পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি - পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ

পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি এবং পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ এর নাম কি আজকের আর্টিকেল এর মাধ্যমে জানতে পারবেন। অনেক সময় আমাদের বিভিন্ন কারনে পাতলা পায়খানা হয়ে থাকে এতে করে শরীর নাজেহাল হয়ে পড়ে কিন্তু আপনি যদি জানেন পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি? তাহলে খুব সহজেই পাতলা পায়খানা ভালো করতে পারবেন। সেজন্য জেনে নিন পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি?
পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি

পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি পাতলা পায়খানা হলে কি কি খাওয়া যাবে পাতলা পায়খানা হলে কি খাবার খাওয়া যাবে না পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ এবং এই সম্পর্কিত আরো অনেক কিছু বিষয়ে নিচে আলোচনা করা হবে তাই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন। 

পোস্ট সূচিপত্রঃ পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি - পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ  

পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি

পাতলা পায়খানা হলে শরীরের অবস্থা একদম নাজেহাল হয়ে যায় তবে আপনি যদি চান কিছু ঘরোয়া উপায়ে পাতলা পায়খানা ভালো করতে পারেন। পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি কিছু কাজ রয়েছে এগুলো আপনি ঘরে বসেই করতে পারবেন। তাই পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি সেগুলো সম্পর্কে জেনে নিন।

  • বেশি বেশি পানি পান করা
  • খাবার স্যালাইন খাওয়া
  • ডাবের পানি
  • কাঁচা পেঁপে
  • ফলের রস
  • বিশ্রাম নিতে হবে

বেশি বেশি পানি পান করাঃ যখন পাতলা পায়খানা হয় তখন পানি শূন্যতা দেখা দেয় সেজন্য আপনি যদি পাতলা পায়খানা হওয়ার সময় বেশি বেশি পানি পান করতে পারেন তাহলে এতে করে পানি শূন্যতা পূরণ হবে এবং পাতলা পায়খানা ভালো হয়ে যাবে। সেজন্য পাতলা পায়খানা হলে বেশি বেশি ঠান্ডা পানি পান করার চেষ্টা করবেন। 

খাবার স্যালাইন খাওয়াঃ ডায়রিয়া হলে লবণ এবং পানি শূন্যতা দেখা দেয় সেজন্য লবণ এবং পানি শূন্যতা পূরণ করার জন্য একটু পর পর আবার স্যালাইন খেতে পারেন। এতে করে লবণ এবং পানি শূন্যতা পূরণ হবে এবং ডায়রিয়া ভালো হয়ে যাবে।

আরো পড়ুনঃ খেজুরের উপকারিতা ও অপকারিতা - খুরমা খেজুরের উপকারিতা

ডাবের পানিঃ পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি যদি জানতে চান তাহলে বলব পাতলা পায়খানা হলে খেতে পারেন ডাবের পানি এতে করে অনেক উপকারিতা পাবেন। পাতলা পায়খানা হলে ডাবের পানি খেলে পাতলা পায়খানা ভালো হয়ে যায়। 

কাঁচা পেঁপেঃ পাতলা পায়খানা হলে কাঁচা পেঁপে খেতে পারেন অথবা কাঁচা পেঁপে সিদ্ধ করে খেতে পারেন এতে করে খুব তাড়াতাড়ি পাতলা পায়খানা ভালো হয়ে যাবে। 

ফলের রসঃ পাতলা পায়খানা হলে খেতে পারেন বিভিন্ন রকম ফলের রস। যেমন বেলের রস লেবুর রস লাউয়ের রস সহ আরো বিভিন্ন রকম ফল রয়েছে সেগুলোর রস খেতে পারেন তাহলে খুব সহজে পাতলা পায়খানা ভালো করতে পারবেন। 

বিশ্রাম নিতে হবেঃ যদি আপনার পাতলা পায়খানা বা ডায়রিয়া হয় তাহলে বেশি বেশি বিশ্রাম নেওয়া প্রয়োজন। কারণ আপনার যদি পাতলা পায়খানা হয় তারপরে যদি আপনি রোদের মধ্যে বাইরে কাজ করেন তাহলে এতে করে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা আরো বেশি থাকে তাই একেবারে বেড রেস্ট করার চেষ্টা করবেন। আশা করছি জানতে পারলেন পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি।

পাতলা পায়খানা হলে কি কি খাওয়া যাবে

পাতলা পায়খানা হলে কি কি খাওয়া যাবে এ বিষয়ে অনেকে জানেন না। পাতলা পায়খানা হলে কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো আপনি যদি খেতে পারেন তাহলে খুব সহজে পাতলা পায়খানা ভালো করতে পারবেন। পাতলা পায়খানা হলে অনেক খাবার রয়েছে যেগুলো খেলে আরো ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাই আপনার জানা প্রয়োজন পাতলা পায়খানা হলে কি কি খাওয়া যাবে তো জেনে নিন পাতলা পায়খানা হলে কি কি খাবার খাবেন।

  • পানি
  • স্যালাইন
  • কলা
  • ফলের রস
  • ডাবের পানি
  • খিচুড়ি
  • সুপ

পানি - যখন পাতলা পায়খানা হয় তখন আমাদের শরীর থেকে প্রচুর পরিমাণে পানি বের হয়ে যায় এতে করে শরীর অনেক দুর্বল হয়ে পড়ে তাই পাতলা পায়খানা বা ডায়রিয়া হলে বেশি বেশি পানি পান করা খুবই প্রয়োজন। এতে করে পানি শূন্যতা পূরণ হলে শরীর তেমন দুর্বল হয় না। তাই পাতলা পায়খানা হলে বেশি বেশি পানি পান করবেন।

স্যালাইন - স্যালাইন এর ভিতরে রয়েছে লবণ আর যখন পাতলা পায়খানা হয় তখন শরীরের লবণের ঘাটতি দেখা দেয় সেজন্য পাতলা পায়খানা বা ডায়রিয়া হলে একটু পর পর স্যালাইন পানি খেতে হবে এতে করে লবণ এবং পানি শূন্যতা পূরণ হলে শরীর ঠিক থাকবে। 

কলা - কলার অনেক উপকারিতা রয়েছে আপনারা হয়তো তা জেনে থাকবেন। পাতলা পায়খানা হলে কলা অনেক উপকারী একটি খাবার। পাতলা পায়খানা হলে পায়খানা করার জন্য আমাদের শরীর থেকে অনেক পুষ্টি বের হয়ে যায় এতে করে শরীর অনেক দুর্বল হয়ে পড়ে তাই আপনি যদি সেই সময় কলা খেতে পারেন তাহলে এতে করে শরীরের পুষ্টি যোগাবে।  

আরো পড়ুনঃ কাঠ বাদামের উপকারিতা - কাঠ বাদামের ক্ষতিকর দিক

ফলের রস - পাতলা পায়খানা হলে কয়েকটি ফলের রস খেতে পারেন এতে করে খুব সহজেই পাতলা পায়খানা ভালো করতে পারবেন পাতলা পায়খানা হলে খেতে পারেন বেলের রস সহ আরো কিছু ফলের রস খেতে পারেন তবে বেশি পরিমাণ খাবেন না এতে করে আরো ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে হালকা পরিমাণে খাবেন। 

ডাবের পানি - পাতলা পায়খানা হলে কি কি খাওয়া যাবে তার ভেতর আরেকটি হল ডাবের পানি। যদি পাতলা পায়খানা হওয়ার সময় আপনি বেশি বেশি ডাবের পানি খেতে পারেন তাহলে এতে করে শরীরের যেমন পানির ঘাটতি পূরণ হবে তেমনি পাতলা পায়খানা ভালো করতে খুব ভালো সাহায্য করে এই ডাবের পানি। 

খিচুড়ি - পাতলা পায়খানা হলে হজম হতে চায় না কোন খাবার সহজে সেজন্য আপনাকে সে সময় নরম জাতীয় খাবার খেতে হবে। তাই পাতলা পায়খানা হলে খিচুড়ি খেতে পারেন এতে করে খিচুড়ি খুব সহজেই হজম হয়ে যাবে এবং এটি পাতলা পায়খানা ভালো করতে অনেক সাহায্য করে থাকে। 

সুপ - পাতলা পায়খানা হলে আপনার বেশি বেশি রেস্ট নেওয়া প্রয়োজন আপনি যখন বিছানায় শুয়ে থাকবেন তখন অল্প অল্প করে সুপ খেতে পারেন। সুপ পাতলা পায়খানা ভালো করার জন্য অনেক কার্যকরী। 

পাতলা পায়খানা হলে কি কি ফল খাওয়া যাবে

অনেকে জানতে চেয়ে থাকেন পাতলা পায়খানা হলে কি কি ফল খাওয়া যাবে? পাতলা পায়খানা হলে অনেক ফল রয়েছে যেগুলো আপনি খেলে পাতলা পায়খানা খুব তাড়াতাড়ি ভালো হয়ে যায়। সেজন্য আপনার জানা প্রয়োজন পাতলা পায়খানা হলে কি কি ফল খাওয়া যাবে। তো জেনে নিন পাতলা পায়খানা হলে কোন কোন ফল খাওয়া আপনার জন্য ভালো হবে। 

পাতলা পায়খানা হলে ফল হিসেবে খাওয়াতে পারেন পাকা কলা কাঁচা পেঁপে লেবুর রস আলুর রস বা আলু ইত্যাদি আরো অনেক ফল রয়েছে সেগুলো খাওয়াতে পারেন। তবে খাওয়ানোর সময় খেয়াল রাখবেন যেন কোন ফল অতিরিক্ত পরিমাণ না খাওয়ানো হয় বা না খাওয়া হয়। যদি অল্প পরিমাণ খান তাহলে এতে করে উপকারিতা পাবেন আর যদি বেশি পরিমাণ একবারে খেয়ে ফেলেন তাহলে উপকারের চেয়ে অপকারিতা বেশি হবে।  

পাতলা পায়খানা হলে কি খাবার খাওয়া যাবে না

পাতলা পায়খানা হলে কি খাবার খাওয়া যাবে না এ বিষয়টি অনেকেরই অজানা পাতলা পায়খানা হলে কোন খাবারগুলো খাওয়া যাবেনা সেগুলো যদি আপনি না জানেন তাহলে এতে করে আপনার সমস্যা আরো বেশি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাই আপনার জানা প্রয়োজন পাতলা পায়খানা হলে কি খাবার খাওয়া যাবেনা। পাতলা পায়খানা হলে যেগুলো খাবার খাওয়া যাবে না সেগুলো হল।

  • অতিরিক্ত ঝাল জাতীয় খাবার
  • দুগ্ধ জাতীয় খাবার
  • অতিরিক্ত শক্ত খাবার
  • নেশা জাতীয় খাবার 

অতিরিক্ত ঝাল জাতীয় খাবারঃ আপনার হয়তো অনেকে জেনে থাকবেন অতিরিক্ত ঝাল জাতীয় খাবার খেলে গ্যাসের সমস্যা দেখা দেয় আর আপনি যদি পাতলা পায়খানা হওয়া অবস্থায় অতিরিক্ত ঝাল জাতীয় খাবার খান তাহলে এতে করে আপনার পেটের জন্য আরো অনেক বেশি ক্ষতিকর হবে এই খাবারগুলো তাই পাতলা পায়খানা হলে ঝাল জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন। 

দুগ্ধ জাতীয় খাবারঃ পাতলা পায়খানা হলে দুগ্ধ জাতীয় খাবার না খাওয়াই ভালো এতে করে পাতলা পায়খানা আরো বেশি হয়ে যাওয়া সম্ভাবনা থাকে তাই পাতলা পায়খানা হলে দুগ্ধ জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন। 

অতিরিক্ত শক্ত খাবারঃ এমন অনেক খাবার রয়েছে যেগুলো অতিরিক্ত শক্ত জাতীয় হয়ে থাকে যা খুব সহজে হজম হতে চায় না সেজন্য পাতলা পায়খানা হলে অতিরিক্ত শক্ত জাতীয় খাবার খাওয়া যাবে না কারণ এগুলো হজম হয় না এতে করে পেটের মধ্যে একটি অশান্তি সৃষ্টি হয়। 

নেশা জাতীয় খাবারঃ পাতলা পায়খানা হলে নেশা জাতীয় খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকুন যেমন মদ গাঁজা সিগারেট সহ যত নেশা জাতীয় খাবার রয়েছে সবগুলো খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। পারলে সারা জীবনের জন্য নেশা সেবন করা থেকে নিজেকে বিরত রাখুন। 

পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ - পাতলা পায়খানা হলে কি ঔষধ খেতে হয় 

পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ অনেকেই খেতে চান আবার অনেকে জানতে চান পাতলা পায়খানা হলে কি ঔষধ খেতে হয় তাদের বলবো পাতলা পায়খানা তেমন বড় কোন সমস্যা বা রোগ নয় এগুলো কিছু ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করলে ভালো করা যায় তাই পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ না খাওয়াই ভালো তারপরেও যদি পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ খেতে চান তাহলে নিচে বলে দেওয়া এই কয়েকটি ওষুধ খেতে পারেন। 

  • Ciprocin 500
  • Filmet 400

Ciprocin 500 - যদি কোন প্রাপ্তবয়স্ক দের পাতলা পায়খানা হয় তাহলে Ciprocin 500 ওষুধটি খাওয়াতে পারেন এটি পাতলা পায়খানা ভালো করতে অনেক কাজ করে একটি ওষুধ তবে এই ওষুধটি শুধুমাত্র বড়দের জন্য। ছোটদের জন্য Ciprocin 250 mg একি ঔষধ রয়েছে সেটা খাওয়াতে পারেন।  

আরো পড়ুনঃ ৭ দিনে মোটা হওয়ার উপায় - মোটা হওয়ার ওষুধের নাম

Filmet 400 - পাতলা পায়খানা ভালো করার জন্য আরেকটি কার্যকরী ঔষধ হলো Filmet 400 এ ওষুধটি শুধুমাত্র প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য। প্রাপ্ত বয়স্ক কোনো ব্যক্তির যদি পাতলা পায়খানা হয়ে থাকে তাহলে এই ওষুধটি খাওয়াতে পারেন তবে একটা কথা মনে রাখবেন ওষুধ খাওয়ানোর চেয়ে ঘরোয়া উপায়ে পাতলা পায়খানা খুব সহজেই ভালো করা যায়। 

তারপরেও যদি ওষুধ খেতে চান তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ খাওয়ার চেষ্টা করবেন ইন্টারনেটে যে কোন ওষুধের নাম দেখে কখনোই খাবেন না। আশা করছি পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ সম্পর্কে একটা ধারণা পেয়ে গেছেন। 

পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম 

পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ এ সকল বিষয়েই ইতিমধ্যে আপনাদের জানানো হয়ে গেছে তার পরেও যারা জানতে চান পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম কি? পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম গুলো হলো।

Imotil  tablet

Zox tablet

Ciprocin 500 tablet 

এইগুলো পাতলা পায়খানা ভালো করার জন্য অনেক কার্যকরী ট্যাবলেট তাই আপনার যদি পাতলা পায়খানা হয়ে থাকে তাহলে এই ট্যাবলেট গুলো খেতে পারেন আর এই ট্যাবলেট গুলো শুধুমাত্র প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য শিশুদের এই ট্যাবলেট খাওয়াবেন না আর যে কোন ঔষধ খাওয়ার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করবেন। 

পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি - পাতলা পায়খানা হলে ঔষধঃ শেষ কথা 

পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি পাতলা পায়খানা হলে কি কি খাওয়া যাবে পাতলা পায়খানা হলে কি কি ফল খাওয়া যাবে পাতলা পায়খানা হলে কি খাবার খাওয়া যাবে না পাতলা পায়খানা হলে ঔষধ পাতলা পায়খানা হলে কি ঔষধ খেতে হয় পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম কি এ সকল বিষয়ে আজকের আর্টিকেল আলোচনা করা হয়েছে। 

আশা করছি আপনারা যদি মনোযোগ দিয়ে পুরো আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ে থাকেন তাহলে আপনাদের অনেক উপকারে আসবে। তারপরেও যদি এই বিষয়ে আরো কিছু জানার থাকে তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন এবং এরকম আরো তথ্যমূলক আর্টিকেল পড়তে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করতে পারেন। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন