কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া - কবিরা গুনাহ মাফের উপায়

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় বন্ধুরা আজকের এই আর্টিকেল এর মূল আলোচ্য বিষয় হলো কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া কবিরা গুনাহ মাফের উপায়। আল্লাহ আমাদেরকে এই পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন তার এবাদত করার জন্য কিন্তু আমরা অনেক সময় অনেক পাপ কাজ করে থাকি যার ফলে আমাদের গুনাহ হয়ে থাকে।
কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া

গুনাহ বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে আজকে আপনাদের জানাবো কবিরা গুনাহ কি কি কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া কবিরা গুনাহ মাফের উপায় এবং কবিরা গুনাহ মাফের তওবা সম্পর্কে তাই নিচের অংশগুলো মনোযোগ সহকারে পড়ুন। 

পোস্ট সূচিপত্রঃ কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া - কবিরা গুনাহ মাফের উপায়

কবিরা গুনাহ কি কি

কবিরা গুনাহ যেটাকে বলা হয় সবচেয়ে বড় গুনাহ। আমরা প্রতিনিয়ত কতশত গুনাহ করে যাচ্ছি কিন্তু আপনি কি জানেন কবিরা গুনাহ কি কি? হয়তো জানেন না কারন আপনি যদি এগুলো গুনাহ সম্পর্কে অবগত থাকতেন তাহলে অবশ্যই গুনাহ করা থেকে বিরত থাকতেন। প্রায় ১০০ টির মত কবিরা গুনাহ রয়েছে তার মধ্যে যেগুলো অন্যতম সেগুলোর নাম জেনে নিন। 

  1. শিরক করা অর্থাৎ আল্লাহ অন্য কারো উপাসনা করা
  2. আল্লাহর রহমত হতে নিরাশ হওয়া
  3. আল্লাহ এবং রাসূলের উপর দোষারোপ করা
  4. নামাজ ত্যাগ করা
  5. পিতা মাতার অবাধ্য হওয়া
  6. আল্লাহর শাস্তি থেকে নিজেকে নিরাপদ ভাবা
  7. মানুষকে হত্যা করা অন্যায় ভাবে
  8. যাদু টোনা বা বান মারা
  9. চুরি করা
  10. ডাকাতি করা
  11. সমকামিতা
  12. ব্যভিচার
  13. জিহাদের ময়দান থেকে পালানো
  14. আল্লাহকে ভয় না করা
  15. ওয়াদা দিয়ে ওয়াদা ভঙ্গ করা
  16. মদ্যপান করা
  17. ধূমপান ও মাদকদ্রব্য সেবন করা
  18. জুয়া খেলা
  19. নামাজে অবহেলা করা
  20. ক্ষমতা থাকার পরেও হজ না করা
  21. যাকাত দেওয়ার মতো সম্পদ থাকলে যাকাত না আদায় করা
  22. মিথ্যা কসম খাওয়া
  23. মিথ্যা কসম কেটে জিনিসপত্র বিক্রি করা
  24. রমজানের রোজা না রাখা
  25. সুদ দেওয়া সুদ নেওয়া এবং সুদের সাক্ষী থাকা
  26. এতিম অনাথের সম্পত্তি দখল করা
  27. মারামারি করা এবং গালি দেওয়া
  28. ঘুষ খাওয়া
  29. খেলার ছলে কোন প্রাণীকে নিক্ষেপ যোগ্য অস্ত্রের লক্ষ্যবস্তু বানানো
  30. মিথ্যা শপথ করা
  31. চাঁদাবাজি করা
  32. আল্লাহর আইন দ্বারা বিচার না করা
  33. মিথ্যা সাক্ষী দেওয়া
  34. পুরুষের নারী বেশ ধারণ করা
  35. নারীর পুরুষ বেশ ধারণ করা
  36. ওজনে কম দেওয়া
  37. নামাজেরত ব্যক্তির সামনে দিয়ে যাওয়া
  38. প্রাণীর ছবি আর্ট করা
  39. কোন কারণ ছাড়াই তালাক চাওয়া
  40. কোন মুসলিমকে কাফের বলা
  41. স্বামীর অবাধ্য হওয়া
  42. আত্মীয়তার সম্পর্ক ছিন্ন করা
  43. মুমিন নারীদের উপর মিথ্যা অভিযোগ করা
  44. লোক দেখানো ইবাদত করা
  45. বেশি বেশি অন্যকে অভিশাপ দেওয়া
  46. স্বামী স্ত্রীর মিলনের কথা জনসম্মুখে প্রকাশ করা
  47. কালো জাদু চর্চা করা
  48. আমানতের খেয়ানত করা
  49. ফরজ কার্য ছেড়ে দেওয়া
  50. নিজের পিতা-মাতা ছাড়া অন্য কাউকে পিতা-মাতা দাবি করা

আরো পড়ুন: যেনাকারী কি জান্নাতে যাবে - যেনা করলে তা থেকে মাফ পাওয়ার কোন উপায় আছে

এই হলো ৫০ টি কবিরা গুনাহ। এগুলো ছাড়াও আরো অনেক কবিরা গুনাহ রয়েছে তবে আমরা ইতিমধ্যে যেগুলো সংগ্রহ করতে পেরেছি সেগুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরেছি। পরবর্তীতে এখানে আরো কিছু কবিরা গুনাহ কি কি সেগুলো যোগ করে দেওয়ার চেষ্টা করব। যদি তাড়াতাড়ি জানতে চান তাহলে নিচে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। 

সবচেয়ে বড় কবিরা গুনাহ

আপনি কি জানেন? সবচেয়ে বড় কবিরা গুনাহ কোনটি? কবিরা গুনাহ প্রায় ১০০ টির মত রয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে বড় কবিরা গুনা হলো শিরক করা। পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বড় জঘন্যতম গুনা হলো আল্লাহর সাথে কোন কিছুকে শরিক করা। 

অর্থাৎ কেউ যদি আল্লাহর ব্যতীত অন্য কোন ব্যক্তিকে বড় মনে করে ক্ষমতাবান মনে করে এবং তার উপাসনা করে। তাহলে এটা আল্লাহর সাথে শিরক করা হয়। আর এই শিরক করার জন্য কবিরা গুনাহ হয়। আর এই গুনাহ এর জন্য জাহান্নামে পেতে হবে ভয়ংকর কঠিন শাস্তি। 

কবিরা গুনাহ মাফের উপায়

পৃথিবীতে অনেক গুনাহ এর কাজ রয়েছে তার মধ্যে উপরের অংশ আপনাদের জানিয়েছি কবিরা গুনাহ কোনগুলো। সেগুলো কবিরা গুনাহ যদি আপনি করে থাকেন তাহলে আপনি হয়তো এখন জানতে চাচ্ছেন কবিরা গুনাহ মাফের উপায়।

আপনি যদি কবিরা গুনাহ মাফ পেতে  চান তাহলে প্রথমে আপনাকে সেই অপরাধ বা গুনাহ থেকে ফিরে আসতে হবে এবং সেই গুনাহ এর জন্য অনুতপ্ত হতে হবে। এবং আল্লাহর কাছে বেশি বেশি তওবা করতে হবে। এবং পরবর্তীতে আপনাকে অনেক বেশি বেশি ভালো কাজের মাধ্যমে সেই গুনাহ গুলোর ক্ষতিপূরণ করতে হবে। সেই সাথে আল্লাহর যত ইবাদত রয়েছে সবগুলো পালন করতে হবে। এরপরে যদি আল্লাহ অনুগ্রহ করে তাহলে হয়তো কবিরা গুনাহ মাফ পেতে পারেন। 

আরো পড়ুন: দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তির ইসলামিক উপায় - দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তির দোয়া  

মনে রাখবেন যদি আল্লাহ অনুগ্রহ করে তবেই কেবলমাত্র কবিরা গুনাহ গুলো মাফ পেতে পারেন।তাহলে আশা করছি বুঝতে পারছেন কবিরা গুনাহ কত খারাপ একটি গুনাহ। তাই আপনি সবসময়ই এগুলো কবিরা গুনাহ থেকে নিজেকে দূরে রাখবেন। আল্লাহ আমাদের সবাইকে সঠিক বুঝ দান করুন এবং সকল পাপ কাজ থেকে বিরত রাখুন। 

কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া

কবিরা গুনাহ মাপ পাওয়ার জন্য আপনাকে সেই গুনা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিতে হবে এবং অনুতপ্ত হতে হবে তারপরে আল্লাহর কাছে বেশি বেশি তওবা এবং ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে তবে কেবলমাত্র কবিরা গুনাহ মাফ করা হতে পারে। এছাড়াও কবিরা গুনাহ মাফ মাপ পাওয়ার জন্য দোয়া রয়েছে সেই দোয়াটি পাঠ করতে পারেন। 

কবিরা গুনাহ মাফের দোয়াটি হলোঃ 

কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া আরবি: استغفرالله هلاجي لا اله الا هوال حي قيوم واتوبو اليهي

কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া বাংলা উচ্চারণ: আস্তাগফিরুল্লা হাল্লাজি লা ইলাহা ইল্লা হুয়াল হাইয়ুম কাইয়ুম ওয়াতুবু ইলাইহি।

কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া বাংলা অর্থ: ক্ষমা প্রার্থনা করছি মহান আল্লাহর কাছে। তিনি ছাড়া কোন উপাস্য নেই। তিনি চিরস্থায়ী চিরঞ্জীব, আমি তার কাছে তাওবা ও ক্ষমা প্রার্থনা করছি।

আমাদের শেষ কথা

প্রিয় বন্ধুরা আশা করছি আজকের পোস্টটি পড়ার পরে আপনারা কবিরা গুনাহ মাফের দোয়া কবিরা গুনাহ মাফের উপায় ভালোভাবে জানতে পেরেছেন। তাই আপনি যদি কবিরা গুনাহ করে ফেলেন তাহলে এইভাবে মাফ পেতে পারেন। এবং যেগুলো কবিরা গুনাহ এর মধ্যে পড়ে সেগুলো কাজ করা থেকে বিরত থাকবেন। আল্লাহ আমাদের সবাইকে সঠিক বুঝ দান করুন। 

এবং আল্লাহর সকল বিধি নিষেধ মেনে চলার তৌফিক দান করুন। আর এই বিষয়ে যদি আপনাদের আরো কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট বক্সে আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন। এবং এরকম আরো ইসলামিক তথ্য পেতে আমাদের JONOPRIYO BLOG ওয়েবসাইট ঘুরে দেখতে পারেন। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন