বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৪ - আদা বীজ কোথায় পাবো

বন্ধুরা আজকে আপনাদের জানাবো বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৩ এবং আদা বীজ কোথায় পাবো বা পাবেন এই সম্পর্কে।বর্তমানে বস্তায় আদা চাষ অনেক জনপ্রিয় এবং লাভজনক হয়ে উঠেছে তাই আপনি যদি বস্তায় আদা চাষ করতে চান তাহলে বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৩ সম্পর্কে জানতে হবে। তাহলে চলুন আজকের এই আর্টিকেল থেকে জেনে নেওয়া যাক বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৩ সম্পর্কে।
বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৩

বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৩ আদা বীজ কোথায় পাবো আদা চাষের উপযুক্ত সময় হাইব্রিড আদা চাষ বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ভিডিও দেখতে এবং জানতে পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ে ফেলুন। 

পেজ সূচিপত্র: বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৩ - আদা বীজ কোথায় পাবো  

বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৩

আদা আমরা মশলা হিসেবে ব্যবহার করে থাকি।প্রতিদিনের তরকারি রান্নাবান্নায় আদার ব্যবহার হয়ে থাকে এছাড়াও আদার আরো অনেক ঔষধি গুণ রয়েছে। কিন্তু বাজারে এখন আদার অনেক দাম তাই আপনি যদি বাসার আশেপাশে জমি থাকে তাহলে সেই জমিতে অথবা বাসার ছাদেও বস্তায় আদা চাষ করতে পারবেন। এবং যদি বেশি পরিমাণ বস্তায় আদা চাষ করতে পারেন তাহলে সেগুলো বিক্রি করে অর্থ উপার্জন পারবেন।আর বস্তায় আদা চাষ করা অনেক সহজ। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি সম্পর্কে। 

মাটি তৈরি

প্রথমে কিছু সিমেন্টের বা যেকোন বস্তা যোগাড় করে নিবেন নেওয়ার পরে একটি ঝুড়ির মধ্যে ৩/৪ ঝুড়ি দোআঁশ বা বেলে দোআঁশ মাটি দিবেন তারমধ্যে ১ ঝুড়ি বালি দিবেন কিছু দানাদার কীটনাশক দিবেন ১ ঝুড়ি জৈব সার এবং ২৫ গ্রাম ফুরাডান এবং এক চামচ পরিমাণ পটাশ সার দিবেন। এগুলো সবকিছু দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিবেন।  

চারা তৈরি 

বস্তায় আদার চারা রোপন করার জন্য প্রথমে চারা তৈরি করে নিতে হবে। সেজন্য কিছু আদা বাছাই করে নিতে হবে এবং সেগুলো আদা ছোট ছোট টুকরো করে টবের মধ্যে অথবা মাটিতে রেখে অঙ্কুরিত করে নিতে হবে নেওয়ার। তবে আদার টুকরা বা কন্দ গুলো আগে ছত্রাকনাশক পানিতে ধুয়ে নিতে হবে। ধুয়ে নেওয়ার পরে সেগুলো ভালোভাবে শুকিয়ে নিতে হবে। তারপর সেই কন্দগুলো রোপনের জন্য প্রস্তুত।

চারা রোপন

মাটি এবং সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এবার চারা রোপণের পালা। চারা অঙ্কুরিত করে নেওয়ার পরে  সেগুলো চারা সাবধানে তুলে নিয়ে বস্তায় মধ্যে রোপন করতে হবে। প্রথম প্রথম চারাগুলো রোদের জায়গায় রাখতে হবে তারপর চারার গোড়া বা শিকড় যখন লেগে যাবে তখন গাছ বড় হতে থাকবে।

আরো পড়ুন: পাঙ্গাস মাছ চাষ পদ্ধতি ২০২৩ - নদীর পাঙ্গাস মাছ চেনার উপায় 

পরিচর্যা 

গাছ যখন বড় হতে লাগবে তখন সেগুলোর সঠিক পরিচর্যা করতে হবে তবে বস্তায় আদা চাষ করলে তেমন একটা আগাছা হয় না সেজন্য আগাছা পরিষ্কার করার এই ঝামেলাটা কম হয়। 

সার প্রয়োগ

চারা রোপন করার ২ মাস পরে সার প্রয়োগ করতে হবে সেজন্য ইউরিয়া এবং সরিষার খোল ব্যবহার করতে পারেন আর সার প্রয়োগ করার আগে গাছের চারিপাশের মাটি খুড়ে আলগা করে নিতে হবে।

সেচ

যদি চারা রোপন করার পরে বৃষ্টি না হয় তাহলে ঝাঝরির মাধ্যমে পানি দিতে হবে বেশি পরিমাণ পানি দেওয়া যাবে না আর বৃষ্টি হলে পানি দেওয়ার প্রয়োজন নেই। খরা বেশি হলে এবং মাটি শুকিয়ে গেলে পানি নিয়মিত দিতে হবে।

রোগবালাই দমন

অনেক সময় আদার গাছের পাতাতে হলুদ দাগ দেখা যায় এবং মরে যেতে থাকে এই রোগটিকে বলা হয় কন্দপচা রোগ প্রথমে নিচ দিক থেকে শুরু হয় এবং আস্তে আস্তে  উপরে উঠে যায় এভাবে পুরো গাছটি যখন আক্রান্ত হয়ে পড়ে তখন ঝিমিয়ে পড়ে। 

সেজন্য এই রোগ দমন করতে প্রোভেক্স ও রিডোমিল গোল্ড প্রতি লিটার পানিতে ২ গ্রাম পরিমাণ মিশিয়ে আক্রান্ত গাছগুলোতে স্পে করতে হবে। এবং পোকামাকড় আক্রমণ করলে সেগুলো মারার ব্যবস্থা করতে হবে।

আদা সংগ্রহ বা উত্তোলন 

আদা উত্তোলন বা সংগ্রহ করার জন্য ডিসেম্বর জানুয়ারি ফেব্রুয়ারি বেশি উপযোগি এবং এই সময় গুলোতে আদা উত্তোলন করা হয়। আদা কখন উত্তোলন করবেন সেটা বুঝার জন্য আদার গাছ যখন পরিপক্ব হয়ে হলুদ রঙের হয়ে যাবে তখন বুঝতে হবে আদা উত্তোলন করার সময় হয়ে এসেছে।  তখন আদা গুলো তুলে মাটি ঝেড়ে এবং শিকড় পরিষ্কার করে সংগ্রহ করা হয় জাত ভেদে প্রতি বস্তায় দুই থেকে আড়াই কেজি আদা হয়ে থাকে।

আদা বীজ কোথায় পাবো

আদা চাষ করতে চাইলে আদা বীজ কোথায় পাওয়া যায় এই বিষয়ে জানতে হবে। আদা বীজ পেতে পারেন উত্তরবঙ্গের মসলা গবেষণা কেন্দ্রে এছাড়াও অনেক এলাকায় আদার বীজ বিক্রি করার হাট বসে  তাই আপনার এলাকায় কোথায় আদার বীজ বিক্রির হাট বসে সেটার খোজ করবেন এবং সেখান থেকে ভালো জাতের আদার বীজ সংগ্রহ করতে হবে। এছাড়াও আপনার এলাকায় কোনো কৃষি সহযোগিতা কেন্দ্র থাকে তাহলে সেখানে গিয়ে কথা বলে দেখতে পারেন তাহলে তারা আপনাকে ভালো উপায় বা তথ্য দিবে।

আদা চাষের উপযুক্ত সময়

আদা রোপনের জন্য উপযুক্ত সময় হলো ইংরেজির এপ্রিল থেকে মে এবং বাংলার চৈত্র বৈশাখ এবং জৈষ্ঠ্য মাস। তবে আদা রোপনের সবচেয়ে বেশি উপযুক্ত সময় হলো এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহ। 

হাইব্রিড আদা চাষ পদ্ধতি 

দেশি আদা চাষ করার পদ্ধতি যেমন হাইব্রিড আদা চাষ করার পদ্ধতিও তেমনি হাইব্রিড আদা চাষ করার জন্য আগে মাটি তৈরি করে নিতে হবে তারপর চারা তৈরি করে নিতে হবে তারপর চারা রোপন করতে হবে সার প্রয়োগ পরিচর্যা রোগবালাই দমন সেচ সবগুলো সঠিক ভাবে করার পরে ফসল সংগ্রহ করতে পারবেন। উপরের অংশে বলে দেওয়া নিয়ম গুলো অনুসরণ করে দেশি হাইব্রিড সব আদায় চাষ করতে পারবেন।

বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ভিডিও

বস্তায় আদা চাষ করার পদ্ধতি যদি জানতে চান তাহলে এই ভিডিওটি দেখে বস্তায় আদা চাষের চাষের সকল পদ্ধতি জেনে নিতে পারেন।

video credit: Shohag570 YouTube Channel

আদা চাষ সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন ও উত্তর - FAQ

প্রশ্ন: কোন মাসে আদা চাষ করা ভালো?

উত্তর: ইংরেজির এপ্রিল মে মাসে এবং বাংলার বৈশাখ জৈষ্ঠ্য মাসে আদা চাষ করা ভালো।

প্রশ্ন: আদা গাছের গভীরতা কত?

উত্তর: আদা গাছ লাগানোর জন্য মাটির গভীরতা হতে হবে ২ থেকে ৪ ইঞ্চি এবং প্রতিটি গাছের দুরত্ব হতে হবে ৬ থেকে ৮ ইঞ্চি। 

প্রশ্ন: আদার ইংরেজি নাম কি?

উত্তর: আদার ইংরেজি নাম হলো Ginger.

প্রশ্ন: আদা কোথায় ভালো হয়?

উত্তর: অন্যান্য ফসল চাষের থেকে আদা চাষ বর্তমানে অনেক বেশি লাভজনক। দোআঁশ ও বেলে দোআঁশ মাটিতে আদা ভালো হয় আর বাংলাদেশের ময়মনসিংহ, গাইবান্ধা, নীলফামারী, রংপুর, লালমনিরহাট পার্বত্য অঞ্চল গুলোতে আদা ভালো হয়। 

প্রশ্ন: আদা খেলে কি বমি বমি ভাব হয়?

উত্তর: আদাকে অনেক রোগের ঔষধ হিসেবে ব্যবহার করা হয় তাই আদা খেলে বমি হয়না বরং পরিমাণ মতো আদা খেলে বমি বমি ভাব দূর হয়। 

বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৩ - আদা বীজ কোথায় পাবো: শেষ কথা

প্রিয় বন্ধুরা আজকের পোস্ট থেকে আপনারা জানতে পারলেন বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ২০২৩ আদা বীজ কোথায় পাবো আদা চাষের উপযুক্ত সময় হাইব্রিড আদা চাষ পদ্ধতি বস্তায় আদা চাষ পদ্ধতি ভিডিও। আশা করছি আজকের পোস্ট পড়ে আপনার কিছুটা হলেও উপকৃত হয়েছেন। 

এই পোস্টটি পড়ার পরে এই বিষয়ে যদি আরো কিছু জানার থাাকে তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। এবং এরকম আরো পোস্ট পড়তে আমাদের JONOPRIYO BLOG ওয়েবসাইট নিয়মিত ফলো করুন। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন