উপকারিতা এবং ভাতের মাড়ের ক্ষতিকর দিক গুলো সহ কিভাবে ভাতের মাড় খেতে হয় তার নিয়ম সঠিক ভাবে জানতে পেরেছেন। আশা করছি এগুলো বিষয়ে জানতে পেরে আপনারা কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন। তাই যদি কিছুটা হলে উপকৃত হন তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। 

আরো পড়ুনঃ ছোলার ১২ টি উপকারিতা ও অপকারিতা - কাঁচা ছোলা খাওয়ার নিয়ম 

এবং এই বিষয়ে যদি আপনার আরো কোন কিছু জানার থাকে তাহলে সেটা আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন আমরা তাহলে সেটা সঠিক তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ। তো সবাই ভালো থাকবেন আজকের মত এখানেই শেষ করছি। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন